করোনায় বেশ কিছু আইন পরিবর্তনের সুপারিশ আইসিসির

করোনা মানুষের জীবনযাত্রা বদলে দিয়েছে একেবারে। বদল আসছে খেলাধুলার জগতেও। ভাইরাস বিস্তারের ঝুঁকি এড়াতে বাধ্য হয়েই বেশ কয়েকটি নিয়মে পরিবর্তন আনতে হচ্ছে।

ক্রিকেটে কয়েকদিন ধরেই আলোচনায় বল। বলের উজ্জ্বলতা বাড়াতে লালা ব্যবহার করার রীতি অনেক পুরনো। এই লালা থেকে ছড়িয়ে পড়তে পারে করোনাভাইরাস। তাই লালার ব্যবহার নিষিদ্ধ করার পক্ষে-বিপক্ষে কথা চলছে।

এবার আইসিসির ক্রিকেট কমিটিতেও ওঠে আসলো সেই সুপারিশ। অনিল কুম্বলের নেতৃত্বাধীন আইসিসির কমিটি আজ (সোমবার) জানিয়েছে, ক্রিকেট আবারও মাঠে ফিরলে বলে লালা ব্যবহার নিষিদ্ধ করার পক্ষে তারা। শুধু তাই নয়, করোনার কারণে আরও কয়েকটি আইনে পরিবর্তন আনতে যাচ্ছে আইসিসি।

আইসিসির মেডিকেল উপদেষ্টা কমিটির প্রধান ডা. পিটার হারকোর্ট কুম্বলের নেতৃত্বাধীন কমিটিকে জানিয়েছেন, লালার ব্যবহার ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার ঝুঁকি বাড়াতে পারে। তাই কমিটির সবাই একমত, বলের উজ্জ্বলতা বাড়ানোর জন্য আর লালা ব্যবহার করা যাবে না।

তবে মেডিকেল কমিটি জানিয়েছে, ঘামের মাধ্যমে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা কম। তাই বলের উজ্জ্বলতা বাড়াতে ঘাম ব্যবহার নিষিদ্ধের প্রয়োজন দেখছে না আইসিসির ক্রিকেট কমিটি।

আরেকটি গুরুত্বপূর্ণ সুপারিশ তুলে ধরা হয়েছে আম্পায়ারদের ব্যাপারে। যেহেতু করোনার কারণে আন্তর্জাতিক ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা বহাল আছে, তাই কমিটির পরামর্শ হলো, স্বল্প মেয়াদের জন্য সকল আন্তর্জাতিক ম্যাচে স্থানীয় ম্যাচ অফিসিয়াল নিয়োগ দেয়া যাবে। আগে আন্তর্জাতিক ম্যাচে আইসিসির আম্পায়ার থাকার বাধ্যবোধকতা ছিল।

এছাড়াও সুপারিশ করা হয়েছে, আম্পায়ারদের সহযোগিতার উদ্দেশ্যে প্রযুক্তির ব্যবহার আরও বাড়ানোর জন্য। স্বল্প সময়ের জন্য দলগুলোর প্রতি ইনিংসে বাড়তি ডিআরএস (ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম) যোগ করার প্রস্তাবনাও দেয়া হয়েছে। এটি সব ফরমেটেই কার্যকর হবে।

আইসিসি ক্রিকেট কমিটির গুরুত্বপূর্ণ এই প্রস্তাবনাগুলো সংস্থার নির্বাহী কমিটিতে তোলা হবে জুনের প্রথম দিকে। সেখানে অনুমোদন মিললেই মাঠে প্রয়োগ শুরু হবে।

 

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত