Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com,science/myth-fact-about-snakes

লোকসংস্কৃতি: বিশ্ব মিথে নাগ । দেবলীনা রায়চৌধুরী ব্যানার্জি 

Reading Time: 2 minutes
চোখ বন্ধ করে একটি অতিকায় দৈত্যাকৃতি সরীসৃপ কল্পনা করার চেষ্টা করুন। ট্রায়াসিক এবং মেসোজোয়িক যুগে প্রায় ৬৯ ফিটের Shashtasaurus, বা প্রায় ৪৯ ফিটের shonisaurus এর মতো। বা Spinosaur বা প্রায় ১০ ফুট এবং Plesiosaur এর কথা। তারা নিঃসন্দেহে ছিল এক একটা সমুদ্র-দানব যারা অনেক সামুদ্রিক প্রাণী এবং মাছকে গ্রাস করেছিল। জুরাসিক ওয়ার্ল্ড মুভিতে একটি ক্ষণস্থায়ী ঝলক শট দিয়ে আমরা এগুলি সম্পর্কে ধারণা পেয়েছিলাম।
কলম্বিয়ার উপকূলীয় অঞ্চলে প্রায় ৪৮ ফুট দৈর্ঘ্য লম্বা টাইটানোবোয়ার খোঁজ পাওয়া গেছিল। দক্ষিণ আমেরিকায় বিশেষ করে অ্যামাজন এবং অরিনোকো অববাহিকায় ৩০ ফুট দীর্ঘ দৈত্যাকার অ্যানাকন্ডা সম্পর্কে কী বলবেন?
আপনারা কি জানেন যে সাপেরা নিজেদের গ্রাস করার চেষ্টা করে? কেন? সাধারনত যদি তারা মানসিক চাপে থাকে অথবা যদি তারা অন্ধ হয়ে যায়, ভুলক্রমে তারা তাদের লেজকে শিকার বলে মনে করে এবং নিজেদের কামড়ানোর এবং খাওয়ার চেষ্টা করে।
এবার বাস্তব থেকে মিথ-এর আলো-আঁধারি জগতে যাই চলুন। কত কিছু আছে তার পরতে পরতে।
কালীয়নাগের কথা মনে আছে নিশ্চই, আর বৃত্রাসুর? কালীয়দমন করেছিলেন কৃষ্ণ আর বৃত্রকে বজ্রের আঘাতে হত্যা করেন ইন্দ্র। আর বাসুকি বা অনন্তনাগের কথা। তারাও ছিল অতিকায় সরীসৃপ। তবে চেনা গল্প নয়, হানা দেব অচেনা জগতে।
Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com
স্লাভিক মিথে পাওয়া যায় বাসিলিস্ক বলে এক অতিকায় নাগকে। একই মিথে আছে ডানাওয়ালা নাগ আস্পিড। প্রাচীন নরওয়ে ও স্ক্যান্ডিনেভিয়াতে প্রচলিত ছিল টিউটনিক রিলিজিয়ন বা লোক সংস্কৃতি ও লোকাচার। এই Norse মিথে আমরা জানতে পারি Midgard serpent বা অতিকায় সরীসৃপের কথা।
এই মিডগার্ড সরীসৃপ নাকি এতটাই বিশাল ছিল যে সে গোটা পৃথিবীর পরিধিকে সম্পূর্ণ ঘিরে থাকে, এবং নিজের লেজটি নিজেই খায়।কথিত আছে এই অতিকায় সরীসৃপকে মারতে চেয়েছিলেন থর (Thor)। ইনি হলেন এই সভ্যতার খুব গুরুত্বপূর্ণ একজন ও বজ্র-বিদ্যুতের দেবতা। অস্ত্র তার জাদু-হাতুড়ি ও লৌহ-দস্তানা। থর কিন্তু popular literature ও কার্টুনেও সংগৃহীত হয়েছেন। নয়? কেন Avengers?
তা থর হাইমির নামক এক বিশাল নরভেজিয়ান দৈত্যের আতিথ্য গ্রহণ করে মিডগার্ড সরীসৃপকে হত্যা করার পরিকল্পনা করতে থাকেন। ভিতু হাইমিরকে থর তার সাথে মাছ ধরতে যেতে বলেন।  টোপ হিসেবে হাইমিরের একটি ষাঁড়ের মাথা কেটে নিয়ে যান। 
মাঝসমুদ্রে যখন তারা নৌকায় বসে, তখন টোপ গিলে উঠে আসে বিশাল সাপটি। তার লেজের ঝাপটায় নৌকা ভেঙে পরে ও থর দেখেন উনি দাঁড়িয়ে আছেন সমুদ্রের তলদেশের মাটিতে। শুরু হয় লড়াই। থর যখন তাকে প্রায় হারিয়ে ফেলেছেন, ভীত হাইমির পালানোর চেষ্টা করেন তাতে থরের মনসংযোগের চ্যুতি ঘটে ও মিডগার্ড পালিয়ে যায়। নরভেজিয়ান বিশ্বাস এই যে এই বিশাল সাপটিকে থর যেদিন মারবেন, সেদিন থরও মারা যাবেন ও পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে। নর্স মাইথোলজিতে এই দিনটিকে বলে  রাগনারক (Ragnarok)।
কোয়েৎসাকাটল নামে এক বিশাল ডানাওয়ালা নাগের কথা আছে মায়া ও ইনকা সভ্যতাতেও। তাদের বিশ্বাস অনুযায়ী তিনি জগত সৃষ্টিতে প্রধান ভুমিকা নিয়েছিলেন।
মিশরীয় মাইথোলজিতে (Oroborus)ওরোবোরাসের কথা। এই সাপটিও ইজিপশিয়ান বিশ্বাস অনুযায়ী নিজেই নিজের লেজ খেত।
অন্তর্নিহিত অর্থ: 
প্রকৃতি বিষয়ক।
● সাপের মুখটি যোনির ও লেজ লিঙ্গের প্রতীক। তাই Ouroborus বা Midgard serpent মহাজাগতিক মৈথুন বা Cosmic Copulation কে বোঝায় যা প্রাণ সৃষ্টির একদম মুলকথা।
● তন্ত্রে যে কুলকুন্ডলিনী শক্তির কথা পাওয়া যায়, তাতেও কল্পনা করা হয় যে মূলাধার চক্র থেকে সহস্রাচক্রে যে শক্তিপ্রবাহ ওঠে, তা সাপের মতোই সর্পিল গতিতে উর্দ্ধমুখে অগ্রসর হয়। 
● পরমাপ্রকৃতির প্রতি ভয় ও শ্রদ্ধা থেকেই জন্ম হয়েছে পুরাণ বা Mythologies এর। তাই পৃথিবীকে ঘিরে সরীসৃপের অবস্থান বা নিজেই নিজেকে গ্রাস করা আসলে প্রকৃতিরই পরিচায়ক রূপক।
প্রকৃতি আসলে Phoenix এর মতো । সৃষ্টি ও ধ্বংসলীলা নিরন্তর চলে। প্রকৃতি সৃষ্টিও হয় নিজের ধ্বংসাবশেষ থেকে। এইভাবে চক্রাকার পথ পরিক্রমণ করে প্রকৃতি কালের হাত ধরে। আর তাই এইভাবেই বাস্তব আর বিশ্বাস মিলেমিশে একাকার হয়ে যায় ।

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

You may use these HTML tags and attributes:

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>