সীমান্তে পাকিস্তানের জঙ্গিবিমান

ভারত অধিকৃত কাশ্মিরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলার পর এক মাসের বেশি সময় কেটে গেলেও দুই প্রতিবেশী দেশের মধ্যে উত্তেজনা একবারে শেষ হয়ে যায়নি। বরং লড়াইয়ের জন্য সরকারের কাছে জরুরি ভিত্তিতে অস্ত্র চেয়েছে ভারতের বিমানবাহিনী। তারা বলছে, পাকিস্তান সীমান্তজুড়ে জঙ্গি বিমান মোতায়েন করেছে। তার পাল্টা প্রতিক্রিয়ায় সরকারের কাছে অস্ত্র চাওয়া হয়েছে।

ভারতের বিমানবাহিনীর বরাত দিয়ে ইকোনমিক টাইমস দাবি করছে, পাকিস্তান তার সীমান্ত জুড়ে নিজেদের ঘাঁটিগুলোতে জঙ্গিবিমান এফ-১৬ মোতায়েন করছে। এ অবস্থায় যে কোনো পরিস্থিতির জন্য তারা তৈরি থাকতে চায়। আর সে জন্যই সরকারের কাছে জরুরি ভিত্তিতে অস্ত্র ক্রয়ের দাবি জানিয়েছে তারা।

সূত্র জানায়, পাকিস্তান তাদের এফ-১৬ বিমানের নতুন একটি স্কোয়াড্রন তৈরি করেছে, এর নাম দেয়া হয়েছে অ্যাগ্রেসর। পাকিস্তানের ২৯তম এ স্কোয়াড্রনে মোট ৮টি এফ-১৬ জঙ্গিবিমান রয়েছে। জরুরি মুহূর্তে তাৎক্ষণিক ব্যবস্থা নেয়ার জন্য এটি তৈরি করা হয়েছে।

নতুন করে জরুরি ভিত্তিতে অস্ত্র ক্রয়ের আহ্বান সম্পর্কে ভারতের বিমানবাহিনী জানায়, তাদের হাতে আগে থেকেই মিসাইল রয়েছে। কিন্তু বিমান হামলা আরো বেশি সূক্ষ্ম করতে নতুন অস্ত্র ক্রয়ের আহ্বান জানানো হয়েছে। অবশ্য অনেক আগে থেকেই বলা হচ্ছে, ভারতের অনেক অস্ত্রেরই মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। ফলে আসলে যুদ্ধ শুরু হলে বিপদেই পড়ে যাবে দেশটি।

ভারতের এ ধরনের উদ্বেগের ব্যাপারে পাকিস্তানের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, যুদ্ধের জন্য তারা এসব মোতায়েন করছে না। তবে ভারতের পক্ষ থেকে উস্কানিমূলক কোনো তৎপরতা পাওয়া গেলে তাৎক্ষণিকভাবে জবাব দিতেই তারা এসব জঙ্গিবিমান মোতায়েন করছে। আগে থেকেই এসব ঘাঁটিতে এফ-১৬ মডেলের যুদ্ধ বিমান ছিলই। এখন কোনো কোনো ক্ষেত্রে সেই সংখ্যাটি কিছু বাড়ানো হচ্ছে।

সূত্রঃ জি নিউজ

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত