Site icon ইরাবতী

কেরলের একটি কলেজে পাকিস্তানের জাতীয় পতাকা

Reading Time: < 1 minute

কেরলের একটি কলেজে পাকিস্তানের জাতীয় পতাকা নিয়ে উল্লাস করার অভিযোগ উঠল একদল পড়ুয়ার বিরুদ্ধে। মারাত্মক এই ঘটনাটি ঘটেছে কোঝিকোড়ের পেরাম্বা সিলভার কলেজ চত্বরে। বিষয়টি প্রকাশ্য আসার পরেই বিতর্ক তৈরি হয়েছে দেশজুড়ে। ওই কলেজের ৩০ জনের বেশি পড়ুয়ার নামে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে স্থানীয় থানায়। ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৪৩, ১৪৭, ১৫৩ ও ১৪৯ ধারায় মামলা দায়ের করে ঘটনাটির তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। অভিযুক্তদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে বলেই খবর।

জানা গিয়েছে, গত ২৯ আগস্ট পেরাম্বা সিলভার কলেজের ছাত্র সংসদ নির্বাচনের প্রচার চলছিল। সেই উপলক্ষে ওই কলেজে থাকা মুসলিম স্টুডেন্ট ফ্রন্ট(এমএসএফ) ও কংগ্রেস সমর্থিত কেরল স্টুডেন্ট ইউনিয়ন(কেএসইউ)-এর সদস্যরা একটি মিছিল বের করে। সেই সময় ওই মিছিলে থাকা কয়েকজন পড়ুয়া পাকিস্তানের ফ্ল্যাগ নিয়ে উড়িয়ে উল্লাস করছিল অভিযোগ। পরে ওই ঘটনার ছবি প্রকাশ্য আসতেই বিতর্ক শুরু হয়। প্রতিবাদে সরব হয়ে ওঠেন স্থানীয়রা। বিষয়টিকে কেন্দ্র করে বিক্ষোভ দেখাতে থাকেন বিজেপি ও বিভিন্ন জাতীয়তাবাদী সংগঠনের সদস্যরা। স্থানীয় থানায় ৩০ জনের বেশি পড়ুয়ার নামে লিখিত অভিযোগও দায়ের হয়। এরপরই নড়েচড়ে বসে প্রশাসন। অভিযুক্তদের নামে মামলা দায়ের করে তদন্ত শুরু করে। তবে শনিবার পর্যন্ত তো কেউ গ্রেপ্তার হয়নি।

এদিকে অভিযুক্ত পড়ুয়াদের দাবি, ওটা পাকিস্তানের নয় মুসলিম স্টুডেন্ট ফ্রন্টেরই পতাকা। তবে অনেকটা একরকমের দেখতে। তাই ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। একই কথা বলেছেন ওই কলেজের পরিচালন সমিতির চেয়ারম্যান একে থারুভাইও। তাঁর যুক্তি, মুসলিম স্টুডেন্ট ফ্রন্টের ওই পতাকাটি নিচু করে উড়ানো হচ্ছিল। তাই ওটা পাকিস্তানের জাতীয় পতাকার মতো দেখিয়েছে। ওইদিন ছুটি ছিল বলে কলেজ প্রশাসনের কেউ ছিল না। তবে বিষয়টি নিয়ে বিতর্ক হওয়ার পর তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।

যদিও অভিযুক্ত পড়ুয়া ও কলেজের চেয়ারম্যানের কথা মানতে চাইছে না স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব। তাদের অভিযোগ, ওই কলেজ চত্বর বর্তমানে জঙ্গিদের দখলে চলে গিয়েছে।

       

Exit mobile version