| 28 মে 2024
Categories
শারদ অর্ঘ্য ২০২৩

শারদ অর্ঘ্য অনুবাদ: নীলিম কুমারের তিনটি কবিতা । মলয় সরকার

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট
সাম্প্রতিক অসমের অত্যন্ত জনপ্রিয় এবং বিতর্কিত কবি নীলিম কুমার ১৯৬১ সালে অসমের পাঠশালায় জন্মগ্রহণ করেন। পেশায় চিকিৎসক। প্রকাশিত গ্রন্থ ‘ অচিনার অসুখ’,’ স্বপ্নর রেলগাড়ি’,’ জোনাক ভাল পোয়া তিরোতাজনী’, নীলিম কুমারের শ্রেষ্ঠ কবিতা‘ ইত্যাদি। প্রকাশিত গ্রন্থ সংখ্যা ২৪।


কবি শ্রী নীলিম  ‍কুমারের নির্বাচিত অকবিতার অন্তর্গত ‘শ্রীদুর্গার বাবে’ কবিতার অনুবাদ

শ্রী দুর্গার প্রতি

সকলেই তোমাকে ডাকে

আলোতেও আঁধারেও

তোমার বেদীতে দেখি

আঁধারের পূজারী দেয়

নৈবেদ্যের ডালা ,

দেয় আলোকের পূজারীও-

তুমি গ্রহণ করেছ কি

জানিনা আজও-

আমার জীবন পথের

মাইল মাইল অন্ধকার নাশে

আমার হাত ধর মা আঁধার বিনাশিনী-

আমার হৃদয়ের

সাগর ভরা দুঃখ হরণে

আমার হাত ধর মা দুখহারিণী-

আমি না জানি পূজা অর্চন,

না জানি আনন্দের বন্যায় ভেসে যেতে-

এই আনন্দ উৎসবের থেকে

এই জাঁকজমক,কোলাহল আর মন্ত্রের আওয়াজের থেকে

সরে এস মা,

হাত ধর আমার-

আমি তোমায় নিয়ে যাব,

শুভ্র কাশ ফুলের ঝাড়ের ধারে

আর দেখাব শরত রাণীর মায়াময় রূপ নদীর ধারে

আমি তোমাকে উপহার দেব

সহস্র সহস্র কাশফুলের শ্বেত সমুদ্র

আমি জানি, তুমি অবাক হয়ে যাবে

অবাক হবেই—-

কবি শ্রী নীলিম কুমারের নির্বাচিত অকবিতার অন্তর্গত “হে’ পাঠক” কবিতার অনুবাদ

হে পাঠক

তোমার ওষ্ঠের কোণের হাসি আরও রাঙিয়ে তোলার 

প্রতিশ্রুতি আমি দেব না তোমাকে,

তোমার অশ্রুধার মুছিয়ে দেব বলেও

প্রতিশ্রুতি আমি দেব না তোমাকে-

আমি তোমাকে কোন প্রতিশ্রুতি দেব না 

হে পাঠক-

কারণ এই পৃথিবীতে

বেশির ভাগ প্রতিশ্রুতিই মিথ্যা কথায় 

রূপান্তরিত হয়েছে!

আমি কেবল তোমার রক্তের সপক্ষে 

কথা বলব আর

বলব তোমার হৃদয়ের সপক্ষে,

হে পাঠক! 

শ্রী নীলিম কুমারের নির্বাচিত অকবিতার অন্তর্গত “ জহন্নামে যাওক ম’বাইল ফোন”

জাহান্নমে যাক মোবাইল ফোন

জাহান্নমে যাও নিশীথ প্রিয়ার মোবাইল ফোন,

জাহান্নমে যাও ঝুপঝুপ বরিষার ফিসফিসানী রাতের

মোবাইল ফোন। একটি মোবাইল ফোন 

অন্য ফোনকে জিজ্ঞাসা করে,

‘আসবে আমার শয্যায়-”

জাহান্নমে যাক সেই মোবাইল ফোনের ভাষা।

জাহান্নমে যাক শরীরের সবুজ আগুন জ্বালানো মোবাইল ফোন

নীল জিহ্বার মোবাইল ফোন।

জাহান্নমে যাক মিথ্যে কথা বলা 

সমস্ত মিথ্যার মোবাইল ফোন!

তোমার রঙীন বুকে লিখে যে বার্তা

কেড়ে নিয়েছ তীব্র বেগে হে মোবাইল,

কোথাও তো যত্ন করে রাখার নেই প্রয়াস,

কেবল ‘ডিলিট’ করার জন্যই কেন তোমার এত তাড়না, 

এত তাড়াহুড়ো, এত গোপনীয়তা?

তুমি জাহান্নমে যাও , যাও জাহান্নমের পথে-

জাহান্নমে যাও সমস্ত নির্জনতার হত্যাকারী,

কেন তুমি নিশীথ প্রিয়ার গোপনকথাকে রাখ না  গোপনেই ,

জাহান্নমে যাও তুমি

কেন তুমি মানুষের বুকের থেকে উপড়ে ফেল

বিষাদ বকুলের চারা? জাহান্নমে যাও তুমি।

কেন তুমি পরাজিত করতে চাও

মানুষের পবিত্রতম নিঃসঙ্গতা?

জাহান্নমে যাও, তুমি জাহান্নমে যাও।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত