| 4 মার্চ 2024
Categories
অনুবাদ অনুবাদিত গল্প গল্প সাহিত্য

লিডিয়া ডেভিসের অণুগল্প

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট

[সম্প্রতি মার্কিন ছোটগল্পকার, অণুগল্প লেখক, ঔপন্যাসিক এবং অনুবাদক লিডিয়া ডেভিস ‘পঞ্চম ম্যান বুকার আন্তর্জাতিক পুরস্কার-২০১৩’ লাভ করেন। ছোটগল্পে বিশেষ অবদান রাখার জন্য তাকে এই সম্মানে ভূষিত করা হয়। লিডিয়া ডেভিস দৈনন্দিন জীবনের আপাত তুচ্ছাতিতুচ্ছ বিষয়গুলোকে ব্যঙ্গকৌতুকের মাধ্যমে গল্প বলার ঢংয়ে উপস্থাপন করেন। ইরাবতীর পাঠকদের জন্য লিডিয়া ডেভিসের তিনটি অণুগল্পের অনুবাদ প্রকাশ করা হলো। অনুবাদক ফজল হাসান কবি ও গল্পকার]

মা

মেয়েটি একটি গল্প লিখেছে।
‘কিন্তু ব্যাপারটা কত বেশি ভালো হতো, তুমি যদি একটা উপন্যাস লিখতে।’ মেয়েটির মা বললো।
মেয়েটি পুতুলের জন্য একটা ঘর বানায়।
‘কিন্তু ব্যাপারটা কত বেশি ভালো হতো, তুমি যদি একটা আসল ঘর বানাতে।’ মেয়েটির মায়ের বক্তব্য।
মেয়েটি তার বাবার জন্য একটা ছোট্ট বালিশ তৈরি করে।
‘কিন্তু একটা লেপ বানালে কি ভালো হতো না?’ মেয়েটির মা বল্লেন।
মেয়েটি বাগানে ছোট্ট একটা গর্ত খোঁড়ে।
‘কিন্তু ব্যাপারটা কত বেশি ভালো হতো, তুমি যদি একটা বড় গর্ত খুঁড়তে।’ মেয়েটির মায়ের অভিমত।
সবশেষে মেয়েটি বাগানে একটা বড় গর্ত করে এবং ওটার ভেতরে ঘুমোতে গেল।
মেয়েটির মা বলেন-‘কিন্তু ব্যাপারটা কতটুকু ভালো হয়, তুমি যদি ওখানে চিরদিনের জন্য ঘুমাও।’

[গল্পসূত্রঃ ‘ব্রেক ইট ডাউন’ গল্প সংকলনের ‘দ্য মাদার’ গল্পের অনুবাদ।]

ভয়

প্রায় প্রতিদিন সাতসকালে আমাদের এলাকার একজন নির্দিষ্ট মহিলা ঘর থেকে দৌঁড়ে বাইরে বেরিয়ে আসে। তখন তার মুখ ফ্যাকাসে দেখায় এবং পরনের ওভারকোট বাতাসে উড়তে থাকে। এবং সেই সময় সে চিৎকার করে বলে, ‘খুব জরুরি বিষয়, খুবই জরুরি।’

মহিলার চিৎকার শোনার সঙ্গে সঙ্গে আমাদের মাঝ থেকে এক মেয়ে তার কাছে ছুটে যায়। ভয় থেকে পুরোপুরি আশ্বস্ত হওয়া পর্য্যন্ত মেয়েটি মহিলাকে জড়িয়ে ধরে রাখে। আমরা জানি, মহিলা অভিনয় করে। তার এমন কিছুই ঘটে না। কিন্তু সহজেই আমরা তার ভণিতা বুঝতে পারি। কেননা আমাদের মাঝে কেউ না-কেউ নিদেন হলেও একবার মহিলার কাছে ছুটে গেছে। চুপ করে থাকার জন্য প্রতিবারের একই ঘটনায় আমাদের সবার শক্তি নিঃশেষ হয়েছে, এমনকি আমাদের পরিবার এবং বন্ধু-বান্ধবদেরও।

[গল্পসূত্রঃ ‘‘দ্য কালেক্টেড স্টোরিজ্ অফ লিডিয়া ডেভিস’ গল্প সংকলনের ‘ফিয়্যার’ গল্পের অনুবাদ।]

যুবক এবং গরিব

বাতির আলোয় ঘুমন্ত শিশুর পাশে আমি আমার ডেস্কে বসে কাজ করতে পছন্দ করি। মনে হয় আমি আবার যুবক এবং গরিব হয়ে গিয়েছি।
কিন্তু এখনো আমি যুবক এবং গরিব।

[গল্পসূত্রঃ ‘দ্য কালেক্টেড স্টোরিজ্ অফ লিডিয়া ডেভিস’ গল্প সংকলনের ‘ইয়ং অ্যান্ড পুওর’ গল্পের অনুবাদ ।]

লেখক পরিচিতি: সমকালীন আমেরিকান বিশিষ্ট ছোটগল্পকার, উপন্যাসিক এবং অনুবাদক লিডিয়া ডেভিস ১৯৪৭ সালে ম্যাসাচুয়েটস্ রাজ্যে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা একজন ইংরেজি সাহিত্যের অধ্যাপক ও সমালোচক এবং মা একজন শিক্ষক ও ছোটগল্পকার। বিষয় এবং আঙ্গিকের দিক থেকে অসাধারণ এবং ব্যঙ্গকৌতুক গল্পের জন্য লিডিয়া ডেভিস সাহিত্য মহলে বিশেষভাবে পরিচিত। তার একমাত্র উপন্যাস ‘দি এন্ড অফ দি স্টোরি’ প্রকাশিত হয় ১৯৯৫ সালে। এ পর্যন্ত তার সাতটি গল্প সংকলন প্রকাশিত হয়েছে । এছাড়া তিনি বেশ কিছু ফরাসি সাহিত্যও অনুবাদ করেছেন। ফরাসি থেকে তার অনূদিত মার্শেল প্রাউস্টের ‘সোয়ানস্ ওয়ে’ এবং গুস্তাভ ফ্লবেয়ারের ‘মাদাম বোভারি’ ইংরেজি সাহিত্যের পাঠকের কাছে নন্দিত হয়েছে। সাহিত্য কর্মের স্বীকৃতি হিসেবে তিনি ‘ম্যান বুকার আন্তর্জাতিক পুরস্কার, ২০১৩’ লাভ করেন। এছাড়া ১৯৯৯ সালে তিনি ফরাসী সরকার কর্তৃক ‘শ্যাভেলিয়্যার অফ দ্য আর্টস্ এন্ড লেটার্স’-এর সদস্য নির্বাচিত হন এবং ২০০৩ সালে ‘ম্যাকআর্থার ফেলোশিপ’ অর্জন করেন। বর্তমানে লিডিয়া ডেভিস নিউইয়র্কের আলবানি বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘সৃজনশীল লেখার’ অধ্যাপিকা।

 

 

 

কৃতজ্ঞতা: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত