ইলিশের টক আর চিংড়ি ভাপা

স্বামী সন্তান সামলে তিনি ভালবাসেন নতুন নতুন রান্না করতে। ভাল কিছু রান্না করা আর গল্প,কবিতা লেখা কিংবা ছবি আঁকার মধ্যে খুব একটা তফাৎ নেই। রান্নাটা একটা শিল্প খুব মনোযোগ ও যত্ন নিয়ে করতে হয় তবেই খেতে বসে প্রশান্তি আসে। কথাগুলি সঙ্গীতা মন্ডলের। তিনি ইরাবতীর জন্যে দিয়েছেন দুটি বাঙালির মুখরোচক মাছ রান্নার রেসিপি।

 

ইলিশের টকঃ

প্রথমে একটু তেঁতুল জলে ভিজিয়ে রাখতে হবে।(তেঁতুল কিন্তু খুব কম লাগে।তাই অল্পই ভেজাতে হবে।)

ওই তেঁতুল গোলা জলে একটু হলুদ,লঙ্কাগুঁড়ো,জিরে গুঁড়ো মিশিয়ে রাখতে হবে।

এবার হালকা ভেজে ইলিশগুলো তুলে রাখতে হবে।

কড়াইতে সর্ষের তেল গরম করে অল্প সর্ষে, শুকনো লঙ্কা ফোরণ দিতে হবে। এবার ওই তেঁতুল জলটা ঢেলে দিতে হবে। কাঁচা লঙ্কা দেওয়া যেতে পারে চাইলে। ফুটে উঠলে মাছগুলো দিয়ে,নুন আর মিষ্টি দিতে হবে।

খানিক পর মাছগুলো একবার উল্টে দিয়ে ,ঝোল একটু ঘন হয়ে এলে গ্যাস অফ করে ঢেকে দিতে হবে। খানিক পরে নামিয়ে নিয়ে পরিবেশন করুন ইলিশের টক।

 

 

 

চিংড়ি ভাপাঃ

প্রথমে চিংড়িমাছ গুলো ভালো করে ধুয়ে তাতে একটু সর্ষে বাটা,কাঁচালঙ্কা বাটা, নুন,হলুদ দিয়ে মাখিয়ে রাখতে হবে।

এবার কড়াইতে সর্ষের তেল দিয়ে তাতে সামান্য কালোজিরা ফোড়ন দিতে হবে।

কালোজিরা থেকে গন্ধ বেরোতে শুরু করলে মেখে রাখা চিংড়িগুলো ঢেলে দিতে হবে।

চেরা কাঁচালঙ্কা দিয়ে ঢেকে দিতে হবে।

মাঝারি আঁচে হবে এটা।

কিছুক্ষন পর (১০ মিনিট)ঢাকা তুলে নুন মিষ্টি ঠিক আছে কিনা দেখে নিতে হবে।

বেশ গা মাখা মতন হয়ে গেলে,ওপর থেকে একটু সর্ষের তেল ছড়িয়ে ,গরম ভাতে পরিবেশন করুন “চিংড়ি ভাপা”।
(যারা রান্না করতে ভালবাসেনা বা যারা নতুন রাঁধুনি তারাও খুব অনায়াসেই এটা try করে দেখতে পারেন)

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত