Rati SAXEN poet translator vedic scholar

অনুবাদ: একগুচ্ছ হিন্দি কবিতা । রতি সক্সেনা

Reading Time: 2 minutes

Rati SAXENpoet translator vedic scholarRati Saxena, poet, editor,translator , festival director, and Thinker. Have 5 books of poetry in Hind I, three in English, translated almost 20 books, one for criticism, about balamonyamma, one mammore  about Ayyappan panikker, two travlouguge, one on Vedic research, the seed of mind, a fresh approach to atharvavedic study, her poetry in book form translated in to ten international languages, recent work is the fist which opens, poetry therapy from distant past to presant future, she has started first poetry web journal in india, www.kritya.in she also run the first poetry festival name kritya for 15 years.


অনুবাদক: মিতা দাস
ভেড়া
নারিকেল গাছের ছায়ায়
ওই ভেড়াটা
খুব মজায় – আনন্দে চিবুচ্ছে সবুজ – সবুজ পাতা
একী হঠাত্ টন – টন করে উঠলো
কিছু গোল হলদে পাতা
শুঁকে – শুঁকে যাচাই করে দেখলো
কিছু চেনা – চেনা গন্ধ
যেমন শহুরে লোহার ভেড়া
চিবুলো …. কিন্তু বেমজা , বিস্বাদ
তাও সেগুলো যে সোনালী …. চিবুতে হবে
পেতে যেতে না যেতেই শরীরের রোওয়াগুলো
দাড়িয়ে চমকাতে লাগলো
সোনার মত চকচক করতে লাগলো
এখন খুশি মনে ভেড়াটি চলে গেলো
পাহাড়টার উপর
যেখানে না আছে নারিকেল গাছ
না সাদা – কালো মেঘ
না সাগরের তরঙ্গ
না কথা বলা গোল মরিচের লতানো গাছ
ব্যাস নিছক মরুভূমি
সাঁ … সাঁ …. করছে একান্ত
আবার চিবুচ্ছে গাছের ডালের পাতা
আলাদা হয়ে চলেছে
নিজের বন্ধুদের চেহারা থেকে এক্কেবারে
আলাদা চেহারায় ও বুদ্ধিতে
তাও সে খুশি …
কারণ সে এখন দেখতে
ভেড়ার মত নয়।
ভাবনা
ওই ভেড়াটার ভাবনাটা একটু আলাদা
নিজের দল থেকে এক্কেবারে আলাদা
অর সঙ্গীরা বলাবলি করে-
পাহাড়টা- দেবতা
গাছটা– পিশাচ, প্রেত
কিন্তু ভেড়াটার শুধু মনে হত
“ পাহাড়টার জমি একটু কোথাও উঁচু – নিচু
যেমন আমাদের শরীরের নাক – কান
গাছেরা আমাদের মতই ভেড়া
ব্যস একটা জায়গায় থেমে আছে”
ওর কথাগুলো শুনে সব সঙ্গীরা হাসাহাসি করত
তখন ভেড়াটা উদাস হয়ে যেত
তারপর সে একদিন দেখলো দ্বিতীয় একটা দল
সবাইকার কাছে কম্পিউটার
হাথের মুঠোয় মোবাইল ফোন
ভেড়াটার মনে আশা জাগলো
সে ঠিকঠাক ভিসা পাসপোর্ট নিয়ে
দল বদল করলো
আশ্চর্য় সে বেলুনের মত উড়তে শুরু করলো
যখন সে দেখল যে
আলোয় ভেড়াদের কথাগুলি রকেটের মত উড়ছে
রাতে আবার পাহাড়ে রাখা মাটির টুকরো পুজো করছে
গাছ গুলো কে কেটে বেড়াচ্ছে
ও ফুলগুলি কে চিবিয়ে খাচ্ছে
তাই দেখে ভেড়াটি আবারও উদাস হল
সে এপ্লাই করে ফেললো ভিসা পাসপোর্ট
আবার পুরনো দলে
সামিল হবার জন্য !
অশ্রুর কোষ
একটি অশ্রু
ওর জন্য
যে আপন হল না
একটি অশ্রু
আপন হবার জন্য
অভিনয় করেছে তার জন্য
একটি অশ্রু
নিজের নিজেরই জন্য
বন্ধুত্ত করিয়েছে তার জন্য
অশ্রুর কোষ
ফুরিয়েও গেল।
পথ
অর্ধেক পথ
ঠিকানা জিজ্ঞাসা করতেই কেটে গেল
অর্ধেক
গন্তব্য খুঁজে
গন্তব্য অব্দি
পৌঁছতে পারেনি কি
হারিয়ে গেল
গোটা পথ।
বেঁচে থাকার জন্য
অক্ষরের মাঝে
একটি পাখি
মেশিনের শব্দের মাঝে
সুরেলা স্বরে
এই সব যতেস্ট নয় কি
বেঁচে থাকার জন্য।
এক্ষুনি কেন মরতে যাবো
পায়ের তলায় কিছু সুরসুরির মত
ভূমিকম্প হতে পারে
যে কোনো সময়
ঘটনার সংযোজনা
আকার দেয়
ভবিষ্য কে
যা কিছু হবে
দেখা যাক না
এক্ষুনি কেন মরতে যাবো।
 

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

You may use these HTML tags and attributes:

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>