মাসুদ পথিকের কবিতা

আজ ২০ নভেম্বর কবি ও চলচ্চিত্র নির্মাতা মাসুদ পথিকের শুভ জন্মতিথি। ইরাবতী পরিবার তাঁকে জানায় শুভেচ্ছা ও নিরন্তর শুভকামনা।


 

 

বিবাহিত শিক্ষয়িত্রী

এই যে ভূগোল, অতিসুন্দর! ক্লাশের পেছন থেকে দেখতে

বিবাহিত শিক্ষয়িত্রীর গলায় দ’মগ্ন, বর্ণমালা একী!

নেই কোনো প্রসাধন যার বাহিরে, ভেতরে একরোখা আলো

 

হ্যাঁ, ভূগোল ক্লাশে থাকে রহস্য টিলা, দুটি অক্ষরের কোমলভারা দুঃখ

ঊরুসন্ধির বারান্দায় আমি ফেল করা ছাত্র এক, আর

বন্ধুরা লুকিয়ে তাকিয়ে থেকে থেকে আলোতে গেছে মারা,

পালিত লাশের উজ্জ্বলতায় অন্ধ কে তবে ভাসি, সে আমিই

খ.

কীভাবে শরৎ চলে যায় দূর দেশ, এই কাশবন বেশ আনাড়ি

ক্লাশের ভেতর উড়ে কাশ, কামনায় ঘোর-শাড়ি ব্রীড়াবনত বুকে

মন তো বহুদিন ফিরে না বাড়ি, বলি, ‘কেমন আছেন আপি?

রুমালে তুলে রেখেছি ময়শ্চারাইজার আপনারই’

গ.

ও’আপি, এক দুরন্ত গল্প বর্ণমালায় দেখেছি, আর

ইশ্কুলের পেছনে এই যে বনানী তার হাতছানি, কাউকে বলিনি’

 

নির্ঘুম রাত গেছে গুপ্ত-নদীতে মিশে, নগ্নসোতলিপি

অথবা ভেতরের ঘনপাঠ চিহ্ন-ইমেজগুলি পকেটে রেখেছি

ঘ.

প্রতিবার পড়ি মোহন ভূগোল, দুটি মহাদেশের আলোভারা এক ভুল,

বুকে বিঁধে অনশ্বর শূন্যতা, এই অসুখ বুঝি শিল্পফুল

ঙ.

নিজেই নিজেকে করি পাঠ, শেষ বেঞ্চিতে বসে দিই শিস;

ইশ্কুল যে আমার বাড়ির পাশেই, আলোতে লিখি ঢালো নিচু ক্লাশেই;

বর্ণ-শব্দ-অক্ষর-বাক্যের সিগনিফিয়ার কাম ও আসক্তি

চ.

আপি, রোজ আপনার দুটি গোপন-ভূগোল খুলে পড়ি

 

 

বাবা ২

 

অথচ আমার বাবা ছিলেন নক্ষত্র-ব্যবসায়ী,

তিনি আমার খেলার জন্য কত তারকা নিয়ে আসতেন,

আর মার্জারি।

দিগন্তের কিনারায় আমাদের বাংলোবাড়িটি কারো চোখেই পড়েনি?

বন্দুকধারীরা জানাল বাবা একজন ইয়াবা-ব্যবসায়ী!

হায়! এখন আমি আমরা শোক রান্না করে খাই।

আর শোক বিক্রি করি, এ-পাড়ায় ও-পাড়ায়।

ফলে উপচে পড়েছে সহস্র বছরের ক্রেতারা। তারাও যে

ভীষণ ক্ষুধার্ত, নিজেদের হৃদপিণ্ড খেয়ে খেয়ে ক্লান্ত।

এবং মানবতা।

 

জলিধান

আগাছার বিপরীতে যে হারানো শস্যের বিহবল মুখ

তার নাম জলি, জলি চাষার মেজো মেয়ে

আমি চুপিচুপি দেখেছি তার মনোলোভা বুক

পুষেছি তার গোপন অসুখ

ওগো ধান, ওরে জলি তুই মাঠের শেষ গান

তবে কে আঙিনা মাড়িয়ে নিয়ে যায়

তোর সোনা রূপ

আমি আজ মূক,

আমি নয়তো মাঠের বিষণ্ণ মুখ

 

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত