| 5 মার্চ 2024
Categories
গল্প সাহিত্য

ফুড়ুৎ

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট

 

বিছানায় শুয়ে ছটফট করছে সজল। অন্য কোনোদিন হলে নির্ঘাত রুমার কাছে ঝাড়ি খেত এইজন্য।কিন্তু রুমা আজ গভীর ঘুমে। সন্ধ্যার দিকে ভালোই বৃষ্টি হয়েছে। এমন ঠান্ডা আবহাওয়ায় আরামসে ঘুমানোই স্বাভাবিক। কিন্তু সজলের চোখের ঘুম পলাতক। তিনদিন হলো ছেলেটা সিগারেট খেতে পারছে না। লক ডাউনের আগে বাজার সদাই কিনে স্টক করেছে বটে। কিন্তু এই নেশার বস্তুটাই স্টক করতে মনে ছিল না একদম৷ রুমা অবশ্য এতে বেজায় খুশিই। ভেবেছিল তিন বছরেও যা পারেনি তা যদি তিন সপ্তাহের ‘হোম কোয়ারেন্টিনের’ কল্যাণে সম্ভব হয়। কিন্তু সজল এর মন যে আর মানছে না। দুই দিন অনেক কষ্টে নিজেকে সামাল দিয়েছে। আজ তৃতীয় দিনে এসে মন, মস্তিষ্কের কাছে হার মেনেছে বউয়ের ভয়।কিন্তু এত রাতে ধূম্রশলাকা সে পাবে কোথায়? দিনে যদিও পাড়ার মোড়ে একটা মাত্র মুদির দোকান কয়েক ঘন্টার জন্য খোলা থাকে। কিন্তু করোনাকালে বউয়ের চোখ ফাঁকি দিয়ে বাইরে যাওয়া! অসম্ভব।

 

সজল স্ত্রীর ঘুমের গভীরতা বোঝার জন্য তার গায়ে আলতো করে হাত বুলায়। আস্তে করে একটু ধাক্কাও দেয়। রুমার ঘুমের এতে ব্যাঘাত ঘটে না মোটেও বরং চাদরটা আরো একটু টেনে নিয়ে পাশ ফিরে শোয়। সজলের মাথায় হুট করেই একটা বুদ্ধি খেলে যায়। ৬২ নম্বর বাসার এই ভুড়িওয়ালা লোকটা তো স্মোকার। রোজ বারান্দায় এসে সিগারেট খায় আর ভুরভুর করে ধোঁয়া ছাড়ে। সজল পর্দা সরায়। সেই ভদ্রলোকের ফ্ল্যাটের একটা ঘুলঘুলি দিয়ে আলো দেখা যাচ্ছে। ইয়েস! আর কিছু না ভেবেই সজল ফুড়ুৎ।

 

একটু পর… ‘এই জানালাটা বন্ধ করো না। ঠান্ডা লাগছে তো’, রুমা বলে। কোনো সাড়া শব্দ না পেয়ে একটু পর পাশ ফেরে। দেখে সজল বিছানায় নেই। তবে ওয়াশরুমের বাতি জ্বলছে। বর ওয়াশরুমে গেছে ভেবে নিজেই জানালা বন্ধ করে দিয়ে রুমা আবার ঘুমিয়ে পড়ে। মিনিট দশেক পর সজল বাড়ি ফিরে আসে। কিন্তু হায়! জানালা যে বন্ধ। পুরো ফ্ল্যাটে বেডরুমের জানালাটাই শুধু খোলা রেখেছিল। ঠান্ডা হাওয়ায় একটু আরামে ঘুমাবে বলে। কিন্তু এখন কী হবে? রুমাকে সজল কী জবাব দেবে? কীভাবে বলবে সে জানালা দিয়ে উড়ে সামনের বাড়িতে সিগারেট চুরি করতে গিয়েছিল। মানুষ হয়ে রুমা কি এই পাখিমানব স্বামীকে মেনে নেবে? আতঙ্কে সজল কার্নিশে বসে ঠান্ডার মধ্যেও দরদর করে ঘামতে থাকে। হ্যাঁ, টেনশনে পাখিরাও ঘামায়!

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত