| 30 মে 2024
Categories
এই দিনে

সত্যজিৎ রায় সম্পর্কে যেসব তথ্য অনেকের অজানা…

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট

আজ ২ মে কিংবদন্তি ভারতীয় চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্যজিৎ রায়ের জন্মবার্ষিকী। ‘পথের পাঁচালি’, ‘জন অরণ্য’, ‘হীরক রাজার দেশে’, ‘মহানগর’, ‘সীমাবদ্ধ’সহ আরও অনেক বিখ্যাত চলচ্চিত্রের নির্মাতা সত্যজিৎ রায় শুধুমাত্র একজন পরিচালকই নন, তিনি একাধারে লেখক, সুরকার, গীতিকার, ক্যালিগ্রাফার, ম্যাগাজিন সম্পাদক ও চিত্রকর।

বিশ্বনন্দিত এই বাঙালি চলচ্চিত্র নির্মাতার জন্মদিন উপলক্ষে তাঁর কিছু অজানা দিক তুলে ধরা হল এই প্রতিবেদনে।

১. সিনেমায় আসার আগে সিগনেট প্রেসে বইয়ের কভার ইলাস্ট্রেশনের দায়িত্বে ছিলেন সত্যজিৎ। সেখানে দুটি অসামান্য বইয়ের প্রচ্ছদ ডিজাইন করেন তিনি। একটি হল জিম করবেটের ‘ম্যানইটারস অফ কুমায়ুন’, অন্যটি হলো জওহরলাল নেহেরুর ‘ডিসকভার অব ইন্ডিয়া’।

কিংবদন্তি চলচ্চিত্র নির্মাতা সত্যজিৎ রায়। ছবি: সংগৃহীত

২. ক্যালিগ্রাফিতে সত্যজিৎ রায়ের দক্ষতার কথা অনেকেই জানেন। কিন্তু তাঁর হাতে তৈরি রোমান ফন্টের কথা? চারটি রোমান ফন্ট ডিজাইনের পেছনেও রয়েছে সত্যজিতের কৃতিত্ব। ভারতীয় মোটিফ ও ক্যালিগ্রাফি দিয়ে তৈরি সেই ফন্টগুলোর নাম রে রোমান, রে বিজার, ড্যাফনিস ও হলিডে স্ক্রিপ্ট।

৩. ১৯৪৮ সালেই লেখা হয়ে গিয়েছিল রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের উপন্যাস ‘ঘরে বাইরে’র চিত্রনাট্য। হরিসাধন দাশের সঙ্গে যৌথভাবে সিনেমাটি করার কথাও ছিল। কিন্তু প্রযোজক চিত্রনাট্যের এক জায়গায় পরিবর্তন করতে বলায় তাতে রাজি হননি সত্যজিৎ।

ছবি: সংগৃহীত

৪. ‘পথের পাঁচালি’ই প্রথম সিনেমা যা রিলিজের আগে একটি টিজারের মাধ্যমে প্রচার হয়। এর মাধ্যমেই প্রথম ভারতে কোনো সিনেমা মুক্তির আগে তার টিজার প্রকাশিত হয়। এদিক থেকেও পথিকৃৎ ছিলেন সত্যজিৎ।

৫. ‘পথের পাঁচালি’ সিনেমার শেষে একটু ‘হ্যাপি এন্ডিং’ থাক, এমনটাই চেয়েছিল তৎকালীন পশ্চিমবঙ্গ সরকার। শেষে জওহরলাল নেহেরুর মধ্যস্থতায় সিনেমাটি কান চলচ্চিত্র উৎসবের মঞ্চে পৌঁছায়।

৬. ১৯৬৪ সালে তিনি ‘চারুলতা’ পরিচালনা করেন। এই সিনেমা নিয়ে তার একটি কথা এখনও বিখ্যাত। পরে একসময় তিনি বলেছিলেন, ‘কখনো এই সিনেমা দ্বিতীয়বার বানাতে হলে এই একইভাবে বানাব।’

ছবি: সংগৃহীত

৭. ১৯৬১ সালে কবি সুভাষ মুখোপাধ্যায়ের সঙ্গে যৌথভাবে ছোটদের পত্রিকা ‘সন্দেশ’ সম্পাদনা শুরু করেন তিনি। বাবা সুকুমার রায়ের মৃত্যুর কিছুদিন পর পত্রিকাটি বন্ধ হয়ে গিয়েছিল।

৮. ‘কাঞ্চনজঙ্ঘা’ সত্যজিৎ রায়ের নিজের লেখা গল্প থেকে তৈরি করেন। এটিই তার প্রথম রঙিন সিনেমা।

৯. ১৯৮৭ সালে সত্যজিৎ রায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারের জন্য একটি তথ্যচিত্র তৈরি করেন। সেই তথ্যচিত্রটি ছিল তাঁর নিজের বাবাকে নিয়ে নির্মিত। সুকুমার রায়ের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষে তৈরি করা হয় সেই তথ্যচিত্র।

ছবি: সংগৃহীত

১০. অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বিনোদন জগতের প্রথম যে ব্যক্তি ডক্টরেট লাভ করেন, তিনি হলেন চার্লি চ্যাপলিন। তারপরেই সেই তালিকায় দ্বিতীয় নাম সত্যজিৎ রায়।

১১. শুধু নিজের সিনেমায় নয়, মার্চেন্ট আইভরি ফিল্ম ‘শেক্সপিয়ার ওয়ালাহ’তেও সঙ্গীত পরিচালকের কাজ করেছেন সত্যজিৎ রায়।

 
error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত