| 15 এপ্রিল 2024
Categories
খবরিয়া চলচ্চিত্র বিনোদন

করোনায় অনিশ্চিত ঈদে সিনেমা মুক্তি

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট

ঈদ এ দেশে সবচেয়ে বড় ধর্মীয় উৎসব। এ উৎসবে সিনেমা মুক্তির রেওয়াজ অনেকদিনের। ঈদের অবসরে সবাই দলবেঁধে সিনেমা হলে যান বিনোদনের আশায়।

মহামারী করোনার প্রকোপে এবার সারা বিশ্বেই আনন্দহীন ঈদ আসতে চলেছে। ধারণা করা হচ্ছে এবার সিনেমা হলে সিনেমা দেখার উৎসব জমবে না।

করোনা আতঙ্কে গত ১৮ মার্চ থেকে দেশের সব সিনেমা হল বন্ধ রয়েছে। সে সময় থেকে মুক্তি পাচ্ছে না সিনেমা। বৈশাখের উৎসবেও মুক্তি পায়নি কোনো সিনেমা। যার ফলে বেশ বড় আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়ছে সিনেমা শিল্প। এবার সিনেমাপাড়ায় খোঁজ নিয়ে জানা গেল, ঈদেও অনিশ্চিত সিনেমা মুক্তি। ঈদের আগে করোনাভাইরাস বিদায় নেবে কী না তার উপর নির্ভর করছে সিনেমা হল খোলা ও সিনেমার মুক্তি।

বছরের শুরুতেই জানা গিয়েছিলো ঈদে মুক্তির তালিকায় আছে বেশ কিছু সিনেমা। সেগুলো হলো শান, অপারেশন সুন্দরবন, পরাণ, দ্বিন দ্য ডে, মিশন এক্সট্রিম, মেকাপ। এই ছবিগুলোর একটিও মুক্তি পাচ্ছে না এবারের ঈদে।

সেইসঙ্গে বিশ্বসুন্দরী, ঊনপঞ্চাশ বাতাস, জ্বীন, শ্বশুরবাড়ি জিন্দাবাদ-২, বান্ধব, নীল মুকুট, গোর, বিদ্রোহী, মন দেব মন নেব, আমার মা, ইত্তেফাক, আনন্দ অশ্রু, নদীর বুকে চাঁদ, সাইকো, গাঙচিল, শনিবার বিকেল, ওস্তাদ, ক্যাসিনো, পাপ-পুণ্য, আগামীকাল, আদম, সিক্রেন্ট এজেন্ট, ডেঞ্জারম্যান, স্বপ্নবাজী, ঢাকা ২০৪০, বিক্ষোভ, মানুষের বাগান, পেয়ারার সুবাস, কমান্ডোসহ বেশকিছু সিনেমাও তৈরি রয়েছে। এসব ছবিও হল না খোলায় অনিশ্চিত ভবিষ্যতের মুখে পড়েছে।

এদিকে ঈদের জন্য ঘোষিত শাকিব খানকে নিয়ে অনন্য মামুনের ‘নবাব এলএলবি : ব্যাক ফর জাস্টিস’ ছবির শুটিংও অনিশ্চিত। ছবির শুটিং শুরুর কথা ছিল ২৮ মার্চ। কিন্তু করোনার কারণে শুটিং শুরুই করা যায়নি অনন্য মামুন পরিচালিত এ ছবির।

সৈকত নাসিরের ‘ক্যাসিনো, ও ‘আকবর’ ছবি দুটিও অনিশ্চিত।

প্রযোজক সমিতির সভাপতি খোরশেদ আলম খসরু বলেন, ‘করোনায় সারা দুনিয়াই স্তব্দ হয়ে গেছে। এসময়ে সবাইকে ঘরে থাকতে বলা হচ্ছে। বাংলাদেশেও কড়াকড়িভাবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার চেষ্টা চলছে। সাধারণ ছুটি চলছে সব সেক্টরে। এমন অবস্থা কতদিন থাকবে তা বলা মুশকিল। তাই রোজা ঈদের সময় সিনেমা হল খোলা যাবে কী না তা বলা মুশকিল।’

তিনি আরও বলেন, ‘সিনেমা হল বন্ধ থাকলে ঈদের বাজারে অনেক বড় ক্ষতির মুখে পড়বে ইন্ডাস্ট্রি। কিন্তু কিছুই করার নেই। আমরা আশাবাদী যে ঈদের আগে সব স্বাভাবিক হবে। খোলা যাবে সিনেমা হল। ঈদের বাজার দিয়েই ঘুরে দাঁড়াবে ঢাকাই সিনেমা। বাকীটা আল্লাহই ভালো জানেন।’

এ প্রযোজক নেতার মতো সিনেমাপাড়ার অন্যরাও আশাবাদী ঈদের আগে করোনাভাইরাস থেকে মুক্ত হবে পৃথিবী। স্বাভাবিক হয়ে উঠবে সবার জীবন। বিষন্ন এই সময় কেটে যাবে। খুলবে হল, মানুষ সিনেমার উৎসবে মেতে উঠবে আবারও।

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত