| 28 ফেব্রুয়ারি 2024
Categories
উৎসব সংখ্যা’২০২১

ইরাবতী উৎসব সংখ্যা: তৃষ্ণা বসাকের পাঁচটি কবিতা

আনুমানিক পঠনকাল: 3 মিনিট
ঈশ্বরী দাঁড়িয়ে আছে খদ্দের আশায়
চড়া লাল লিপস্টিক,
কোথায় গোপন ট্যাটু, কেউ কেউ জানে,
ঈশ্বরী দাঁড়িয়ে আছে খদ্দের আশায়,
ক্যামেরা দেখেনি তাকে, বেদনার উল্কি কাটা নারী।
ছূঁচের ডগায় রক্ত ফোঁটা ফোঁটা বিরতিবিহীন,
সে আসে আমার কাছে, আমার সঙ্গেই শোয় রোজ,
সে কিছু বললে অমনি সাত সাত চ্যানেলের ভোজ…
তৃতীয় ট্যাটুর দিকে হেঁটে যাচ্ছি জংগলের শেষে,
ভালবাসা ছাড়া কোন উদযাপন হয় না এখানে।
ভালবাসা ছাড়া,
আমার সামনেও কোন পথ খোলা নেই আর আজ।
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com,read bengali kobita tanya kamrun nahar
আমাদের কোন বাল্যলীলা ছিল না
আমাদের কোন বাল্যলীলা ছিল না।
গিরি গোবর্ধন ভাঙছিল সিমেন্ট কোম্পানি,
আমাদের পথে ঘাটে বকাসুর ছিল,
জল আনতে গেলেই কলসিতে টিপ করে ঢিল ছুঁড়ত
গয়লাপাড়ার কেষ্ট,
আমাদের ভেজা বসন, আহা নোলা সকসক করে উঠত ভেজা বসন দেখে,
অনেকসময় আমাদের কোন বসনই থাকত না,
সেই নিয়ে কত কবি বস্ত্রহরণ পালা লিখে ফেললেন,
এক গলা জলে দাঁড়িয়ে গোপিনীদের কাতর ডাক
‘অ কেষ্ট, আমরা তোর মায়ের বয়সী রে,
শাড়িটুক ফেলে দে,
উঠে ঘর যাই,
ঘরে একরাশ কাজ,
চুলো, মুতের কাঁথা, শাশুড়ির বাতের মালিশ তেল…’
না, এসব কথা লেখেননি কোন কবি,
লেখেননি জলে অতক্ষণ ডুবে থেকে
আমাদের নিমোনিয়া হয়েছিল কিনা,
কারণ আমাদের কোন বাল্যলীলা ছিল না,
তাই আমরা এবার নিজেরাই অসুর ও লীলা,
আমরা নিজেরাই সাপের মাথায় উঠে নাচছি
তাতা থৈ, তাতা থৈ, তাতা থৈ!
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com,bangla-kobita-by-krishna-malik/
ঋতুসন্ধি
নিউ ক্যালকাটা মেডিকেল, কম্পিউটার খারাপ,
এক প্যাকেট ডানা মেলা হুইস্পার চেয়ে কতক্ষণ দাঁড়িয়ে আছি,
বেজার মুখেও দু-এক হাতা হাসি ঢেলে দিচ্ছে কেউ,
জ্বলন্ত কয়লার মতো সেই হাসি…
এইসবের মধ্যেই স্মৃতির কুঠুরি থেকে
এক প্যাকেট স্বস্তি বেরিয়ে আসে,
পুরনো খবরের কাগজ দিয়ে তাকে সযত্নে ঢাকছে কিশোর,
ডানার ওপর
কালো কালো লালগড়, ল্যান্ডমাইন, ল্যাটেরাইট মৃত্তিকা!
একমাত্র প্রজাপতিটাই আঁকতে পারতাম আমি,
কী সহজ!
দুটো ত্রিভুজের চুম্বনের মাঝখান দিয়ে শুঁড় টেনে তোলা,
তারপর ইচ্ছেমতো লাল, হলুদ, নীল ফুটফুট…
হঠাৎ কম্পিউটার ঠিক হয়ে যায়,
ঝাক্কাস বিল, কাগজ জড়াবার পর আবার কালো পলিপ্যাক,
আমাকে আর বেশিদিন এখানে দাঁড়াতে হবে না!
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com
নিরাময়ের অজস্র বেগুনি ব্রোশিওর
একটা কলাপাতা হাতির শুঁড়ের মতো আমার দিকে এগিয়ে এসেছে,
সারা রাত ধরে পড়া বৃষ্টির বিন্দু ফুটে আছে ওর শরীরে,
এই অরণ্যে একটা কুবো পাখি দিশেহারা হয়ে কী যেন খুঁজে বেড়ায়,
হঠাৎ হঠাৎ গ্যারাজের ছাতে উঠে সে অবিরাম ডেকে চলে –কুব কুব কুব্‌…
তার ডাক ডালিমগাছের আড়ালে লুকিয়ে থাকা বেড়ালগুলোকে অস্থির করে তোলে,
তারা তখন এই পাড়ার প্রতিটা বাড়ির
আলমারি হাঁটকে বেড়ায়,
আর মুখে করে নিয়ে আসে একটা লাল ব্রা,
একটা কালো হ্যাঙ্গার,
আর নিরাময়ের অজস্র বেগুনি ব্রোশিওর,
সেসব নিয়ে এই মেঘলা দিনে অরণ্য স্তব্ধ হয়ে আছে,
একা কুবো ডেকে যাচ্ছে কুব কুব কুব…
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com,bangla sahitya kobita habib emonn
আগুনের ডালপালা
(এসো বিষাদ, এসো। তোমার সঙ্গে শুই।
তোমার খোঁপায় তারা ফুল লাগাই,
এসো, তোমাকে নিয়ে আজ জোছনার রাত্রি কাটাই।)
রাত্রি, বড় গোপন কথার মতো ঢুকে আসে ঘরে,
আধখানা ছাদ, বাকিটা চিলেকোঠা
তার আটখানা কাচের জানলা, সেই কাচের ওপর
রাসমঞ্চের হাজার ঝাড়বাতির আলো এসে পড়ে,
আর সেই সারি সারি দাঁড়ানো অষ্ট সখীর মতো ফুলঝুরি গাছ,
যখন আগুন দেওয়া হয়, তখন আগুনের ডালপালা মেলে আমাকে ডাক পাঠায়।
আগুনের ডালপালা আমাকে ডাক পাঠায় সকাল সাঁঝে,
বিশেষত অন্তর- রজস্রাবের মতো গোপন রাতে,
আগুনের ডালপালা নিয়ে হাজার হাজার ফুলঝুরি গাছ
আমার বিছানায় উঠে আসে,
আর আমি ভিজতে থাকি আ-চরাচর…

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত