অমিতাভ পালের গুচ্ছ কবিতা

আজ ০৫ ডিসেম্বর কবি, গল্পকার ও সাংবাদিক অমিতাভ পালের শুভ জন্মতিথি। ইরাবতী পরিবার তাঁকে জানায় শুভেচ্ছা ও নিরন্তর শুভকামনা।



জীবনের অনেক কিছুই দেখা হয়নি আমার
এর কোন কোনটা লেগে আছে আঙুলের ডগায়
কারো উল্লেখ আছে ত্বকের তাম্রলিপিতে
কানের তাকে তাকেও সাজানো আছে কয়েকটার নির্দশন
আর কিছু আছে জিহ্বা আর নাকের পিরামিডে
গোপন মমির মতো

জীবনের অনেক কিছুই দেখা হয়নি আমার
আর সেসব কিছু জমানো আছে অনুভূতির গুহায়

আমার আত্মজীবনীর পৃষ্ঠাগুলি একটা জাদুঘরের
ছাপানো ব্রোসিওর।


তুমি সন্ধ্যাটা কোথায় কাটাও- সেটা দিয়েই
আমি বুঝতে পারি তুমি কি ভাবছো
কারণ সন্ধ্যাই তোমার নিজের সময়
দিনটাকে তোমার দিয়ে দিতে হয়েছে পলাতক টাকার পিছনে
আর রাতটাতো বউ ছেলেমেয়ের

সন্ধ্যার ভাষাই তোমার নিজের ভাষা


চায়ের দোকানে বসে গল্প করছে পাঁচটা লোক
ঘটমান বর্তমান তাদের আলোচনার বিষয়
জ্ঞানাজর্নের উৎসাহে পত্রপত্রিকা আর টেলিভিশনে
যা তারা পড়েছে আর শুনেছে
সেসবই উগড়ে দিচ্ছে অবলীলায় আপটুডেট
হবার মহৎ ইচ্ছায়

চায়ের দোকানে বসে গল্প করছে পাঁচটা লোক
তাদের গল্পে বমির গন্ধ
জনতা মূলত বালক


বিশৃঙ্খলায় মাথা ধরেছে আমার
ভীতিকর শব্দে হৃদপিন্ডে ব্লক হয়েছে তোমার
অসাধুতার ভাইরাসে শরীর হলুদ হয়ে যাচ্ছে তার
সুস্থতা এখন নাজেহাল
ঘরে ঘরে সাদা হাসপাতাল

অসুস্থতা আমাদের জাতীয় সঙ্গীত


নিজের সবটুকু সৌন্দর্য সুরক্ষিত সুটকেসে গুছিয়ে রেখে
জীবন কাটাচ্ছিল একটা মেয়ে
বিবাহের পরে সুটকেসটাকে নিয়ে সে গেল স্বামীর বাড়ি
আর তার স্বামী প্রথম রাতেই সুটকেসটাকে উল্টেপাল্টে
ভিতরের জিনিসগুলি তচনচ করে দিল

পরদিন মেয়েটি আবার গোছালো তার সৌন্দর্যের সুটকেস
রাতে আবার তচনচ হলো সব

মেয়েরা এভাবেই অবিরাম…


তোমার আর আমার মাঝখানে স্থল মাইনের মতো
ঘাপটি মেরে বসে আছে নিয়ম সমাজ ধর্ম
আর ব্যর্থতার রাগ
প্রকৃতির তৈরি করা আমাদের সহজ সম্পর্ক তাই বিপদজনক
সাধে কি আর রূপকথায় লেখে- সাত সমুদ্র তেরো নদী

আমাদের মাঝখানে আমরাই বসে আছি কাঁটাতারের মতো


আমার সময়ের আমিই মালিক
আমি চলে যাবার পরে সময়ের মালিকানা নিয়ে
যত পারো ঝগড়া কোরো অতীত-ভবিষ্যত
আমি দেখতেও আসবো না
কিন্তু আমি যতক্ষণ আছি- আমার সময়
আমাকেই তৈরি করতে দাও

বলে রাখি- আমি কখনো অতীত কিংবা
ভবিষ্যত সময়ের মালিকানা দাবি করবো না
বড়জোর এইটুকু বলতে পারি- সময়ের
আজানুলম্বিত দেয়াল তৈরিতে লেগেছে
আমার বানানো ইটও

 

বলবার কথা

আমি আজ যা বলছি, তা হয়তো বহু আগেই
কেউ বলে ফেলেছে বা বহুদিন পরে কেউ বলবে
বলবার কথা আসলে একটাই

 

যুদ্ধে জেতার তরিকা

অনৈতিক কাজ করা লোকটার দিকে যেই তোলা হলো অভিযোগের আঙুল
অমনি সে পাল্টা আঙুল তুলে আরো জোর গলায় জানিয়ে দিল
অভিযোগকারীই আসলে অভিযুক্ত
রাস্তাঘাটে এই ঘটনা দেখতে দেখতে আমি ধরতেই পারিনা
সমস্যার মূলে কে
ফলে মনে হয় পৃথিবীটা এখন পূণ্যবানে ভরে গেছে
আর সমস্যাগুলি কারো কাছে আশ্রয় না পেয়ে
ভেসে উঠছে যেখানে সেখানে
প্রতিটা যুদ্ধে জিততে চাইছে প্রত্যেকটা মানুষ

তিমির হননের গান ২০১৫

আমার সমস্ত রোদ বিক্রি করেছি আমি অফিসের কাছে
আর যতটুকু আলো আমার জীবনে বাকি আছে
তাদেরও সিংহভাগ চলে যায় ফ্ল্যাটের বিদ্যুৎবিল মেটানোর কাজে
বাকি থাকে অন্ধকার- ঘুমহীন রাত্রির ভাঁজে ভাঁজে
বিষণ্ন প্রেমের স্রোতে ঢুকে গেছে শিশুদের দল
খাটের ক্ষেত্রফলে শব্দে ভরা কারখানার মতো
নতুন পণ্য আসে নতুন লাভের আশা নিয়ে
বাণিজ্য- কাহার তুই বল
ডুবে যাচ্ছি অন্ধকারে ডুবে যাচ্ছি- ধরো
হে সূর্য বাড়াও তোমার রশ্মির আঙুল
শতখণ্ডে ছড়িয়ে পড়া আমাকে আবার জড়ো করো
ফুটাও আমার মনে জীবনের বিষভরা হুল

 

 

ট্যুরিস্ট গাইড

 যেকোন সময় যেকোন দিকে রওনা হয়ে গেলেই হয় নিশ্চিতভাবেই তুমি কোথাও পৌঁছে যাবে আর বিস্ময়ে অবাক হয়ে দেখবে—এইরকম একটা জায়গা কী প্রবলভাবেই না অস্তিত্বশীল হয়ে শুয়ে আছে পৃথিবীর পিঠের উপরে এখন তোমার কাজ জায়গাটার একটা নাম দেয়া আর তারপর যারা সেখানে কোনদিনও যায়নি তাদের হাতে ধরিয়ে দাও জায়গাটার হদিশ দেয়া ম্যাপ এই ম্যাপটাই তোমার আবিষ্কার আবিষ্কারকেরা মূলত ট্যুরিস্ট গাইড

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত