| 5 মার্চ 2024
Categories
সময়ের ডায়েরি

মৃত্যুরদিকে হাত বাড়িয়েছি আমরাও

আনুমানিক পঠনকাল: < 1 মিনিট

কিছু কিছু মানুষের মৃত্যু অনেক তাৎপর্যময় হয়ে ওঠে। মানুষকে ব্যথা দিয়ে যায়, উম্মাদ করে ফেলে। সিকদার ভাইয়ের সাথে আমার যেটুকু স্মৃতি তা নিয়ে একটা রচনা তৈরি হতে পারে না। কিন্তু তার চলে যাওয়ায় সকল কাছের মানুষের মতো সমান কষ্ট আমাকেও পেতে হয়েছে। সিকদার ভাইয়ের সাথে আমার যেটুকু সখ্যতা ছিলো তার সবটুকুই ভালোবাসা আর সম্মানের।

২০১২ সালের কথা, আমি তখন ঢাকায় ফাইনালি আসি আসি করছি। আমাদের পিরোজপুর শহরের শেরে বাংলা পাবলিক লাইব্রেরীর জন্য ৫০ হাজার টাকার বই কেনা হবে। লাইব্রেরীয়ান রব স্যার আমাকে বললেন ভালো কিছু বইয়ের একটা তালিকা করে দিতে। আমি একটা তালিকা করে দিলাম। স্যার সেই তালিকা নিয়ে ঢাকায় এসে সিকদার ভাইর হাতে দিলেন, বইগুলো জোগাড়যন্ত্র করার জন্য। তালিকার সকল বই সরবরাহ করার সময় নাকি সিকদার ভাই রব স্যারের কাছে জানতে চেয়েছিলেন তালিকাটি কার তৈরী করা। স্যার তখন বললেন মাহফুজ পাঠক নামে একটা ছেলে, সাংবাদিকতা করে। সিকদার ভাই তখন স্যারকে বলেছিলেন আমি দেশে বিদেশে অনেক প্রতিষ্ঠানে বই পাঠাই, আপনি জানলে অবাক হবেন এমন সমৃদ্ধ তালিকা আমার হাতে কমই পড়েছে।

আমি তখন নাঈমুল ইসলাম খানের দৈনিক আমাদের অর্থনীতির পিরোজপুর প্রতিনিধি এবং বাবুই নামে একটা সাহিত্য পত্রিকার সম্পাদক। একদিন একজন ফোন করে আমাকে বললেন আমি সিকদার আবুল বাসার গতিধারার প্রকাশক, আমি বললাম আমি আপনাকে চিনতে পেরেছি ভাইয়া। আমি এখন কি করছি সব জানতে চাইলেন, বললেন তোমার বাবুই পত্রিকার জন্য আমি কিছু টাকা পাঠাতে চাই, আমি বললাম আমি এভাবে টাকা নিতে চাইনা ভাইয়া, আপনি বিজ্ঞাপন দিয়ে সহযোগিতা করতে পারেন। সে মানুষটি কিন্তু তখনও পত্রিকা কিংবা আমাকেও দেখেননি, অথচ হেল্প করতে চেয়েছিলেন।

২০১৪ বইমেলায় একবারে ঢাকায় চলে আসলাম বইমেলায় তার স্টলে বসলাম। কিন্তু সিকদার ভাইকে কখোনো বইমেলায় আসতে দেখিনি। প্রচ্ছদ, মূদ্রণব্যবস্থা তথা বাংলাদেশের প্রকশনা নিয়ে তার অনেক স্বপ্ন ছিলো। তার স্বপ্ন একদিন পুরণ করবো আমরা।

 

 

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

error: সর্বসত্ব সংরক্ষিত