আজ ভারতের প্রথম ম্যাচ সামনে বিধ্বস্ত দক্ষিণ আফ্রিকা

বিশ্বকাপ শুরু হওয়ার এক সপ্তাহ পর প্রথমবার মাঠে নামতে যাচ্ছে হট-ফেভারিট ভারত। বুধবার বাংলাদেশ সময় বেলা সাড়ে ৩টায় সাউথ আফ্রিকার মুখোমুখি হবে বিরাট কোহলির দল। টানা দুই ম্যাচ হারার পর ছন্দে ফিরতে মরিয়া প্রোটিয়ারা। অন্যদিকে জয় দিয়ে টুর্নামেন্টে শুভ সূচনা করার লক্ষ্য ভারতের।

নিজেদের প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ডের কাছে হেরে টুর্নামেন্ট শুরু করা সাউথ আফ্রিকাকে পরের ম্যাচে হারিয়েছে বাংলাদেশ। অন্যদিকে দ্বাদশ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো মাঠে নামার অপেক্ষায় রয়েছে চরমনে-সতেজ কোহলি-রোহিতরা। বিশ্বকাপে দুই দলের মুখোমুখি লড়াইয়ে অবশ্য বেশ এগিয়ে সাউথ আফ্রিকা।

চারবারের সাক্ষাতে সাউথ আফ্রিকার তিন জয়ের বিপরীতে ভারতের জয় মাত্র একটিতে। তবে গত বিশ্বকাপে সাউথ আফ্রিকাকে হারানোর স্মৃতি নিয়ে মাঠে নামছে ভারত, যেটি কোহলিদের অনুপ্রেরণা জোগাবে।

২০১২ সালের পর থেকে আইসিসির আসরে পাঁচবারের সাক্ষাতেই সাউথ আফ্রিকাকে পরাজিত করেছে ভারত। ২০১২ ও ২০১৪ সালের টি-টুয়েন্টি বিশ্বকাপ, ২০১৩ ও ২০১৭ সালের চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির পাশাপাশি ২০১৫ বিশ্বকাপে জয় পায় কোহলিরা। ফলে আইসিসির মেগাআসরে ফেভারিট হয়েই নামবে টিম ইন্ডিয়া।

টানা দুইহারে এমনিতেই ব্যাকফুটে সাউথ আফ্রিকা। তার উপর দলের সেরা বোলার ডেল স্টেইন ইনজুরির কারণে বিশ্বকাপ থেকে ছিটকে পড়ায় বেশ নাজুক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে গত বিশ্বকাপের সেমিফাইনালিস্টরা।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ব্যাটসম্যানদের ব্যর্থতায় ৮ উইকেটের বড় ব্যবধানে পরাজয় সঙ্গী হয়েছে সাউথ আফ্রিকার। পরের ম্যাচে বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাটসম্যানরা ভালো করলেও বোলারদের ব্যর্থতায় টানা হার সঙ্গী প্রোটিয়াদের। ফলে র‌্যাঙ্কিংয়ের দুই নম্বর দল ভারতের বিপক্ষে সাউথ আফ্রিকার বোলার এবং ব্যাটসম্যানদের কঠিন পরীক্ষাই দিতে হবে।

দলীয় র‌্যাঙ্কিং এবং সাম্প্রতিক ফর্মের পাশাপাশি ব্যক্তিগত র‌্যাঙ্কিংও এগিয়ে রাখছে ভারতকে। বিরাট কোহলি ও রোহিত শর্মা ব্যাটসম্যানদের র‌্যাঙ্কিংয়ে এক ও দুই নম্বরে রয়েছেন। অন্যদিকে শীর্ষ বোলার জাসপ্রিত বুমরাহও খেলছেন ভারতের হয়ে। এছাড়া কুলদীপ যাদব সপ্তম এবং যুজবেন্দ্র চাহাল রয়েছেন আইসিসি টেবিলের অষ্টম স্থানে।

কোহলি ও রোহিত মিলে ওয়ানডেতে সেঞ্চুরি করেছেন ৬৩টি, গোটা সাউথ আফ্রিকা দলের চেয়ে সংখ্যাটি দুইগুণ বেশি। অন্যদিকে আইসিসির আসরে শিখর ধাওয়ানের ব্যাটিং গড় ৬৪.৬৯। যদি সাউথ আফ্রিকা এই তিনজন থেকে নিষ্কৃতি পায় তবে মিডলঅর্ডারে ধোনি তো রয়েছেনই। সবমিলিয়ে স্টেইন-এনগিডি বিহীন সাউথ আফ্রিকান বোলিং লাইনের জন্য কঠিন পরীক্ষাই অপেক্ষা করছে।

দলের অন্য তারকা খেলোয়াড়দের পারফরম্যান্সও ভারতকে আত্মবিশ্বাসী করে তুলেছে। সদ্য শেষ হওয়া আইপিএলে দুর্দান্ত ফর্মে ছিলেন ধোনি, লোকেশ রাহুল, হার্দিক পান্ডিয়া ও মোহাম্মদ সামি। বিশ্বকাপেও যদি তারা সেই ফর্ম ধরে রাখতে পারেন তবে সেটি ভারতকে উড়ন্ত সূচনাই এনে দেবে।

যদি সিমিং উইকেট হয় এবং বল সুইং করে তবে জাসপ্রিত বুমরাহ ও মোহাম্মদ সামি সাউথ আফ্রিকান ব্যাটসম্যানদের পরীক্ষা নেবেন। তবে পিচে স্পিন ধরলে চাহাল ও কুলদীপ যাদব প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের নাভিশ্বাস ছোটানোর জন্য রয়েছেন। অন্যদিকে ফ্লাট পিচ হলে কোহলি, রোহিত ও ধাওয়ান রানের পাহাড় গড়ার জন্য প্রস্তুত।

CWC19 Head Banner For all

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত