বাংলাদেশকে টেস্টে হারিয়ে চমকে দিল রশিদ খানের টিম

অবশেষে ইতিহাস আফগানিস্তানের। বাংলাদেশকে টেস্টে হারিয়ে চমকে দিল রশিদ খানের টিম। ২২৪ রানে জয় আফগানদের। ২০ বছরের রশিদ নজির গড়লেন সবচেয়ে কম বয়সে ক্যাপ্টেন হিসেবে অভিষেকে টেস্ট জিতে।

বৃষ্টি বিঘ্নিত শেষ দিন জিততে আফগানদের দরকার ছিল ৪টে উইকেট। ক্রিজে ছিলেন সাকিব আল হাসান ও সৌম্য সরকার। বাংলাদেশ ক্যাপ্টেন কোনও প্রতিরোধই গড়তে পারলেন না। বাকি চার উইকেটের মধ্যে ৩টে একাই নিয়ে আফগানিস্তানকে জেতালেন ক্যাপ্টেন রশিদ। প্রথম ইনিংসে ছিল ৫ উইকেট। দ্বিতীয় ইনিংসে আফগান স্পিনার নিলেন ৬। সব মিলিয়ে ১০৪ রানে ১১ উইকেট। টেস্টে নেতৃত্বের অভিষেকে পাঁচ উইকেট ও হাফ সেঞ্চুরির জোড়া কৃতিত্বে রশিদ চতুর্থ। ইংল্যান্ডের শেল্ডন জ্যাকসন (১৯০৫), ইমরান খান (১৯৮২) ও সাকিবের (২০০৯) পর।

বছর দেড়েক আগে টেস্ট স্ট্যাটাস পাওয়া আফগানিস্তান এখনও পর্যন্ত মাত্র তিনটে টেস্ট খেলেছে। চলতি বছর ভারতের বিরুদ্ধে ছিল তাদের প্রথম টেস্ট। বিশ্বকাপের আগেই আয়ার্ল্যান্ডের বিরুদ্ধে প্রথম টেস্ট জয়ের স্বাদ পেয়েছিল তারা। এ বার বাংলাদেশের মতো টিমকে হারিয়ে দিলেন রশিদরা।

৩৯৮ রানের লক্ষ্য নিয়ে ব্যাট করতে নামা বাংলাদেশ ১৭৩ রানে শেষ হয়ে যায়। ব্যাটে-বলে দারুণ সফল পুরো টিম। এ দিন ৩৭ রানের বেশি তুলতে পারেনি সাকিবের টিম। সাকিব নিজে ৪৪-এর বেশি তুলতে পারেননি।

রশিদ এক টেস্টের সিরিজ জেতার পর বলেছেন, ‘বাংলাদেশের মতো বড় টিমকে হারিয়ে টেস্ট জেতা আমাদের কাছে অবশ্যই বিরাট ব্যাপার। এই ফর্ম্যাটে আমরা নতুন। তবে, কেরিয়ারে এই উত্তেজক ম্যাচ আমি আর কখনও খেলিনি।’ সঙ্গে তাঁর সংযোজন, ‘ম্যাচটাতে আমরা ব্যাটিং, বোলিং ও ফিল্ডিং সব বিভাগেই সেরাটা দেওয়ার চেষ্টা করেছি। তবে, ব্যাটসম্যানদের আলাদা করে কৃতিত্ব দিতেই হবে। ওরা বোলারদের লড়াই করার মতো যথেষ্ট রান এনে দিয়েছিল।’

চট্টগ্রামে এ দিন সকাল থেকেই বৃষ্টি পড়ছিল। একটা সময় মনে হচ্ছিল, ম্যাচ বোধহয় বৃষ্টিতে ধুয়েই যাবে। দুপুর ১টা নাগাদ ম্যাচ শুরু হতেই রশিদের টিম ঝাঁপিয়ে পড়ে জেতার জন্য। ঐতিহাসিক টেস্ট ম্যাচেই শেষ বার খেললেন মহম্মদ নবি। রশিদ বলেছেন, ‘নবি আমাদের মতো স্পিনারদের প্রচুর সাহায্য করেছে। যে কারণে, নবিকে আমার ম্যাচের সেরার পুরস্কারটা দিয়ে দিলাম। একটাই ভালো ব্যাপার যে, ওকে ওয়ান ডে আর টি-টোয়েন্টিতে পাব।’ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে এই ম্যাচে তিন আফগান ক্রিকেটারের অভিষেক হয়েছিল। তাঁদের সম্পর্কে রশিদের মন্তব্য, ‘ওরাই দেশের ভবিষ্যৎ।’

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত