| 27 ফেব্রুয়ারি 2024
Categories
গীতরঙ্গ

গীতরঙ্গ: তিলোত্তমা ঢাকা সংখ্যার সম্পাদকীয়

আনুমানিক পঠনকাল: < 1 মিনিট
কলহন রচিত ‘রাজতরঙ্গিনী’তে ‘ঢাক্কা’ শব্দের উল্লেখ আছে। ঢাক্কা অর্থ নৌ আক্রমণ প্রতিরোধের দুর্গ বা পাহারা-চৌকি। বাংলার প্রাচীন রাজধানী বিক্রমপুর ও সোনারগাঁও-এর তুলনায় ঢাকা উচ্চভূমি ছিল এবং তা পাহারা-চৌকি হিসেবে ব্যবহৃত হতো। ১৫৫০ সালে জোয়াও ডি ব্যারোজ (Joao De Barros)-এর মানচিত্রে ঢাকার অবস্থান স্পষ্ট নির্দেশিত হয়েছে। আইন-ই-আকবরীতে ঢাকার উল্লেখ পাওয়া যায় ‘ঢাকা বাজু’ হিসাবে। আকবরনামায় ‘ঢাকা বাজু’কে ‘সরকার বাজুহা’র অধীন একটি পরগনারূপে দেখানো হয়েছে। ‘আইন-ই-আকবরী’ রচনাকালে বাংলা ১৯টি সরকারে বিভক্ত ছিল। একেকটি সরকার কয়েকটি মহাল বা পরগনায় বিভক্ত ছিল। ‘আইন-ই-আকবরীতে’ সরকার বাজুহা ও সরকার সোনারগাঁও-এর পরিচয় জানা যায়। ‘আইন-ই-আকবরী’ রচিত হওয়ার পর এক’শ বছরের বেশী সময় এই সরকারগুলো প্রশাসনিক একক হিসেবে বিদ্যমান ছিল।

বাংলাদেশের সমৃদ্ধ শহর গুলোর মধ্যে ঢাকা ঐতিহাসিক ভাবেই বেশ বিখ্যাত। সেই মুঘল আমল থেকেই এটি নানাবিধ কারণে গুরুত্বপূর্ণ স্থান হিসেবে গণ্য করা হয়েছে। আজও এই শহর রাজধানীর শিরোপা গায়ে হাজার বছরের ইতিহাস ঐতিহ্যের বাস্তব সাক্ষী হয়ে শির উঁচু করে দাঁড়িয়ে আছে।

ইরাবতীর সাপ্তাহিক গীতরঙ্গ আজ সেজে উঠেছে সেই “তিলোত্তমা ঢাকা” নিয়ে।

ঢাকার ইতিহাস, নানা স্থানের নামকরণের ইতিবৃত্ত, গল্পকথা যেমন উঠে এসেছে, তেমনি ঐতিহ্য, স্থাপত্য ও সাহিত্যসহ নানাবিধ লেখনীতে সেজে উঠেছে আজকের সংখ্যা। পাঠকের ভালো লাগলেই আমাদের এই প্রয়াস সার্থক হবে।

অলকানন্দা রায়

১৫ আগষ্ট,২০২১

  

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত