ঋতুপর্ণ ঘোষ সম্পর্কে কয়েকটি তথ্য

১৯৯৪ সালে ‘হিরের আংটি’র মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্র নির্মাণ শুরু করেছিলেন ঋতুপর্ণ। একই বছর তিনি নির্মাণ করেন ‘ঊনিশে এপ্রিল’ সিনেমাটি; সে বছরের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারের আসরে সেরা ফিচার সিনেমার পদক জয় করে এটি। ভারতীয় চলচ্চিত্র পরিচালক ঋতুপর্ণ ঘোষ ৪৯ বছর বয়সে মারা যান।

কিন্তু ঋতুপর্ণ অধ্যায়টি যেন আরো বড়। এই নামের সাথে জড়িয়ে গেছে অনেক আলোচনা আর সমালোচনা। ঋতুপর্ণ ঘোষ সম্পর্কে কয়েকটি তথ্য :

১ ঋতুপর্ণ ঘোষই হলেন একমাত্র বাঙালি পরিচালক যিনি অমিতাভ বচ্চন, ঐশ্বরিয়া রাই, রাখি গুলজার, অজয় দেবগন, কিরণ খের, মনীষা কৈরালার মত এতজন বলিউডের অভিনেতা-অভিনেত্রীদের সঙ্গে কাজ করেছেন।

২. ‘আরেকটি প্রেমের গল্প’ ছবিটির শুটিং চলাকালীন ঋতুপর্ণ ঘোষ ‘সেক্স চেঞ্জিং অপারেশন’ করান।

৩. ঋতুপর্ণ ঘোষই হলেন একমাত্র পরিচালক যিনি সমগ্র বচ্চন পরিবারের সঙ্গে কাজ করেছেন।

৪. ‘কথা দেইথিল্লি মা কু’ নামক ওড়িয়া সিনেমাতে ঋতুপর্ণ ঘোষের প্রথম সিনেমায় অভিনয়। সালটা ২০০৩। যার পরিচালক ছিলেন হিমাংশু পারিজা।

৫. ঋতুপর্ণ ঘোষের দ্বিতীয় ছবি ‘উনিশে এপ্রিল’ আসলে সত্যজিত রায়ের ‘জলসাঘর’ থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে তৈরি করা। পরিচালক সত্যজিৎ রায়কে নিজের অনুপ্রেরণা হিসেবে তুলে ধরতেন ঋতুপর্ণ। তিনি বলেছেন, “যদি চলচ্চিত্র নির্মাণে কেউ আমাকে অনুপ্রাণিত করে থাকে তিনি হলেন সত্যজিৎ রায়।”

৬. মৃত্যুর দুই দিন আগেই টুইটারের মাধ্যমে নিজের পরবর্তী সিনেমা ‘সত্যান্বেষী’র ঘোষণা দিয়েছিলেন ঋতুপর্ণ। নিজের ক্যাব্যিক লেখনিতে ওই টুইটে জানিয়েছিলেন, নিজের ২০তম এই ক্রাইম থ্রিলার ঘরানার সিনেমাটির শুটিং পরবর্তী কাজ গোছাতে ব্যস্ত তিনি।

৭. তার একমাত্র ইংরেজি সিনেমা ‘দ্যা লাস্ট লিয়ার’- এ অভিনয় করেছিলেন অমিতাভ বচ্চন। ২০০৭ সালে সিনেমাটি জয় করে নেয় ‘সেরা ইংরেজি ফিচার ফিল্ম’ এর জাতীয় পুরষ্কার।

৮. ঋতুপর্ণ ২০১০ সালের বিগ বাংলা মুভি অ্যাওয়ার্ডে দশর্কদের ভোটে ‘সর্বকালের সেরা পরিচালক’ হিসেবে নির্বাচিত হয়েছিলেন।

৯. নয় বছরের ক্যারিয়ারে মোট ১৯টি সিনেমা নির্মাণ করেছেন ঋতুপর্ণ; অর্জন করেছেন ১২টি জাতীয় পুরস্কার। এর মধ্যে হিন্দী ভাষার ‘রেইনকোট’ এবং ইংরেজি ভাষার ‘দ্যা লাস্ট লিয়ার’ ছাড়া বাকি সবগুলোই বাংলা ভাষায় নির্মিত।

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত