| 20 এপ্রিল 2024
Categories
কবিতা সাহিত্য

গাফফার মাহমুদের তিনটি কবিতা

আনুমানিক পঠনকাল: < 1 মিনিট

সীনস অব বডি ল্যাঙ্গুয়েজ

সুচারু দেহভাষ, চোখ ফেরেনা ওই চোখ থেকে অনন্তকাল
বোটানিক্যাল গার্ডেনে ফোঁটা সদ্য যেন প্রিয় পার্সিয়ান রোজ
অলীভ কালারেবলস সুশোভিত দেহবসন ময়ূরাক্ষী অনিন্দ্য চোখ
কোন কিছুতেই পিছু ছাড়তে চায়না আমার ইনটক্সিকেট আইস

কি আছে ওই নগ্ন শরীর জুড়ে? পরতে পরতে হ্যাভেন সীনস
কোষের অভ্যন্তর পড়ছি আর পৃষ্ঠা উল্টাচ্ছি ডিকশনারীজ ওয়ার্ড
প্রতিদিন ভাবছি তোমার ছন্দযুক্ত পা ; হেটে যাচ্ছো যেন ফ্যাশনেবল গার্ল
ও অনিন্দ্যতমা, জিজ্ঞাসু মনে খুঁজছি তোমার বডি ল্যাঙ্গুয়েজ! 

 

 

ক্যাটবেরি চকলেট


তুমি চুষছো ক্যাটবেরি চকোলেট ; আয়রন ফ্লেভারে ভরে উঠছে তোমার অরেঞ্জলিপ। মুগ্ধতায় নাড়ছো আর আমি দেখছি ; তেষ্টার জলপানে চুষতে ইচ্ছে খুব ক্যাটবেরি চকোলেট। কতো দিন মুখ ছুঁইনা নীলসমুদ্র ঢেউ ; নিমগ্ন মাদকতার নৃত্যে হাসছে তোমার অরেঞ্জলিপ। উঠোনজুড়ে স্ট্রবেরি ঝুলছে ক্লোরোফিল সজীবতায় ; কপার কালার দুয়েকটা মুনিয়া বার্ড দেখছে ব্লু স্কাই, তোমার খাঁচায় বন্দি থেকেই। পাশের ফ্লাটের রেলিং ধরেই কোরাস গাইছে ‘ টু লিটল ব্লাকবার্ডস সিটিং অন এ ওয়াল ‘ দুষ্ট-মিষ্টি ক্লেভার চাইল্ড ; তুমি অনবরতই চুষেই যাচ্ছো ফেবারেট ক্যাটবেরি চকোলেট।

 

 

 

সব হয়েছে নদী

উঠানে ছিলো বোনের কবর
সাড়ে তিন হাত ভূমি
ছিলো বসত ভিটে ; বৌচি খেলার মাঠ
পাতালপুরী সব খেয়েছে রাক্ষসী নদী চুমি।

কাঁথা-কাঁপড় রৌদ্রে শুকাতো
উঠানেই ছিলো মাঁচা
সন্ধ্যানদী সব গিলেছে ; ঘরহারাদের ভিটে
দেখেছি ক্রন্দন রোল, কে আছিস বাঁচা!

সোহাগী বউয়ের কতো আঁকুতি
কোথায় রবো, কোথায় কবর
কেউ কি আছেন দয়াল প্রভূ ; ওহে মালিক
এই গরীবের নেবেন কি কেউ একটুকুই খবর?

একদিন সবই ছিলো
কতোই স্বপন, একান্ন ঘরের রান্না
অথৈ জলের ভাঙন স্রোত ; আইটাই শঙ্কা
কতোই জলতরঙ্গ, দেখেছি ভয়ার্ত মানুষের কান্না।

নিকট প্রতিবেশী স্বজন ছিলো
কভু ফিরেই পেতাম যদি
সোহাগী বউয়ের কতো আদর ছিলো
ছিলো পিতার কবর, বসত ভিটে ; সব হয়েছে নদী। 

 
 
 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত