| 23 ফেব্রুয়ারি 2024
Categories
কবিতা সাহিত্য

মিথের মিতালী ফুল

আনুমানিক পঠনকাল: < 1 মিনিট
আমার ঘুমটা ছাড়া ছাড়া প্রকৃতির, এদিকে রেশম ওড়ে-যেনো এক জংলা হেঁটে, বহুদূর রোদ চলে গেছে; ময়ূরের পায়ের দাগে, মহিষের ছায়া জুড়ে শিং; এলোমেলো, এদিক সেদিক।
সাঁওতাল রমণীরা হাসে, প্যানিক রঙের ঠোঁট; এরপর মিথের মিতালী ফুল, খুলি-হাড় কাঁপানো হাসি, হাওয়া জুড়ে অট্টহাসি;
কত ধুলি পার হয়ে আসে, নিটোল গোধূলি ভেসে; সেখানে আমরা ছিলাম, কোনোদিন অচেনা সমাজ-
জরি পাথরের মত চোখ মেলে চায়, হীরণ্য পাখিরা ঝেঁপে, কোনোদিন বাণিজ্য তরণী থামে; কোনো রাতে আকাশ উঁচানো রব, কৃষকের মশাল মিছিল; সেখানে আমরা ছিলাম, মাটি আর জলের জীবন মেলে;
পৃথিবীকে শূন্য দেখায়, যেনো আজ পরজন্ম; যেনো বুকে শ্যাওলার দাগ, ফেলে গেছে প্রাচীন প্রলয়!
অতদূর মেঘ দেখা যায়? অথবা খেয়ায় সরবে, দাঁড় বায় স্বরবর্ণ?
 
এখনো দ্বিধার কাছে, নতজানু বিক্রমস্বর; এখনো আধবোজা মন, রোদ মেলে বসে আছে ঘর!
 
বেদনাকে ডেকে গেলো কেউ
বুক ফুঁড়ে, নীল অংকুর;
শান দেয় ক্ষতের কিনারে স্মৃতি
ক্ষয়ক্ষতি উথলে উঠুক, বুকে!
থেমে আছে সময়ক্ষেপণ, প্রেমে;
তির ছুঁড়ে চেয়ে আছে, যুদ্ধের বর্ম-
হিংসা ও কাঁটায় জড়িয়ে লাল
আধশোয়া ঘুমের ভঙিমা আমার!
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত