| 26 মে 2024
Categories
ইতিহাস ট্রেন্ড ভ্রমণ

বিশ্বের দীর্ঘতম বাসযাত্রার গল্প : লন্ডন টু কলকাতা

আনুমানিক পঠনকাল: 2 মিনিট

একটি ছবি সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ছবিটি লন্ডন এবং কলকাতার মধ্যকার বিশ্বের দীর্ঘতম প্রথম বাসযাত্রার ছবি। ছবিতে দেখা যায় লন্ডনের ভিক্টোরিয়া কোচ স্টেশন থেকে যাত্রীরা তখন বাসে উঠছিলেন।

Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com
ইতিহাসবিদদের মতে, ষাটের দশকের শেষ দিকে‌ ‘আলবার্ট’ নামে একটি দোতলা বাস ভারত এবং ইংল্যান্ডের মধ্যে চলাচল শুরু করে।
কলকাতা এবং লন্ডনের মধ্যকার দীর্ঘতম সে যাত্রায় মাথাপিছু ভাড়া ছিলো ৮৫ পাউন্ড বা ৭৮৮৯ রুপি। সে সময়ের তুলনায় যা ছিলো যথেষ্ট ব্যয়বহুল।
হাই রোড ফর ওজ’ এর দাবি অনুসারে ‘আলবার্ট’ এর প্রথম যাত্রা সূচিত হয়েছিলো ১৯৬৮ সালের ৮ অক্টোবর। সিডনির মার্টিন প্লেস জেনারেল পোস্ট অফিসের সামনে থেকে আলবার্ট তার প্রথম যাত্রা শুরু করে যা ১৩২ দিন পর ১৯৬৯ সালের ১৭ ফেব্রুয়ারি লন্ডনে এসে শেষ হয়।
ভ্রমন বিষয়ক ওয়েবসাইট ‘হাই রোড ফর ওজ’ দীর্ঘতম এ যাত্রাটিকে ‘এপিক এডভেঞ্চার’ নামে সংজ্ঞায়িত করে। Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com
১৯৭৬ সাল পর্যন্ত সিডনি থেকে লন্ডন আরও ১৪ টি সফল যাত্রা আলবার্ট বাসের জন্য এটি একটি দুর্দান্ত ঘটনা হয়ে রইলো।
আলবার্ট ট্যুর নামে লন্ডন,কলকাতা এবং সিডনির মধ্যকার নিয়মিত সেবার জন্য বছরব্যাপী সূচি তৈরি করা হয়েছিলো। হাই রোড ফর ওজ’র সূত্রমতে ৪,৫,৬,৭,৮,৯ নাম্বার ট্রিপগুলি সরাসরি সিডনি গিয়েছিল এবং ১২,১৩,১৪ এবং ১৫ নাম্বার ট্রিপ সম্পন্ন হয়েছিলো লন্ডন ও কলকাতার মধ্যে। ভারত পৌঁছে বাসটি দিল্লি, আগ্রা,বেনারস এবং কলকাতায় যাত্রা বিরতি দিতো।
সূচি থেকে জানা যায়; ১৯৭২ সালের ২৫ জুলাই লন্ডন থেকে যাত্রা শুরু করে ৪৯ দিন পর যাত্রীরা দুঃসাহসিক এক ভ্রমণ শেষ করে ১৯৭২ সালের ১১ সেপ্টেম্বর কলকাতা এসে পৌঁছায় ।
দীর্ঘযাত্রায় ক্লান্তিবোধ এড়ানোর জন্য বাসটির নিচের তলায় রিডিং রুম, ডাইনিং রুম, আলাদা ঘুমানোর জায়গা, যাত্রীদের উষ্ণ রাখার জন্য ফ্যান হিটারের ব্যবস্থা ছিলো। বাসটির নান্দনিক অন্দরসজ্জা আভিজ্যাত প্রকাশের পাশাপাশি যাত্রীদের মুগ্ধ করতো সেসময় ।Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com
ভ্রমণপথে বাসটি কোনরকম গুরুতর নিরাপত্তা তল্লাশির জন্য বাঁধা পেতো না। ঘুষ বিনিময় ছাড়াই ১৫০ টির বেশি সীমান্ত অতিক্রম করেছে বাসটি; সেইসাথে দেশগুলোতে বন্ধুত্বপূর্ণ দূতের সম্মানও পেয়েছে।
সেন্ট্রাল ওয়েস্টার্ন ডেইলির তথ্যমতে,কলকাতা-লন্ডন রুটে ১৫ বার এবং লন্ডন-সিডনী রুটে ৪ বার ২১ বছর সন্তোষজনক সেবা দেবার পর বাসটি দুঘর্টনায় পড়ে। দুঘর্টনায় পড়ে বাসটি চলাচলের অনুপযুক্ত হয়ে পড়ে। পরে এ্যান্ডি স্টিউয়ার্ট নামের লন্ডন ফিরতে আগ্রহী এক ব্রিটিশ ভ্রমণকারী ১৯৬৮ সালের মে মাসে বাসটি কিনে নেন। স্টিউয়ার্ট এটিকে ভ্রাম্যমাণ বাড়িতে রূপান্তর করেন এবং ওই বছরের অক্টোবর মাসে আরো ১৩ জনকে সঙ্গী করে বাসটি সিডনি থেকে ইন্ডিয়া হয়ে লন্ডনের উদ্দেশ্যে শেষবারের মতো যাত্রা শুরু করে। ১৬ হাজার কিলোমিটারের দীর্ঘযাত্রা শেষে বাসটি তাঁর গন্তব্যস্থলে পৌঁছায় ।

 

সুত্র : ইন্ডিয়া টুডে

অনুবাদ : নয়ন রহমান

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত