| 19 এপ্রিল 2024
Categories
অনুবাদ অনুবাদিত কবিতা

ফুল, অশ্রু, প্রেম – ৩১ নারীর কবিতা (পর্ব -৫) । মুম রহমান

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট

অনো নো কোমাচি

copy righted by irabotee.com,Ono no Komachi

 

 

 

 

 

 

 

 

 

জাপানী কবিতায় অনো নো কোমাচি (৮২৫-৯০০) এক প্রবাদতুল্য নাম। নারাম, আসুকা এবং হিয়ান প্রজন্মের কবিদের মধ্যে তিনি অমর। তিনি মূলত জাপানের ধ্রুপদী ওয়াকা (ধিশধ) রীতিতে কবিতা লিখতেন। উল্লেখ পাঁচ লাইনের এই গীতল কাব্যরীতির চর্চা জাপানে আজও অব্যহত আছে। আমরা জানি যে, জাপানের জনপ্রিয় হাইকু ধারায় কবিতা লেখা হয় ৫, ৭, ৫ মাত্রায়, আর ওয়াকা কবিতার ছন্দ হয় ৫, ৭, ৫, ৭, ৭। হাইকু মোট ১৭ মাত্রার আর ওয়াকা ৩১ মাত্রার। হাইকু’র বিষয়বস্তু মূলত প্রকৃতি আর ওয়াকা’র বিষয়বস্তু মূলত প্রেম ও আবেগ। অনো নো কোমাচি’র ওয়াকা কবিতা প্রায়শই কামোদ্দীপক, তীব্র আবেগময়, কখনোবা বিচ্ছেদ ও বিষাদে ভরপুর। ব্যক্তি অনো নো কোমাচি সম্পর্কে খুব কম তথ্যই পাওয়া যায়। তিনি যে অসম্ভব সুন্দরী ছিলেন সেই তথ্যটি সবাখানেই প্রাপ্য। তিনি এতোই সুন্দরী ছিলেন যে আজকের জাপানেও অনো নো কোমাচি বলতেই লোকে অনন্য সুন্দরকে বোঝে। বাকী যা আছে তা তথ্যের চেয়ে গাল-গল্পই বেশি। বলা হয়ে থাকে বহু পুরুষ তার প্রতি আকৃষ্ট ছিলো, কিন্তু তিনি ছিলেন ভীষণ নিষ্ঠুর। তার নিষ্ঠুরতা নিয়ে একাধিক গল্পও আছে। একটি গল্পে এমন আছে যে কোন এক প্রেমিক তাকে প্রস্তাব দিলে সে তাকে ১০০ রাত টানা দেখা করার শর্ত দেয় এবং জানিয়ে দেয় যে একবার দেখা করতে না পারলেও এই প্রস্তাব প্রত্যাখান হয়ে যাবে। বেচারা প্রেমিক পুরুষটি প্রত্যেক রাতেই আসেন। ৯৯-তম রাতে আসন্ন মিলনের উত্তেজনায় পথেই পুরুষটির মৃত্যু হয়। এমনি নানা ধরণের গল্প তাকে নিয়ে আছে। এমনও গল্প আছে যে প্রেমিকদের সাথে নিষ্ঠুর আচরণের জন্যে শেষ বয়সে সে দেখতে কুশ্রি হয়ে যায় এবং সবার অবহেলা লাভ করে। কিন্তু এ সবই গালগল্প, যার কোন ঐতিহাসিক ভিত্তি নেই। যথার্থ কথাটি হলো, যুগপৎ সৌন্দর্য আর কাব্য প্রতিভায় তিনি অনন্য।


‘এটা সমাপ্ত!’

‘এটা সমাপ্ত!’
আমার উপরে ঝরঝর বৃষ্টি
পড়ছে আর আমার বৎসরগুলোর সাথে
এমনকি তোমার শব্দরাও,
শুকিয়ে যাচ্ছে।

 

আমি তার দীর্ঘ অপেক্ষায়

তুমি আসো না
এমন চাঁদহীন রাতে।
আমি জেগে থাকি তোমার কামনায়।
আমার স্তন আন্দোলিত আর জ¦লজ¦লে।
আমার হৃদয় পুড়ে গেছে।

 

 

শেষ হীন

সমাপ্তি হীন
আমি তোমাকেই ভাবতে থাকি আর তাই
এসো আমার কাছে রাত্রিতে।
অন্ততপক্ষে স্বপ্নের পথ বেয়ে,
সেখানে তো কোন বাঁধা নেই।

 

 

জেলেদের জীবন

জেলেদের জীবন
বয়ে যায় উপসাগর ঘিরে, নৌকা চালিয়ে;
বৈঠা বিহীন
তারা সকলে সমুদ্রে এই পৃথিবী কী নিষ্ঠুর
আর আমি এখানে বিষণ্ণতায় ডুবছি প্রতিদিন।

 

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত