| 29 মে 2024
Categories
উৎসব সংখ্যা’২০২১

ইরাবতী উৎসব সংখ্যা: আবদুর রবের পাঁচটি কবিতা

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট
 
 
ফিনিক্সের নতুন গল্প
 
সময়ের ভিতরে বিলীন হওয়া মুহূর্তগুলো
দেখে নেয় গাঢ় ক্ষত, নীরবতা, সব অন্ধকার।
অতএব খুঁজে দেখ, খুঁজে দেখ—
আছে কিনা কোনো গাঢ় ক্ষত।
দেখবে প্রতিটি ভুল কিংবা দুর্বিনীত আচরণের পিছনে
থাকে কোনো না কোনো কাহিনী।
হয়তো নীরব ক্ষোভ অথবা ক্রন্দন
গেঁথে আছে বুকের ভিতরে!
সবার নিজের মুহূর্তটির জন্য তৈরি হতে হয়
অতএব কথা বলো, এবং নিজের
ভুলটা স্বীকার করো,
দেখবে গোপন গুহা থেকে
বেরিয়ে আসছে প্রতিপক্ষ, তার ভিতরের সেই
আহত জন্তুটা!
দেখবে তোমার সাথে বসে চা খাচ্ছে
বলছে নিজের কথা, গোপন কষ্টের।
দেখবে আগুন নিভে গেছে,
ভষ্ম থেকে উঠে আসছে নতুন ফিনিক্সের গল্প—
বন্ধুত্ব ও সাহায্যের শক্ত দুটি হাত!
 
 
 
 
 
 
 
 
মালিনীদের কথা
 
বাতাসে হেলান দিয়ে ভাবি;
আমার হৃদয়ে ফুল ফুটিয়ে যাওয়া মালিনীরা
যতদূরে থাক, ভুলবো না।
শুধু ফুল নয়,
প্রেমের বিচিত্র কোণগুলি আমি
দেখে ফেলি তাদের কল্যাণে!
যখন যা কিছু অনুভব করার করেছি, তারা
না করেছে নিষেধ, না দিয়েছে উৎসাহ।
এভাবেই ঘটেছিল ফুল ফোটানোর কাজ।
চলতে চলতে শত আঘাত পেলেও
দুর্বল হইনি, বরং জেনেছি পৃথিবীর সব
প্রেমিকেরা এভাবেই বেড়ে ওঠে—
হৃদয় ভাঙার উর্ধে উঠে যায় তিক্ততা ছাড়াই!
তবে ওরা শুধু মালিনী না, ফুলপরী
পৃথিবীতে এসে জেনে গেছে—
কি করে উড়তে হয় ভাঙা ডানা নিয়ে…।
 
 
 
 
 
অভিজ্ঞ শিক্ষানবিশ
 
যখন বয়স হয়, সর্বোচ্চ অর্জনও
তোমাকে ছাড়িয়ে দেয় প্রিয় কাজ থেকে,
তখন আবার কাজে ফিরতে চাইলে
বড়জোর কোনো অভিজ্ঞ শিক্ষানবিশ হতে পার—
ছেলেমেয়েদের বয়সী হয়তো কারোর অধীনে!
সকাল সকাল উঠে কাজে যাওয়ার জন্য
আবার নতুন করে ঘড়িতে এলার্ম দিলে।
এও মন্দ নয়, তুমি শিখবে, শেখাবে—
তোমার অভিজ্ঞ চোখে তরুণ উদোক্তা
চিনে নিতে পারে অন্তর্গত ভয়গুলি—
যা তাকে প্রায়শ মাঝরাতে ঘুম থেকে তুলে দেয়,
সন্তর্পনে এক অদৃশ্য বিড়াল হেঁটে বেড়ায় মনের মধ্যে।
শিখে নিতে পারে কীভাবে বাঁচানো যায়
ব্যক্তিগত সম্পর্কগুলির ভবিষ্যত।
জেনে নিতে পারে কি করে জীবন থেকে
মহাজীবনের দিকে হেঁটে যেতে হয়!
 
 
 
 
 
 
 
 
পায়ের ছাপ
 
প্রতিটি মানুষ যতটা একাকী হাঁটে,
সে-সব পায়ের ছাপ একদিন মুছে যায়;
অন্য সময়ের স্মৃতি হয়ে রয়ে যায় ।
হয়তো অনেক পথে কোনদিন
যাওয়াই হবে না, তবুও
সেই পথগুলি অপেক্ষা করবে
পথের নিয়মে।
অসংখ্য পায়ের ছাপ মিশে গেছে,
আমার পায়ের ছাপে!
যারা ভিন্ন পথে গিয়েছিল,
তাদেরও পায়ের ছাপ মুছে গেছে—
অন্য কারোর পায়ের ছাপে।
প্রতিটি পায়ের ছাপে আছে
আলাদা আলাদা গল্প।
সেই গল্পগুলি নিয়ে হাঁটতে হাঁটতে
আমরা সবাই একদিন থেমে যাই।
প্রতিটি পায়ের ছাপ তাই
দাঁড়ি-কমা হয়ে রয়ে যায়
অসম্পূর্ণ গল্পে…।
 
 
 
 
 
 
 
অন্তবর্তীকাল
 
হুইল চেয়ারে বসে দিন কাটে
কুকুরটা তাকিয়ে থাকে,
পাশে বসে টিভি দেখে, পাহারা দেয়
এই স্থিরচিত্রখানি কোন ছবি নয়এ
ই বর্ণনা কোনো বর্ণনা নয়এ
জীবন, মৃত্যুর জন্য অপেক্ষারতএকটি অন্তবর্তীকালীন জীবন!
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 
 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত