| 23 এপ্রিল 2024
Categories
গদ্য সাহিত্য

পাণ্ডব বর্জিত

আনুমানিক পঠনকাল: < 1 মিনিট

একটা গোটা দরজার ঐ পারে স্নানগুম্ফা। গিলগামেশ চাবি আর নেই। জোয়ান বল্গা ধরে আছি, কিন্তুমনে কোরো সে পিঠ আমার। জ্যা খুলে আমার সুতোর মতো শরীর,তার এবড়ো খেবড়ো প্রতিসরিত আলো চিকচিক করছে বালির মতো। তোমার জুতোর অভ্যন্তর দুর্গে জিভের সঙ্গে কতদিন থেমে আছি,জানো। মনোযোগ পাবো বলে মিথ্যেমিথ্যি সঙ্কল্প জানোয়ারের মতো হাতলে আমার সম্মান পুঁতে সব ফেলে এসেছি।

এখন কথা বারণ। বৃত্তটি বুজে যাচ্ছে নীরবতার যামে। প্রহরে প্রহরে তোমাকে ছুঁতে চাই। আখরে মিলিয়ে যায় কলিযুগ, জালন্ধর, হাজারিবাগ। পাহাড় আর জঙ্গলের মতো তোমাকে অন্য এক মাংসের পেলব মজ্জা থেকে শুভচুন্নিব্রতে ফিরে পাই। ঠোঁটের আগাছা সরিয়ে শ্বাস নিই , মনে হয় পৃথিবীতে আমারই হিংসার মতো লালনের ঘ্রাণে তুমি জাগো। বালিশে তোমার বাহু, বালিশে তোমার কান্নামেহ , শর্করা দিন।

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত