| 29 ফেব্রুয়ারি 2024
Categories
গল্প সাহিত্য

প্রয়োজন

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট

Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.comশুয়ে শুয়ে ফেসবুক দেখছে কাজল।
তমা,ওর স্ত্রী,রান্নাঘরে ওর জন্য চা বানাচ্ছে।করোনাকাল চলছে।কাজলের অফিস বন্ধ।তমার যে ফ্যাশন হাউজ আছে সেটাও বন্ধ।সব মিলিয়ে দুজনের ভালোই কাটছে দিনগুলি।মাঝেমাঝে কাজল ফ্ল্যাটের নিচে যে দোকান খোলা থাকে ,সেখান থেকেই টুকটাক সদাইপাতি করে নিয়ে আসে।
বারান্দায় বসে দুজনে আকাশ দেখে।
পাখিদের কলকাকলি আগের তুলনায় বেড়েছে।
দূরে রাস্তার পাশে গাছগুলিতে সবুজের সমারোহ বেড়েছে।আগে চোখগুলো জ্বালা করত।সেটা কমেছে।
রাস্তা থেকে আগে ভেসে আসত যানবাহনের শব্দ। সেটা বন্ধই বলা চলে।
বাসার পেছনের গলিতে ছোট ছোট ছেলেদের ক্রিকেট খেলা বেড়েছে।সেটা বারান্দায় বসে বসে দেখতে বেশ লাগে।
দিনের বেলা কাজল আর তমা বসে বসে মুভি দেখে।এখন পর্যন্ত খারাপ কাটছে না সময়।
‘অন্ধ মানুষকে সাহায্য করেন।’ফ্ল্যাটের নিচে জোরে জোরে কেউ হাঁক দিচ্ছে।
‘কে এত জোরে চেঁচাচ্ছে!দেখ তো।’রান্নাঘর থেকে বলল তমা।
ফেসবুক ছেড়ে বারান্দায় এসে দাঁড়াল কাজল।
একটা অন্ধ ফকির।
‘অন্ধ ফকিরকে সাহায্য করেন বাবা।’জোরে জোরে চেঁচাল ফকিরটা।
রান্নাঘরে গেল কাজল।
‘একজন অন্ধ ফকির সাহায্য চাইছে নিচে।’
‘দিয়ে দাও।এখন মানুষের কঠিন সময় যাচ্ছে।’বলল তমা।
‘দেব কীভাবে?অন্ধ মানুষ।দিতে হলে তিনতলা থেকে আমাকে নিচে নামতে হবে।’
‘দিয়ে এসো।’
‘হাতে দিয়ে আসব!লোকটি যদি করোনা আক্রান্ত হয়!’
‘তাই তো!উপর থেকে টাকা নিচে ফেলে দাও। ’মাঝে মাঝে এভাবেই সাহায্য করে ওরা।
‘লোকটিই তো অন্ধ!টাকা নিচে ফেলে দিলেও খুঁজে পাবে কীভাবে!’
‘তাই তো। দেখ নিচে কাউকে পাও কী না।পেলে তাকে বল সে যেন অন্ধের হাতে টাকাটা তুলে দেয়।’
দশ টাকার একটা নোট নিয়ে কয়েক ভাঁজ করল কাজল।বারান্দায় এসে সজোরে ডাক দিল।
‘শোনেন ।একটু দাঁড়ান।’
অন্ধ দাঁড়াল।
‘আমি নিচে টাকা ফেলে দিচ্ছি। আপনাকে সেটা তুলে দেবে আরেকজন।বুঝেছেন?’
লোকটি মাথা নাড়ল।
একটা ছোট ছেলে হেঁটে যাচ্ছিল।
‘বাবু, এই টাকাটা উনাকে দাও তো।’
টাকা ফেলে দিল কাজল।ছোট ছেলেটি টাকাটা হাতে নিল।খুলে দেখল।
একমুহূর্ত দেখল অন্ধ লোকটিকে।
তারপর দৌঁড়ে পালাল।টাকাটা না দিয়েই।
খানিকক্ষণ পরেই অন্ধ লোকটি তার পেছন পেছন দৌঁড়াতে শুরু করল।
‘আমার টাকা দে।আমার টাকা দে।’
কাজল বিস্মিত হলো।
লোকটি কি তাহলে অন্ধ নয়!

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত