রঙ্গীত মিত্রের মহাকাব্য


৪ মে কবি রঙ্গীত মিত্রের জন্মতিথি। ইরাবতী পরিবার কবিকে জানায় জন্মতিথির শুভেচ্ছা ও শুভকামনা।


লেডিস হোস্টেল 

অন্ধকারের ভিতর যেমন আলোর দানারা জেগে থাকে।
সার্টের ভিতর শরীর তেমন।
এভাবে নিজেকে আড়াল করতে
করতে যখন আমার নিজের চোখ হাঁটুতে আটকায় ;
সেই সময় আমি “লজ্জা”কে আবিষ্কার করি।
আমি আবিষ্কার করি কোনটা যৌন আর কোনটা যৌনতা
শুধু স্বাভাবিকভাবে ফ্রিডম ব্যাপারটাকে সামাজিক করে দিয়ে,
ঘামে ভিজেছে আমার জামা ;
আমি তবু দেখাটা না থামিয়ে কখনো লেডিস হোস্টেলের সিগারেটের
প্যাকেট অথবা বিয়ারের ক্যান…
যদিও আমি ট্যাবের আলোয় দেখছি…আমি দেখছি কী করে
সুন্দরীদের দিয়ে, আমার চোখভর্তি করা যায়।
.

এভাবে -১ 

তোমার উন্মুক্ত পায়ে,যৌনতা এসে স্পর্শ করছে।
এ যেন পুরাতনের নতুন হয়ে যাবার মতো।

তাকে তুমি নিয়ে এসো,প্লিজ…

তবে কে যেন নগ্নতাকে ক্রাইম বলে?
কে যেন নেশা করে ফিরতে পারে না তার পুরুষের কাছে?
কে যেন বলে ওঠে এ রং সমাজ মানবে না।
গরাদের বাইরে থেকে এইসব শুনে শুনে

শীতকাল দীর্ঘতম হয়।
বোতলের প্যাঁচ খুলে তুমিও জানিয়ে দাও
পকেটে টাকা আর উপার্জনের ক্ষমতা
এই দুটো থাকলেই,তাকে স্বাধীনতা দেওয়া হয়।

পরিমাপ

কে যেন আবার খনন করছে।
আমি বার বারই এই অবস্থা থেকে বেরোনোর জন্যে মেট্রোজিল খেলাম
তাও দেখি তুমি মিষ্টির দোকানে
তাও দেখি বৃষ্টির দিনে সুন্দরীরা
তাদের জীবনের এফ-আই-আর ফেলে রেখেছে
আমি তাকে প্রেমপত্র ভেবে ভুল করলাম নাকি?

 

 

 

মহাকাব্য

এগোতে এগোতে মেট্রোরেলের কনস্ট্র্যাকসান।
সেখানে আটকে আছে, শহর।
উন্নতি এখন পরকীয়া প্রেম করে
যেমন ফ্লাইওভারের যানজট অবৈধ সন্তান।
তাদের দেখে-টেখে,
আমার ডাক্তারবাবু চোখ
বিনি পয়সায় ফুটপাতে মহাকাব্য বানিয়ে ফ্যালে।

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত