| 19 এপ্রিল 2024
Categories
কবিতা সাহিত্য

ইরাবতী সাহিত্য: পাপড়ি গঙ্গোপাধ্যায়ের যুগল কবিতা

আনুমানিক পঠনকাল: < 1 মিনিট

পাতা খসার দিন

খসে পড়ছে পাতা
ঝরে যাচ্ছে জীবন
পৃথিবীর রঙীন ক্যানভাস থেকে
একে একে মুছে যাচ্ছে রঙ।
সত্য প্রভু, এসব তো মোহ আর ভ্রম
তবু এই মায়া নেশার জগতে
আরেকটু শ্বাসবায়ু সকলের প্রত্যাশা চিরদিন।
একটু বেশি থেকে যাওয়া
যন্ত্রণা মাখানো সুখ চেখে চেখে
যে যার নির্দিষ্ট রূপে অভিনয়
যতক্ষণ স্টেজে থাকা যায়।
হে মহান পরিচালক
কার কবে শেষ রাত্রি
জন্মের শোধ অভিনয়
আমরা কেউ নিজেও জানি না।
              

 

 

 

নেই হয়ে যাওয়া

মুহূর্তে নেই হয়ে যাওয়া
কত প্রাণ
মহামারী গণ বিপর্যয়ে
শরীরে নিহিত শক্তি
কোথায় বিলীন!
ভবিষ্যত পঞ্চভূতে
নিমেষে অতীত।
#
নেই হওয়া সম্মিলিত হাওয়া
রেগে যায়, ফুঁসে ওঠে-
কেন তারা নেই আর
আনন্দের কর্মযজ্ঞে!
ছেড়ে যাওয়া হাওয়াগুলি কাঁদে।
#
পৃথিবীতে ঘূর্ণিঝড় বয়।
বৃষ্টি ও তুষারপাত।
পদার্থ বিদ্যার
শক্তি রূপান্তর ধর্ম মেনে।
চেনাজানা প্রাণবায়ু, শ্বাস,
অচেনা অনেক প্রাণ,শ্বাস
মিলেমিশে আকাশে বাতাসে।
#
আমরা তাদের আর চিনতে পারি না।

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত