প্রেমের চিঠি

ডিয়ার ফ্রেন্ড,( ডাকটা কি চেনা চেনা লাগছে?)
আমার মেসেজ দেখে খুব বিরক্ত নিশ্চয়? আজ ও?তবুও যে মানুষটা ছিল মনের একান্ত আপন, তাকে একেবারে ভুলি কি করে? কি করে খোঁজখবর না নিয়ে থাকি বলতো?
কেমন আছ জিজ্ঞাসা করে বিব্রত করবো না। জানি ভাল না থেকেও ভালো থাকার অভিনয়তে তুমি চিরকালই পটু। লোক ভোলানো, লোক দেখানো ওই হাসিটুকুর  পিছনে চাপা আর্তনাদ টা আমি আজ ও শুনি, শুনি তোমার বোবা কান্না, বুকের কাছে তোমার প্রিয়জনের ছবি নিয়ে শুয়ে থাকো তুমি, আমি জানি।
কিন্তু তুমি কি জানো আমি তোমায় মিস করি, আজ , কাল, রোজ, প্রতিদিন, প্রতিমুহূর্ত! জানো না।
জানলে অন্তত আমাকে এরকম  মেসেজ করতে হতো না, আমার চেনা নম্বর দেখে তুমি এমনি আমার ফোন তুলতে। 
সেদিন তোমার পাড়ায় গেছিলাম বন্ধু, ভাবলাম একবার টোকা দিয়ে যাই তোমার মনে, কিন্তু পরক্ষণেই তোমার সেই কুৎসিত ধমক, চোখ মুখ কুঁচকে আমার প্রতি ঘৃণ্য চেহারাটা মনে পড়ে গেলো। মোড় ঘুরে, তোমার গলির পাশ দিয়ে চলে এলাম। তুমি টের পেয়েছিলে? টের পাও এসব? 
খুব জানতে ইচ্ছা করে তুমি কি এখনও লেখো? 
লেখাটা ছেড়ো না। তোমার কবিতা ভীষণ ভাবে বাস্তবমুখি। খুব ভাবায় মানুষ কে। দোহাই ,সবাই কে ছেড়ে দিলে, কাকে নিয়ে ঘর করবে তুমি? 
প্রিয় বন্ধু, আমি সবসময়ই তোমার মনে থাকবো, এক কোনায়, অবচেতন পর্দার ভিতরে, খুব ক্লান্ত যেদিন লাগবে, আমার কাছে এসো, আমি তোমার বুকে সেদিন হাত রেখে দেখতে চাই, ওতে কার নামে লেখা আছে।
ইতি,
পার্মি।

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত