| 23 ফেব্রুয়ারি 2024
Categories
অনুবাদ অনুবাদিত কবিতা

অনুবাদ কবিতা: দেহ ঘর । রুপি কৌর । অনুবাদক: সায়মা মনি

আনুমানিক পঠনকাল: 5 মিনিট

কবি পরিচিতি
রুপি কৌর একজন কবি, শিল্পী।একুশ বছর বয়সে যখন তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী তখন একাধারে লিখেছেন, ছবি এঁকেছেন।”মিল্ক এ্যান্ড হানি” নামের নিজের বই নিজে প্রকাশ করেছেন।এর পর “দ্যা সান এ্যান্ড হার ফ্লাওয়ারস” প্রকাশিত হয় এবং এই বই দুটি আট মিলিয়নের বেশি কপি বিক্রি হয় আর চল্লিশটির বেশি ভাষায় অনুদিত হয়।”হোম বডি” যার বাংলা নামকরণ করেছি “দেহঘর” এটি তার তৃতীয় বই।রুপির কাজে ভালোবাসা, প্রেম, ক্ষতি, হারানোর অনুভুতি, আতঙ্ক, নারীবাদ, অভিবাসীদের যন্ত্রনা এই সব বিষয়গুলো বেশি ছুঁয়ে যায়।তিনি মঞ্চে তার কবিতা পাঠ করেন যা এক অনবদ্য উপস্থাপনার রূপ নেয়। উল্লেখ্য যে তার প্রথম বই “মিল্ক এন্ড হানি” আড়াই মিলিয়নের বেশি কপি বিক্রি হয়েছে এবং পঁচিশটির বেশি ভাষায় অনুদিত হয়েছে।নিউইয়র্ক টাইমসে সাতাত্তর সপ্তাহ ধরে সাপ্তাহিক বেস্ট সেলার হিসেবে ছিল।তার তৃতীয় বই “হোমবডি” তথা “দেহঘর“২০২০ সালের নভেম্বরে প্রকাশিত হয়।
রুপি কৌর ভারতের পাঞ্জাবে জন্মগ্রহণ করেন এবং খুব অল্প বয়সেই তার পরিবারের সাথে কানাডায় স্থায়ীভাবে বসবাস করতে শুরু করেন।তিনি প্রথম তার কবিতা পাঠ করেন মঞ্চে ২০০৯ সালে এবং তারপর ইন্সটাগ্রামে ব্যাপক খ্যাতি লাভ করেন।অতঃপর উপরে উল্লেখিত তিনটি কাব্য সমগ্র দিয়ে জনপ্রিয়তার তুঙ্গে প্রবেশ করেন।কৌরের কবিতায় সহজ শব্দের ব্যবহার সহজবোধ্যতা খুব সহজে মন কাড়ে।তার শৈশব আর তার ব্যক্তিগত জীবন তার কবিতার অনুপ্রেরণার উৎস। কবিতার সাথে তার নিজ হাতে আঁকা স্কেচ কবিতাকে বুঝতে সাহায্য করে।কবিতার সহজ সরল ভাষার আড়ালে গভীর দর্শন ও জীবনবোধে আমরা সহজেই আমাদের জীবনের প্রতিচ্ছবি খুঁজে পাই।


 

অধ্যায় ২
হৃদয়

৫১
মাঝে মাঝে
আমি তোমাকে ভালোবাসি বোঝায়
আমি তোমাকে ভালোবাসতে চাই
মাঝে মাঝে
আমি তোমাকে ভালোবাসি বোঝায়
আমি আরো কিছুক্ষণ থাকবো
মাঝে মাঝে
আমি তোমাকে ভালোবাসি বোঝায়
আমি জানিনা কি করে ছেড়ে যেতে হয়
মাঝে মাঝে
আমি তোমাকে ভালোবাসি বোঝায়
আমার আর কোথাও যাওয়ার জায়গা নেই

৫২
আমি জটিলতায় ভুগি আলাদা করতে
অপমান জনক সম্পর্ককে
স্বাস্থ্যকর একটি সম্পর্ক থেকে
আমি পার্থক্য করতে পারিনা
ভালোবাসা আর সহিংসতার মধ্যে

—— এ সবই এক রকম দেখতে

৫৩
আমি চেষ্টা করছিলাম তাকে একজন অন্যতম বানাতে
আর এটা বুঝতে আমার তিন বছর সময় লেগেছে
ভালোবাসা এভাবে হয় না

৫৪
ওর মতো পুরুষ লোকেরা খুব দক্ষ হয়
আমার মতো মেয়েদের গন্ধ খুঁজে বের করতে
একজন অদৃশ্য মানবকে
যারা মনে করে যে তারা নিশ্চয়ই কুৎসিত
কারন তাদের বাবারা তাদের ভালোবাসতোনা
সে আমার নাম বলে
আর আমি কখনো আমার নাম শুনতে পাইনি
একজন পুরুষের ঠোঁটের ডগায় নৃত্যরতা
একটুখানি মনোযোগ দেয় এমন ভাবে
এমন কাউকে যে কখনো তা পায়নি
আর তারা পিছলে যাচ্ছে আর পড়ে যাচ্ছে
সমস্ত জায়গা জুড়ে
আনন্দ ধরে রাখতে অক্ষম
কারো কাঙ্খিত হয়ে
আবিষ্কৃত হয়ে মুক্তির পথ খুঁজে পেতে
সে আমাকে ভাবনায় সাজিয়েছিল
আমি তাকে ছেড়ে বাঁচতে পারতাম না
এভাবেই তার মতো পুরুষেরা
আমার মতো মেয়েদের জন্য ফাঁদ পাতে

———শিকারী

৫৫
কেন আমি ছেড়ে যাইনি তা জানতে চেওনা
সে আমার পৃথিবীটাকে এত ছোট করে দিয়েছিল
আমি বের হওয়ার পথ খুঁজে পাইনি

——-আমি অবাক যে আমি একেবারে বের হয়ে গেলাম

৫৬
যদি কারো হৃদয় না থাকে
তুমি তাদের কাছাকাছি যেতে পারোনা
তোমারটা দেয়ার কথা বলতে

৫৭
প্রত্যেকবার আমি তোমাকে এক টুকরো স্বর্গ দেখাই
এটা ছিল একটি হুমকি
প্রতিটা হাঁটা পথ আমরা নিতাম
আমার জীবনের বাগানের ভেতর দিয়ে
তোমার জন্য যেসব ফুল ফুটত
ময়ুর যেগুলো তোমার নামে গান গাইত
একটি চিহ্ন ছিল
যদিও
আমার সকল জাদু দেখার পর
তুমি তোমার মাথায় আঘাত কর আর জ্ঞান হারিয়ে ফেল
চলে যাও আর নিজেকে ছড়িয়ে দাও এই শহরে
ভাবতে থাক যদি তুমি আমার স্বাদ নেয়ার মত ভাগ্যবান হতে
তুমি তোমার হাত আরো ভালো কিছুর ওপর রাখতে পারতে
তুলনা করলে সব কিছুই নীরস মনে হয়
এখন তুমি ফিরে এসেছ
শরীর ছড়িয়ে পড়ে আছে আমার মেঝেতে
আমার কাছে প্রার্থনা করছে
তোমাকে পিষে ফেলতে আমার উরু দিয়ে
তোমাকে টেনে তুলি আমার নিতম্ব মাঝে
তোমাকে পার করে দেই স্বর্গে আমার যোনিপথে
তোমার জীবনের মহত্তম যাত্রায় তোমাকে পেয়েছি আমি
আমি তোমাকে কল্পনায় বিভোর হতে দেখেছি
প্রতিবার আমি তোমাকে এক টুকরো স্বর্গ দেখিয়েছি
আমার জীবনের বাগানের ভেতর দিয়ে আমরা যেসব হাঁটা পথ নিতাম
সব ফুল তোমার জন্য ফুটত
ময়ুর তোমার নামে গান গাইত
একটি সংকেত ছিল যে এসবই তুমি হারাবে
যদি তুমি প্রতারনা কর আমার সাথে

—— পরিনতি

৫৮
যদি তুমি তাদের জন্য অপেক্ষা করতে থাক
যথেষ্ট হয়েছে মনে করাতে নিজেকে নিজের কাছে
তুমি একটা দীর্ঘ সময় অপেক্ষা করতে থাকবে

৫৯
আমি ছেড়ে যাচ্ছি
কারন আমি এখানে সুখী নই
জীবনের পরিনতিতে পোঁছাতে চাইনা আমি
এখনো সন্দেহ আছে
যার সাথে থেকেছি আমি
আমার বিশ বছর বয়স থেকে


আরো পড়ুন: দেহ ঘর (প্রথম অধ্যায়) । রুপি কৌর । অনুবাদক: সায়মা মনি


৬০
কেন সবকিছু
কম আকর্ষনীয় হয়ে ওঠে
এক সময় যা আমাদের ছিল

৬১
একটি স্বাস্থ্যকর সম্পর্কে প্রবেশ করতে হল
বুঝে উঠতে যে আমার ভয় পাওয়া উচিত নয়
সেই মানুষটিকে যাকে আমি ভালোবাসি

৬২
আমি কাঁদতাম
কারন আমি সন্ধান পাচ্ছিলাম না
আমাকে ভালোবাসে এমন একজন ভালো মানুষের
এখন আমার একজন আছে আর
সে যথেষ্ট নয়
অন্যরা সবসময়েই
দরজার আধেক বাইরে ছিল

——-যা তাদেরকে মোহনীয় করে তুলেছে

৬৩
আমি কেন এমন কাউক আঘাত করি
যে আমাকে ওপরে টেনে তোলে আর
যে আমাকে ভেঙে ফেলে তার পূজা করি

৬৪
একজন মানুষের সাথে কি করতে হয় আমি জানিনা
যে আমাকে ধরে রাখতে চায়
আমাদের বাকি জীবন ধরে

৬৫
আমার ভয় হয় এমন কাউকে আমি খুঁজে পাবোনা যে আমাকে দেখে
আর দৌঁড়ে এসে আমার ভেতরে শ্বাস নেয়
আমার ভয হয় যে আমার নিজেকে খুব মরিয়া মনে হয়
আমার ভয হয় যে আমি প্রতারিত হব
বেশি বুদ্ধিদীপ্ত নারী দ্বারা
আরো আকর্ষনীয়া
সব দিক দিয়ে আমার চেয়ে বেশি
আতঙ্কের এ বিষয়টি নিশ্চিত ঘটবে যা আমি ইতিমধ্যে জেনে গেছি
যে আমি কারো জন্য যথোপযুক্ত নই যে সে থেকে যাবে
কোথায সেই জলন্ত কাঠি যা আমার গায়ে আগুন ধরিয়ে দেবে
না হয় ইতিমধ্যে আমি একজনের সাথে হেঁটেছি
একটি রাস্তার কোনায়
না হয় আমি তাদের সাথে ছিলাম
আর তা নষ্ট করেছি
কে আমাকে যথেষ্ট ভালোবাসবে
তাদের শক্তি খরচ করবে অন্তরঙ্গ হতে
এমন কারো সাথে যে এত অনুপযুক্ত
কি হয় যদি আমি একজনকে চাই
যে আমাকে স্পর্শ করে আর চলে যায়
আর একজন যে ছেড়ে চলে যায় না
যে আমাকে স্পর্শ করে আমি সহ্য করতে পারিনা
সব সময় কি এমন খারাপ সময় হবে
আমি কি কখনো নিশ্চিত হতে পারবো
আমি কি স্থির হতে পারবো
আমি কি আমার মতো হয়ে উঠতে পারবো জীবনের বাকিটা সময়

 

৬৬
তোমার সঙ্গী এমন হওয়ার কথা
যে তোমার জীবন সমৃদ্ধ করবে
এটি ক্ষয় করবে না
থেকে যাওয়া যখন আঘাত করে তখন তা ভালোবাসা নয়

৬৭
আমিও আমার জীবনের সাথে ভালোবাসায় আছি
উপচে পড়ে আছি পুরো মেঝের ওপর
পরবর্তী মানুষটির জন্য
যে আমাকে প্রজাপতি দেয়
যখন আমি আয়নার দিকে তাকাতে পারি
আর আমার শ্বাস ফিরিয়ে নিই

৬৮
পরিবারের ভালোবাসা
বন্ধু বান্ধব আর সমাজ
ঠিক ততোটা প্রবল
যতোটা ভালোবাসা
প্রনয়ের সম্পর্কে

৬৯
কোন কিছুই একে প্রতিস্থাপন করতে পারেনা
যেবাবে নারী আমার জীবনে
আমাকে অনুভব করায়

৭০
এটা অসম্ভব
একজন মানুষের জন্য
তোমাকে পরিপুর্ণ করা
সব দিক দিয়ে
তোমার পুর্ণ হওয়া প্রয়োজন
তোমার সঙ্গী
তোমার সবকিছু হতে পারেনা

৭১
আমি প্রনয় ভালোবাসা ছাড়া বাঁচতে পারি
কিন্তু আমি টিকে থাকতে পারিনা
সেই সব নারীদের ছাড়া যাদের আমি বন্ধু বলি
তারা জানে ঠিক কি প্রয়োজন আমার
এমনকি আমার কি প্রয়োজন আমার জানার আগে
যেভাবে আমরা জায়গাটা ধরে রাখি
একে অন্যের জন্য তা সম্পুর্ন আলাদা

 

৭২
একজন পুরুষ আমাকে কিছুই দিতে পারেনা
আমি আমাকে দিতে পারিনা

—– আমি যদি তরুনী আমাকে বলতে পারতাম

৭৩
স্বমেহন
হলো ধ্যান

৭৪
যে পৃথিবী মনে করেনা
আমার শরীর আমার
নিজেকে সুখী করা একটি কাজ
আত্মসংরক্ষণের
যখন আমি বিচ্ছিন্ন বোধ করছি
আমি আমার কেন্দ্রের সাথে যুক্ত হই
পরশে পরশে
আমি নিজেই ফিরে আসি নিজের কাছে
কামের চুড়ান্ত উত্তেজনায়

৭৫
আমি অভিনয করবোনা
আমার চেয়ে কম বুদ্ধিমতির
যাতে একজন পুরুষ অনুভব করে
একটু বেশি স্বস্তি আমার পাশে
যে আমার যোগ্য
সে আমার মহত্ত্ব দেখবে আর
একে আরো উঁচুতে তুলে ধরতে চাইবে

৭৬
আমি চাই তুমি মুছে ফেলো
ভালোবাসা সম্পর্কে তুমি যা জানো
আর শুরু কর একটি শব্দ দিয়ে
দয়া
তাদেরকে এটা দাও
তাদের এটা দিতে দাও তোমাকে
দুইটা স্তম্ভ হও
তোমার ভালোবাসার সমান
আর তুমি তোমার পেছনে একটি সাম্রাজ্য বহন করবে

 

৭৭
আমি আমার পবিত্র পা ভাঁজ করি
তার ভারি মাথার চারপাশে
আর তার জিহবা সাঁতার কাটুক
পরিত্রানের দিকে

—– ব্যাপ্টাইজ

৭৮
আমি এমন একজনকে চাই যে
আমার প্রতিভা দ্বারা অনুপ্রানিত হয়
এর দ্বারা আতঙ্কিত হয না

৭৯
আমার চোখের দিকে তাকাও
যখন তুমি সেখানে অবনত
তোমার জীবনের আহারের জন্য

—–আমার সাথে তুমি যা কর আমি চাই তুমি তা দেখ

৮০
আমি সতর্ক
কার ওপর আমি আমার শক্তি খরচ করি

—–আমি আমার মুল্য জানি

৮১
আমার শরীর এত উত্তপ্ত তোমার প্রতি কামে
আমরা যখন কাপড় খুলি আমি তখন চলকে পড়তে থাকি
আমি এমন ভালোবাসা চাই যা
আমাকে নিয়ে যায়
অন্য জগতে
আমি তোমাকে এত গভীর ভাবে চাই
আমরা আত্মিক জগতে প্রবেশ করি
কোমলতা থেকে উগ্রতার দিকে যাও
আমি চোখে চোখ রাখতে চাই
আমার পা গুলো ছড়িয়ে দিই
ঘরের বিপরীত প্রান্তের দিকে
আর তোমার আঙ্গুল দিয়ে দেখ
আমি আমার আত্মায় পরশ চাই
তোমার ডগা দিয়ে
আমি আসতে চাই
এই ঘরের বাইরে
ভিন্ন মানুষ হয়ে

——তুমি কি সেটা পারবে

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত