অণু কবিতা

১.
তুমি লেখো রাত, আমি
বলি কাটাকুটি ভাল নয়,
সেও এক ধোপাবাড়ি যার
ভেতরে জমেছে উলের কাপড় শীতে
পরবে বলে কেউ নামিয়েছে ওম।

২.
উষ্ণ ঘরের আশায় বাঁচো
শীতল সম্পর্কে।

৩.
মরেও গেলেও হয়
না মরেও বাঁচো
এই তো মরাবাঁচা
এক নদী বহমান।

৪.
হুইসেল ডাকা ভোরে
ঘুমচোখে দেখো ওখানে ঈশ্বর
কেমন নিশ্চিন্তে থাকে!
আরও দুঃশ্চিন্তা হয় কখন
ফুরিয়ে আসে আয়ু!

৫.
আমার শব্দগুলোর পাশে 
পাহারা দেয় বন্ধুদের মুখ
ওদের বলি এই হোল আলো,
ওরা বলে অন্ধকার। 
আমি বলি নক্ষত্র
ওরা বলে আকাশ।

৬.

ঘুমিয়ে পড়েছি আমি

স্মৃতির ভেতরে, অন্ধ

স্বপ্নগুলো জমা দিয়ে

রাত পাহারাদারকে।

৭.

রাত্রি কি শব্দের বাহন, যেন

ঘোচাবে সকল পাহাড়সম দূরত্ব?

তুমি কি শুনেছো সে পাখির কান্না

যে কিনা প্রহরে ডেকে ওঠে!

৮.

আমার আত্মাকে আমি

খাচাবন্দি করে রাখি এক পিঞ্জরায়

যা কিনা ভঙ্গুর, মজবুত নয় মোটেও

ভেঙ্গে যেতে পারে এক্ষুনি!

৯.

এক সাদা আকাশ নীলাভ, মেঘগুচ্ছ

যেন ডাকে তোমাকে, পৃথিবী

ঘুমিয়ে পড়েছে যেখানে।

১০.

দিন চোখ বন্ধ করলেই

রাত তার চোখ খোলে

কেউ কাউকে দেখতে পায় না ঠিকই

তবে তাদের বেঁধে রাখে নক্ষত্র,

অক্ষরেখা বরাবর, যে যার দূরত্বে।

 

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত