| 17 এপ্রিল 2024
Categories
এই দিনে কবিতা সাহিত্য

আলফ্রেড খোকনের কবিতা

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট

আজ ২৭ জানুয়ারী কবি আলফ্রেড খোকনের শুভ জন্মতিথি। ইরাবতী পরিবার তাঁকে জানায় শুভেচ্ছা ও নিরন্তর শুভকামনা।


 

মাধুরীর সঙ্গে বিকেল অব্দি বসে থাকার পর[br]

১.[br] আচ্ছা আমার যে মাঝে মাঝে এত জ্বর হয়[br]
কম্যুনিটি হাসপাতালের ডাক্তারগণ বলে[br]
ঘন ঘন জ্বর হওয়া ভালো নয়;[br]
তোমারও কি তাই মনে হয়?[br]
অধিক বৃষ্টি আকাশকে[br]
মেঘমুক্ত করে[br]
অধিক জ্বরও তো দেহকে ভারমুক্ত করতে পারে[br]
জ্বর হলেও ওরা তো শুক্রবারের জন্য[br]
কবিতা চায়[br]
ডাক্তার বলছেন জ্বর মানে তিনবেলা প্যারাসিট্যামল[br]
বিছানায় রেস্ট,[br]
শরীরের ভিতর থেকে জ্বর তিন দিনে না গেলে[br]
এন্টিবায়টিক—তারপর ব্লাড টেস্ট;[br]
যদি কিছু ধরা পড়ে চিকিৎসা সেই মতো[br]
ওহে ডাক্তার, ধরতে চেয়েছি যাকে[br]
রক্তের ভিতরে সে এখনো নৃত্যরত।[br]

[br]

[br]

[br]

২.[br]
চলো সমুদ্রের কিনারে যেয়ে শুই[br]
চলো জলের গভীরে যেয়ে[br]
তুমি কাতলা আমি রুই;[br]
সমুদ্র সংক্রান্ত একটা অবুঝ ঢেউ ধরি[br]
তুমি আমার পিঠের ওপর ওঠো[br]
দুজনেই ডুবে মরি।[br]

[br]

[br]

[br]

৩.[br]
চক্ষু নিয়ে আমি সেই ছোটবেলা থেকে লড়ছি[br]
এই কারণে নানারকম চশমার সঙ্গে আমার সম্পর্ক[br]
নানারকম চোখের জল গড়িয়ে আমার[br]
গোধূলি পর্যন্ত বিস্তৃত[br]
বিদেশের ডাক্তার একবার আমাকে বললেন[br]
বাংলাদেশের প্রেসক্রিপশন ঠিকই আছে[br]
আপনি শুধু বাগানের ফুল[br]
এড়িয়ে চলবেন।[br]
আপনি শুধু ঘরের ভিতর ঝুল[br]
থেকে দূরে থাকবেন।[br]
তারপর থেকে চোখের ডাক্তার দেখলেই[br]
আমার বিদেশি বিদেশি মনে হয়[br]
তারপর থেকে নিজের চশমাটাকেও বিদেশি লাগে[br]
একবার চশমা পরি আরেকবার লেন্স মুছতে যেয়ে[br]
চোখ মুছে ফেলি, জানি না কার অনুরাগে?[br]

[br]

[br]

[br]

৪.[br]
আজ যে ইশারা তুমি আমাকে দিলে[br]
এরকম ইশারা পেতে[br]
অনেকের ষাট বছর পূর্তি হয়ে গেছে, তবুও[br]
একুশ বছর পর তোমার সঙ্গে দেখা হলো রমনায়[br]
একটি পাতার আড়ালে তুমি অমন করে ফুটেছিলে[br]
মুহূর্তগুলো জীবনের চেয়ে কোনোমতে কম নয়;[br]

একটি চাহনি যেমন শতাব্দী ধরে লেখা[br]
সন্ধ্যার ব্রিজের ওপর দাঁড়ালেই বুঝবে[br]
পরস্পর সম্পর্কে থেকেও[br]
প্রতীক্ষাদি, তোমার চুম্বন কত একা।[br]

[br]

[br]

[br]

৫.[br]
যেভাবে তোমাকে তুমি ভুলে যাচ্ছো[br]
আর যেভাবে একটি সন্ধ্যা আসে[br]
চলে যায় প্রতিদিনকার মতো[br]
ভিড়ের ভিতর আমাকে দেখেই যেভাবে[br]
তুমি বিস্মৃতির নির্জন পথ, থতমতো[br]
মুছে ফেলো নিজস্ব চুম্বনের লালা;[br]
এই কবিতার প্রসঙ্গ এবং কবিতাও তো[br]
একদিন মুছে যাবে[br]
যেমন মুছে যাচ্ছে গ্রাম্যপথের নির্জনতা[br]
কাদামাখা জল, চুম্বনের দাগ সম্ভবত[br]
মুছে যাবে এইমাত্র তোমার আমার[br]
শরীরের ঘাম লেপ্টালেপ্টি,[br]
সীমান্তের কাঁটাতার;[br]

মুছে যাওয়াদের আগে[br]
আরো একবার আমার ভিতরে আসো[br]
মুখোমুখি বসো,[br]
হতে পারে তোমার ঘরেও[br]
মুছে যাওয়া সন্ধ্যার অনুরাগে;[br]
কিভাবে একটা দিন সর্মপিত হতেছে দেখো[br]
মুছে যাবে তবু বলে ‘মনে রেখো’।[br]

 

[br]

[br]

[br]

যমুনা সংশয়[br]

অনেকের কাছে যমুনা একটা নদী[br]
গোপনে সে এক ঢেউ[br]
আমি যদি না বলি[br]
তবে পৃথিবীর লোক জানবে না[br]

যমুনা আমার কেউ[br]
যে ভেসে গেছে তার টানে[br]
সে-ই সম্ভবত জানে[br]
আমার পক্ষে এখনো জানা সম্ভব নয়[br]
একজন তরুণ কবির কাছে বলেছিলাম[br]

যমুনার সংশয়[br]
তার জলে মুখ ধুয়েছি[br]
কাপড় খুলেছি অন্তত দুবার[br]
ভেসেছিলাম, ভাসিয়েছিলাম ডুবে[br]
কারো কাছে মুখ খুলে বলিনি[br]
আমি তার[br]
যমুনা আমার এক বান্ধবীর নাম[br]
তাকে আমি বলি ঢেউ[br]
যমুনার তীরে বসে যে হাত ধরেছিল[br]

সে অন্য কেউ![br]

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত