| 27 মে 2024
Categories
ছড়া সংখ্যা ২০২২

পাঁচটি ছড়া । শশাঙ্ক বরণ রায়

আনুমানিক পঠনকাল: < 1 মিনিট
উজ্জয়িনীর জন্মদিনে
 
উজ্জয়িনীর জন্মদিনে আটটি রঙিন ফুল
পাখির সাথে, পাতার সাথে নাচছে হুলুস্থুল
একটি পাখি ঠোঁট বাঁকিয়ে যেই না জুড়ে গান
ফুল-পাতারা চেচিয়ে বলে, “যাচ্ছে ফেটে কান
তারচে চলো, গল্প শুনি দাদুপাখির কাছে”
 
তিনটি পাখি ঝাপটে ডানা লাফিয়ে ওঠে গাছে
বলল তারা, “নো গল্প, আজকে শুধু হাসি
হৈহুল্লোড়, হৈহুল্লোড় চলবে নাচানাচি
দুইটি পাখি কান চুলকে গোমড়া মুখে বলে,
“কেকপেস্ট্রি মিষ্টি ছাড়া জন্মদিন কি চলে”?
দুইটি পাখি তাল দিয়ে কয়, “তাধিনাধিনধিন
প্রিয়বন্ধু উজ্জয়িনী, শুভ জন্মদিন”!
 
 
 
চৌবুড়ি’র নাচ
 
পার্কে ছিল লম্বামুখো
এক‌টি পাখি চৌবুড়ি
বিকেলবেলা একলা বসে
খাচ্ছিল সে দই-মুড়ি
দুষ্টু অতুল বিপুল বেগে
আসল ছুটে সেইখানে
পাখির সাথে কলকলিয়ে
কী কথা কয় সেই জানে
একটু পরে আবাক দেখি
দুজন মিলে হাত ধরে
উথাল-পাথাল তাধিনাধিন
তালবেতালে নাচ করে
 
(চৌবুড়ি: কল্পিত পাখি)
 
 
 
 
 
নদীর উড়াল
 
একটা নদী, শান্ত নদী
ভাবছে শুয়ে, উড়বে সে
সাধ মিটিয়ে দেখবে ঘুরে
এখান, ওখান, দূরদেশে
সেই নদীটা এক বিকেলে
উড়াল দিল দূরপানে
গাছপালারা হাততালি দেয়
পাখি নাচে সুরগানে
মাছগুলো সব নতুন জোসে
মেঘসাগরে খলবলায়
চাঁদের দেশে তারারা আজ
তাইনা দেখে কলকলায়
মাঝে মাঝে প্রাণটা কাঁদে
ফিরবে সে মাটির ঘরে
আকাশ থেকে সেই নদীটা
বৃষ্টি হয়ে তাই ঝরে
 
 
 
 
 
ফুলবাবুটা
 
পথের ধারে গাছের ডালে
ঝুলছিল এক আজব ফুল
রঙ্গিন কপাল, নাক, মুখ আর
মাথা বোঝাই লম্বা চুল
এক কাঁধে তার ফড়িং বসা
অন্য কাঁধে লেজঝোলা
উড়ছে পাশে মৌমাছিও
প্রজাপতির গাল ফোলা
পা আছে তার লম্বা দুখান
হাঁটতে তবু গেছে ভুলে
স্কুলের সময় যায় ফুরিয়ে
উবার ডেকে দাও তুলে
 
 
 
দাদুর দিঘী
 
দাদুবাড়ির ফুলদিঘীতে
ইয়াব্বড় এক মাগুর মাছ
দুপুরবেলায় খাচ্ছে বসে
আস্ত একটা তেঁতুল গাছ
ওমা, দেখ, কাণ্ডটা কী
মাছে নাকি গাছও খায়
হাসতে হাসতে সারা দুপুর
পেটটা আমার ফেটে যায়
দেখবে নাকি মজার মাগুর?
 
দাদুবাড়ি চল যাই
দিঘীর জলে অনেক মজা
সবাই মিলে খলবলাই
 
 
 
 
 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত