| 16 এপ্রিল 2024
Categories
কবিতা সাহিত্য

মুহাম্মদ রফিক ইসলামের কবিতা

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট
আফটার সিক্সটি 
সেকালে কাঁদতাম; একালে কাঁদি।
কাঁদার নিজস্ব ব্যাকরণে
অর্থের ব্যাপার আছে, থাকেই।
সেকালে চোখ কাঁদতো;
নোনাজলে ভাসতো; হালকা হতাম!
একালে মন কাঁদে;
কলিজা পুড়ে, মন পোড়ায়;
স্থায়ী দুর্গন্ধে বুক ভারী ভারী লাগে।
সেকালে স্বজন-প্রিয়জন, সব ছিলো;
মানুষ ছিলো না।
একালে মানুষের ভীড়ে গড়াগড়ি খেয়ে
কোথাও স্বজন দেখি না!
একাল ও সেকালের আমি
এখনো অবুঝ।
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com,line art,kobi-misbah-jamil-bangla-kobita
জলঘড়ি
অতঃপর…
একটা জলঘড়ি।
সোনালি শরীরে শীৎলার বলৎকারে
স্থায়ী কলঙ্ক নিয়ে
কাঁটাগুলো রক্তপানির স্রোতে
বিধৌত হয়…!
চিত্রকরের আজব তুলিতে
ফ্রেমবন্ধি নিয়তি,
জ্বালা-পোড়ার প্রচ্ছদে ভেতরের অবয়ব;
বাহিরে লবণপানির খোদিত নির্যাসে
চোয়ালের ভূমি তুন্দল রুটি!
ঘড়ি।
জমিনে উইপোকা’র বসতি;
উপরে কাঁটা-
ঘূর্ণনে কলিজা, হৃদপিণ্ড ছিঁড়ে
ফুসফুসে জমে ব্যথার বুদবুদ।
তারপর…
এক এক করে কাঁটাগুলো খসে যায়;
ফুরিয়ে আসে ঘড়ির প্রয়োজন…
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com,bengali-poetry-in-assam
পাখি ঘটিত ভাবনা
পাখনা গজালে ওড়ার স্বাধীনতা থাকে
এই আকাশে উড়তে না চাইলে
অন্য আকাশে অন্য ভাবে ওড়ো
তবু ওড়ো-
আমিও পাখি হ’বো একদিন-
তোমার আকাশে উড়ার বাসনা নিয়ে…
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com,kobi girish goiric kobita
হাঁটো, পা যেদিকে যায়
ভালোবাসাটা এখনো নতুনত্বের
                      গল্প বোনে-
বিরামচিহ্নহীন সম্পর্কের দিকে
দিন গড়িয়ে রাত পেরিয়ে
তোমার-আমার সমান্তরাল প্রেমের
                     পুরাতন চোখ
নীরব-নিস্প্রভ চাহনিতে ভাঙ্গে
হৃদয়ের খানা-খন্দর!
বড্ড আলসেমি পেয়ে বসলেও
ভাবতে হয় ভাবনার স্বভাব দোষে
খড়কুটোর অবলম্বনের কথা;
                    ব্যর্থতার আপাদমস্তক
প্রচন্ড ঘৃণা হয়
ঘৃণার ছোঁয়াচে জীবাণু
ছড়িয়ে যায় জীবনের অলিতে-গলিতে
                    অসম ব্যথায়
চাতকের ঠোঁটে এক মুঠো বৃষ্টির
                    সান্ত্বনা নিয়ে
ফিরে আসবে না জানি সমতায়
তুমি না কি এখন
                   ধ্বংসের মাতমে
প্রচন্ড খেলোয়াড় বেলা-অবেলায়
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com
কষ্টের আশপাশে কষ্টের ছায়া 
একটা কষ্ট আরেকটা কষ্টের পাশে
অনেকটা পথ-
অকারণে ফিরে যায়।
একটা সমান্তরাল সম্পর্ক ঘিরে
ক’ফোঁটা দীর্ঘশ্বাস
ওড়ে,
পড়ে থাকে আগুনপালক!
মেঘের শরীরে
চৈত্রের ঘাস
হাঁটে-  হেঁটে হেঁটে ভাবে,
ভাবায়,
বৃষ্টির সারথী আর কতদূর?
কষ্টের পায়ে কষ্টের পথ মাড়িয়ে
পাহাড়ের পাশে একদিন-
আমি ঝর্ণা হ’বো!

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত