প্রথমার্ধে খেললো বাংলাদেশ

দিনটিকে নিজেদের করে নেবার পরিকল্পনা বাংলাদেশের ব্যাটিং এ ফুটে উঠেছে। ফল আন্তর্জাতিক ওডিআই ক্রিকেটে নিজেদের সবোর্চ্চ রানের ইনিংসটাই খেললো বাংলাদেশ।
বিশ্বকাপে তাদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে ৩৩১ রানের লক্ষ্য দিয়েছে বাংলাদেশ। মুশফিকুর রহিমের (৭৮) ও সাকিব আল হাসানের (৭৫) অর্ধশতক এবং শেষ দিকে মাহমুদুল্লাহ-মোসাদ্দেকের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৩৩০ রান সংগ্রহ করে টাইগাররা। যা চারবছর আগে পাকিস্তানের বিরুদ্ধে করা ৩২৯ কে ছাপিয়ে গেলো। সাউথ আফ্রিকার সাথেও আগে কখনো তিনশত রানের দেখা পায়নি বাংলাদেশ। রোববার লন্ডন কেনিংটন দ্য ওভাল স্টেডিয়ামে টসে জিতে দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস বাংলাদেশকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায়।

ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা করে বাংলাদেশের দুই ওপেনার তামিম ইকবাল ও সৌম্য সরকার। ৭ ওভারেই স্কোর বোর্ডে ৫০ রান তোলেন দুই ওপেনার। দলীয় ৬০ রানের মাথায় আন্দিল পেহলিকায়োর বলে ব্যক্তিগত ১৬ রান করে ফেরেন তামিম ইকবাল । তামিম ফিরে গেলে স্থায়ী হতে পারেননি সৌম্য সরকারও। দলের ৭৫ রানের মাথায় ক্রিস মরিসের শিকার হন তিনি। ৩০ বলে ৯ চারে ৪২ রান করেন সৌম্য। তৃতীয় উইকেট জুটিতে সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিমের ১৪২ রানের জুটতে বড় সংগ্রহের ভিত গড়ে দেন দলকে। ৭৫ রানে বাংলাদেশ যখন ২ উইকেট হারায় সেখান থেকে দলকে দুজনে মিলে টেনে নিয়ে যান ২১৭ রানে। ইমরান তাহিরের শিকার হয়ে ৮৪ বলে ৮ চার ও এক ছয়ে ৭৫ রানে ফিরে যান সাকিব। সাকিব আউট হলে, ব্যাট করতে নেমে মোহাম্মদ মিথুন করেন ২১ রান। দলকে এগিয়ে নেয়া মুশফিক ৮০ বলে ৮ চারে ৭৮ রান করে দলীয় ২৫০ রানের মাথায় পেহলিকায়োর দ্বিতীয় শিকার হন তিনি। রান। শেষ দিকে মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ ও মোসাদ্দেক হোসেন মিলে ছয় ওভারে তোলেন ৬৬ রান। মোসাদ্দেক ২০ বলে ২৬ রান মরিসের শিকার হন। রিয়াদের ব্যাট থেকে আসে ৩৩ বলে ৩ চার ও এক ছয়ে ৪৬ রান। ৪ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন মেহেদি হাসান মিরাজ। শেষ পর্যন্ত ৫০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ৩৩০ রান সংগ্রহ করে বাংলাদেশ।

আফ্রিকান বোলারদের মধ্যে আন্দিল পেহলিকায়ো, ইমরান তাহির ও ক্রিস মরিস ২টি করে উইকেট শিকার করেন।

.

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত