মন কেমন করে কে জানে কাহার তরে

মনপ্রধানের ঢাল বেয়ে বিম্বিত চাঁদ; বিভ্রমে কুয়াশা। ভালোবাসার রাত্রিবাস খুলছে বাঁকনির্জন রাস্তা। আমি হাঁটতে থাকি। পায়ে পায়ে পরিচিত গন্ধের আকুলিবিকুলি। কে জানে কাহার তরে।

রূপারূপের ওড়না খুললেই ভাবনামুখর বারান্দা; বুক ঘেঁষে আসে নৈঃশব্দ্যে রাখা সোনার কাঠি রূপোর কাঠি। হাত ছোঁয়ালেই কুয়াশাভাঙা রোদ্দুর। হাত গুটিয়ে হাঁটতে থাকি।

দিনান্তে ঘরমুখো কোঁচড়ে দুর্বিনীত অনিশ্চিতেরা। গা থেকে রৌশন খুলে সংহিতায় নামছে। গালচের নিখুঁত নকশাপাড়ে গড়িয়ে গড়িয়ে বিবসনা। রাত্রিশেষের ধুন; নির্নিমেষ গরাদ; প্রীতিসম্ভাষণে বিনীত নিশ্চিতেরা।

সোনার পিঞ্জরে হারানো চাবিকাঠি। মনকেমনরা মাত্রা ভেঙে দূর নামাচ্ছে সুদূরের স্বরলিপি বেয়ে। অলখ অলখ। কে জানে কাহার তরে।

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত