সোহেল আমিন বাবু’র একগুচ্ছ ছড়া

 

তোমার বইয়ের পাতাগুলো

চালতা পারো ফড়িং ধরো

ক্রিকেট খেলো মাঠে
কখনো বা ঊদাস বসে
গড়াই নদীর ঘাটে
ভাবছ তুমি কেমন করে
করবে পড়ালেখা
কোথায় গেলে পাবে তুমি
আসল জ্ঞানের দেখা।
উড়ছে দেখো বালিহাঁস আর
মাছরাঙাটা চুপ
প্রকৃতির এই পাঠশালাটা
বড়ই অপরূপ।
বালিহাঁস আর গাঙচিলেরা
বন্ধু যদি হয়
জেনো তুমি তবেই তোমার
মেধার হবে জয়।
তোমার বইয়ের পাতাগুলো
পড় ভালো করে
অনেক কিছুই জানবে তুমি
বিষয় ধরে ধরে।
স্বাধীন দেশে স্বাধীনতার
কবিতা গান পড়ো
বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা
মেধার জ্ঞানে গড়ো।
পড়ার টেবিল আর চেয়ারে
বাড়াও তোমার ধ্যান
একে একে তোমার মাথায়
আসবে সকল জ্ঞান।

 

আনন্দময় পড়া

যতই চালাও কম্পিঊটার
যতই গেম খেলো
বড় হতে গেলে দু’চোখ
বইয়ের পাতায় ফেলো।
শিক্ষিত আর স্ব-শিক্ষিত
লাগবে হতে বই
উপরে উঠতে গেলে
লাগে যেমন মই।
খেলাধুলার পাশাপাশি
আনন্দময় পড়া
যতই কঠিন হোক না বিষয়
দেবেই মনে ধরা।
কম্পিউটার মুঠো ফোনে
যতই ডুবাও মাথা
বুদ্ধির বিকাশ না হলে
খুলবে মনের খাতা!

 

 

সবাই তোমার আপন হলে

 

গাছের পাতার গান শুনেছো
নিরব ভাষার গান
থাকতে হবে গাছের মতো
মহান উদার প্রাণ।
গান শুনেছো পাখির ঠোঁটে
বুঝতে পারো ভাষা
থাকতে হবে পাখির মতো
নিখাদ ভালোবাসা।
নদীর সাথে বলবে কথা
থাকলে সময় হাতে
চাঁদ মামাকে সঙ্গী করো
চাঁদের আলোয় রাতে।
ডেকেই দেখো সূর্যিমামা
আদর দেবে নেমে
মিঠেল রোদেও খোকন তুমি
যাচ্ছো বুঝি ঘেমে।
সবাই তোমার আপন হলে
মনটা হবে সাদা
তুমিও ঠিক জ্ঞানী হবে
জ্ঞানী যেমন দাদা।

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত