গুচ্ছকবিতা

 

সেদ্ধ শালুকের শরীর

বড্ড উজ্জ্বল সেই স্মৃতিময় সকাল

সেদ্ধ ধানের সাথে বেরিয়ে আসে কালো শালুকের শরীর

গরমভাপের মিহিন কুয়াশায় ভরে যায় গবরলেপা উঠোন

 

দুচারটে সেদ্ধ ধান দাঁতে দিতেই মোমের মতো নরম চাল–ভাত নয়

ক্রমাগত ফুৎকারে হাতের তালুতে জুড়িয়ে নেয়ার সময়টুকু যেন

দ্বাদশীর পারণকাল

 

বড্ড মায়াময় সেই দৃশ্য

কালো শরীরের ভেতর থেকে বেরিয়ে আসে সোনারঙ শালুক

যেন পাটালিগুড়ের দুধক্ষীর

একটা মোহনীয় নেশায় ভিজে যায় জিহ্বার পাটাতন ওপর-নিচ

 

ঠাকুরমার শতর্কবাণী ‘আর খাস না, আর খাস না’

গোটাপাঁচেক ইংলিশ প্যান্টের পকেটে পুড়েই ভোঁ দৌড়

সেদ্ধ ধানের সাথে সেদ্ধ শালুকের পকেট ভেদ করা উষ্ণতা

উরুর অনুভবের ইতিহাসে এখনো লেগে আছে, থাকবে অনন্তকাল

 

 

 

আঙুলে শাপের খেলা

 

পেন্সিলে উঁকি দিয়ে নেমে যায় ক্লান্ত-ধূসর হাত

 

রাবারে মুছে যায় শনাক্তকরণ রেখা

নর্তকীরা এখনও রাতের প্রেমে একা

 

আঁধারেরা আয়নায় খুঁজে ফেরে চিরুনির আয়ু

সকালে দিন শুরু হবে, এইভেবে কে যেন হয় উবু!

 

ফসিলের লজ্জা ভেঙে হেঁটে বেড়াও প্রেমিক?

ম্যাচবাক্সের কাঠিগুলো তবুও দিগ্বিদিক

 

লেট নাইট শো’র সাবটাইটেলে ভেসে ওঠে রক্তমাখালিপি

 

কোথাও যেন যাওয়ার নেই; শেষবেলায় প্রশ্রয়হীন ঘুম

 

রঙিন কাগজের ঝালরে হাসে ভাঙা মাস্তুলের মেলা

বসুন্ধরা শূন্য হলে হবে লালনীল আঙুলে শাপের খেলা

 

 

 

সিনেমার দৃশ্যে আর কিছুই করার থাকবে না

 

হৃদয়ের কাছাকাছি রিফ্লেক্টর ধরো

বাউন্স করে আলো ঢুকে যাক গহীনে; যতোটা সম্ভব

তারপর বাড়িয়ে দিও সোলারের ক্ষমতা

 

ভীষণ তাড়া মেকআপ আর্টিস্টের!

নবীন পার্শ্ব অভিনেত্রী তার সাথে নিরালায় যাবে

রোদ চশমায় ঢেকে যাবে দুজনের বুকের কষ্ট

 

ঘুমে ঢুলুঢুলু চোখে চেয়ারে চিৎ হয়ে থাক

ব্যর্থ জনমের জনপ্রিয় প্রোডিউসার

ভীষণরকম মেদক্লান্ত শরীর তার

 

গ্রিনরুমের অপেক্ষ্যমান আয়নাগুলোও ভালো নেই

ঘামে ভেজা কপালের দুশ্চিন্তায়

তবুও জ্বলছে টাংস্টেন বাল্বের পুরনো সিরিজ

 

সিরিয়াসমুডের ফোকাসপুলার হুপিংকাশি আক্রান্ত

ক্যামেরা রোলিং হলেই কেল্লাফতে

কাশির নয়েজে ভরে যাবে ফ্রেমের পর ফ্রেম

কিংবা প্যাক-আপ!

 

প্রোডাকশনবয়ের থ্রি-কোয়ার্টারের ফোল্ডিংয়েই মূল শক্তি

নাস্তা-পানি-চা-সিগারেট-বিরিয়ানি-কোল্ড ড্রিংকস

আরো যতো প্রকার হুকুম সম্ভব

 

ডিরেক্টরের সাথে আজও আমার দেখা হলো না

আমারে দিয়ে সে অভিনয় করায় রেডক্যামেরার সামনে

ওওওওওও ডিরেক্টর সাহেব!

একটা নাচের দৃশ্য দাও, সখিদের সাথে সাথে আমিও নাচি

সমবেত করতালি নিয়ে স্বর্গে যাবো, একা

 

তারপর সিনেমার দৃশ্যে আর কিছুই করার থাকবে না আমার

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত