| 4 মার্চ 2024
Categories
খবরিয়া

কর্মী-ক্ষোভ মেনেও ট্রাম্পের পোস্টে হাত দিতে নারাজ জুকেরবার্গ

আনুমানিক পঠনকাল: < 1 মিনিট

কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডের হত্যা এবং তাঁর জেরে দেশে তীব্র বিক্ষোভ-প্রতিবাদ নিয়ে বিতর্কিত টুইট করেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump)। টুইটার থেকে সেই পোস্ট সরিয়ে দেওয়া হলেও একই পথে হাঁটেনি মার্ক জুকেরবার্গের (Mark Zuckerberg) ফেসবুক। আর এই সিদ্ধান্তের জন্য সংস্থার CEO জুকেরবার্গের নিন্দায় সরব হয়েছেন ফেসবুক কর্মীরাই। তবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পোস্ট সরাতে যে তিনি রাজি নন, তা ফের একবার স্পষ্ট করে দিয়েছেন মার্ক জুকেরবার্গ। বিতর্কের মধ্যেই মঙ্গলবার সংস্থার কর্মীদের উদ্দেশে এক বার্তায় একথা জানিয়েছেন ফেসবুক (Facebook) কর্তা।

ফেসবুকের মুখপাত্র জানিয়েছেন, এক ভিডিয়ো বার্তার কর্মীদের উদ্দেশে জুকেরবার্গ বলেছেন, ‘প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের পোস্ট পর্যালোচনা করা হচ্ছে।’ তবে এখনই এই নিয়ে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হবে না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন জুকেরবার্গ।

কৃষ্ণাঙ্গ যুবক জর্জ ফ্লয়েডের (George Floyd) খুনের ঘটনায় অধুনা উত্তপ্ত মার্কিন মুলুক (USA Riot)। প্রতিদিনই নতুন নতুন শহরে ছড়িয়ে পড়ছে বিক্ষোভ। মিনিয়াপোলিস, নিউ ইয়র্ক, শিকাগো, আটলান্টা, মায়ামি, পোর্টল্যান্ড, সান ফ্রান্সিস্কোর মতো প্রায় ১৩টি শহরে জারি হয়েছে কার্ফু।

এদিকে, ফ্লয়েডের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করলেও এই বিক্ষোভ মেনে নিতে পারছেন না প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প (President Trump)। পালটা হুমকি দিয়ে টুইট করেছিলেন তিনি। যা ক্রস-পোস্ট পদ্ধতিতে মাধ্যমে পোটাস (POTUS)-এর ফেসবুক পেজেও পোস্ট হয়। বিতর্কিত টুইট সরিয়ে দিতে টুইটার (Twitter) দেরি করেনি। তবে ফেসবুকের তরফে মার্কিন প্রেসিডেন্টের পোস্টে হাত দেওয়া হয়নি। আর এর জেরেই ফেসবুক (Facebook) কর্তা মার্ক জুকেরবার্গকে (Mark Zuckerberg) নিশানা করেন তাঁরই সংস্থার কর্মীরা। টুইটারে একের পর এক জুকেরবার্গ-বিরোধী পোস্ট করেন ফেসবুক কর্মীরা।

প্রসঙ্গত, Fox নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে জুকেরবার্গ সম্প্রতি জানিয়েছিলেন, রাজনীতিবিদদের পোস্টে কোনও সত্য-তথ্য (Fact Check) অনুসন্ধান করবে না ফেসবুক।

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত