Irabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com,Assamese Poet Sananta Tanty

অনুবাদ কবিতা: সনন্ত তাঁতির অসমিয়া কবিতা । বাসুদেব দাস

Reading Time: 3 minutesIrabotee.com,irabotee,sounak dutta,ইরাবতী.কম,copy righted by irabotee.com

কবি ১৯৫২ সনের ৪ নভেম্বর অসমের করিমগঞ্জের কলিঙ্গ নগর চা বাগানে সনন্ত তাঁতির জন্ম হয়। প্রকাশিত কাব্যসঙ্কলনগুলি যথাক্রমে কাইলোর দিনটো আমার হব, উজ্জ্বল নক্ষ্ত্রর সন্ধানত,মই মানুহর অমল উৎসব,আপুনি আপোনার স’তে যুদ্ধ করিব পারিব নে,শব্দত অথবা শব্দ হীনতাত ইত্যাদি।২০১৭ সনে আসাম ভ্যালি লিটারেরি সম্মান এবং ২০১৮ সনে সাহিত্য আকাদেমি পুরস্কারে সম্মানিত হন।


    কেবল কবিতার জন্য তোমার ভেতরে গিয়ে আমি বিদ্রোহ করব।বিদ্রোহের সূচনা করব জীবনের সমূহ যাত্রার উদযাপিত নিবিড়তাকে ভেঙ্গে নিজের রক্তে যদি কবিতাকে বন্দি কর যদি লিখতে না দাও কবিতা যদি সংবাদ শিরোনামে লেখ সন্ত্রাসবাদ।যদি নগরে কার্ফু জারি কর। তোমার ভেতরে গিয়ে আমি বিদ্রোহ করব এই ইচ্ছা আমার মতো সমস্ত কবির। রক্তবৃষ্টি হবে।আকাশ ধোঁয়াবর্ণ হবে। নগর উত্তাল হবে।সমুদ্র হবে মানুষ। যদি নগরের কথা বল নগর কবিতা হবে একদিন।   তোমার ভেতরে গিয়ে আমি বিদ্রোহ করব।বিদ্রোহের সূচনা করব। যদি বন্দুক দেখিয়ে আমাকে শাসন কর চিরকাল। ধোঁয়ার বর্ণ হবে আকাশ। রক্ত বৃষ্টি হবে। নগর উত্তাল হবে। সমুদ্র হবে মানুষ।   জীবনের রক্তে জীবনের কবিতা লিখতে না দিলে তোমার বদলে তোমারই সিংহাসনে বসবে মানুষ। কেবল কবিতার জন্য।         আমি নিরন্তর চঞ্চল হয়ে   আমি নিরন্তর চঞ্চল হয়ে নিরন্তর আমাকেই খুঁজে চলেছি তোমার মধ্যে তোমার প্রজ্বলিত চোখ দুটিতে তোমার নিশ্বাসে তোমার হৃদস্পন্দনে আমি নিরন্তর আমাকেই খুঁজে চলেছি আগুন লেগে ধ্বংসপ্রাপ্ত হওয়া স্থানে ঘোড়া মাড়িয়ে যাওয়া ভুবন আন্দোলিত যুদ্ধের স্মৃতিতে কবিতার অনুষ্ঠানে আমার কণ্ঠ নিঃসৃ্ত শব্দগুলির মধ্যদিয়ে প্রজ্বলিত করেছি আমার ইচ্ছাকে প্রতিদিন তোমার মধ্যে   আমার ভেতর থেকে নির্গত অবিরাম শব্দপুঞ্জের স্রোতে আমি নিজেই ভেসে এসেছি ঘনায়মান অন্ধকারে দৃষ্টি নিবদ্ধ করে আমি নিরন্তর আমাকেই খুঁজে চলেছি তোমার মধ্যে তোমার প্রজ্বলিত চোখদুটিতে তোমার নিশ্বাসে তোমার হৃদস্পন্দনে আমি নিরন্তর আমাকেই খুঁজে বেড়াচ্ছি চঞ্চল হয়ে তোমার মধ্যে       তুমি সুখে আছ   তুমি সুখে আছ।তোমার ঘরের ষোলো বাই ত্রিশ ড্রইং রুম থেকে দেখা যায় সজ্জিত কিচেন দামী কাপডিশ কিচেন এপ্লায়েন্স এয়ারকুলার আর নতুন রেফ্রিজারেটর। কামাল হ্যায় তোমার দশহাজারি উডেন ডাইনিং টেবিল।   তুমি সুখে আছ।তোমার ঘরে ঢুকেই দেখেছি তুমি শুয়ে আছ কোমল ডিভানে।হাতে লেনিন। কাছেই রাখা আছে গ্রেট মাস্টার্স। তোমার ড্রইং রুমে বসতে পারে পঞ্চাশজন মানুষ।অথচ কোমল সোফায় আয়োজন আছে মাত্র পাঁচজন বা সাতজন প্রেমিক প্রেমিকার আসন।   তোমার ড্রইং রুমে মিউজিক সিস্টেম আর কালার টেলিভিশন ভিসিপিতে চলতে থাকে নীল সিনেমা । আমি দেখেছি তুমি ও তোমার ওয়াইফ প্রাপ্তবয়স্ক সন্তানের সঙ্গে উপভোগ করে চলেছ যৌনমুখর দিন। হাতে লেনিন।কাছেই সযত্নে লালিত টবে অনবদ্য অর্কিড। তোমার সৌন্দর্য চেতনার কথা আমাকে অকস্মাৎ মনে করিয়ে দেয়।   তুমি সুখে আছ।সৌভাগ্যের সমস্ত পুরস্কার গ্রহণ করে ভ্রমণ করেছ বিদেশ। লেনিন এখন তোমার মাথার ওপরে ষোলো বাই ত্রিশ ড্রইং রুমে।       আগুনের ভেতরে শিখার মতো   আগের মতোই আছি আগুনের ভেতরে শিখার মতো তুমি ডাকলেই যেভাবে আমি আগুন হয়ে জ্বলে উঠেছিলাম। দুর্বিনীত হয়ে ভেঙ্গে ফেলেছিলাম প্রেম। দ্রোহী হয়ে মুখর করেছিলাম অন্ধকার। জীবনে ব্যাপ্ত হয়ে উঠেছিলাম। তুমি ডাকলেই যেভাবে আভাস পেয়েছিলাম পদচালনার। রাত্রিকে অনাদরে স্পর্শ করেছিলাম। মাথা তুলে দাঁড়িয়ে আকাশ স্পর্শ করেছিলাম। সমুদ্র হয়ে ফুলে উঠেছিলাম। আগের মতোই আকাশ এবং সমুদ্রের মধ্যে আছি।বাতাসের স্পর্শে ঘূর্ণায়মান শব্দগুলির আবিষ্কারে। তুমি ডাকলেই যেভাবে দুরন্ত হয়ে দৌড়ে এসেছিলাম তোমার পাশে।উদ্যত কণ্ঠে প্রবেশ করেছিলাম ভেতরে। তুমি ডাকলেই যেভাবে সময় স্তব্ধ করে তুলেছিলাম। আগের মতোই আছি জীবন এবং মৃত্যুর সম্পর্কের মতো অনুশোচনাহীন।       প্রিয় মুখ্যমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে   প্রিয় মুখ্যমন্ত্রী নিজস্ব কক্ষপথে আপনি একদিন সান্ধ্য ভ্রমণ করুন সঙ্গে সভাসদ নাহলে কিছু কুশলী যোদ্ধাকে নিয়ে রাজ্যের প্রধান শহরের আবহাওয়ার খবর নিন আমরা কবি এবং নাগরিকবৃন্দ মিলিত সহযোগিতায় আপনার জন্য নির্মাণ করেছি পথঘাট সেতু এবং কালভার্ট   আপনার জন্য চারপাশে যৌনসভা পতিতার শোভাযাত্রা আপনার জন্যই পত্রিকা বিপনিতে অশ্লীল শব্দের সম্ভার টেপরেকর্ডারের গানে অহোরাত্র নর ও নারীর প্রলাপ তাই সান্ধ্য ভ্রমণ করুন প্রিয় মুখ্যমন্ত্রী আমরা কবি এবং নাগরিকবৃন্দ আপনার দৃষ্টি আকর্ষণ করছি কিছুদিন ধরেই আপনার রাজ্যের আধিয়ার কৃষক এবং কিছু কর্মহীন শ্রমিক আত্মহত্যা করেছে গৃহস্থ ঘরে আকাল অনেক শিশুর প্রাণনাশ চারপাশে খাদ্যের পরিবর্তে যৌন আলোচনা   প্রিয় মুখ্যমন্ত্রী নিজস্ব কক্ষপথে আপনি একদিন সান্ধ্য ভ্রমণ করুন সঙ্গে সভাসদ নাহলে কিছু কুশলী যোদ্ধাকে নিয়ে রাজ্যের প্রধান শহরের আবহাওয়ার খবর নিন আমরা কবি এবং নাগরিকবৃন্দ মিলিত সহযোগিতায় আপনার জন্য নির্মাণ করেছি পথঘাট সেতু এবং কালভার্ট সম্ভব হলে সাহিত্যের মর্গে যাবেন যদি সম্ভব নাহয় তাহলে শব্দ বিপনিতে শুনবেন আলাপ সংলাপ   যদি ভালো লাগে এসব লিখবেন নিজস্ব ডায়েরিতে যদি বেদনাবোধ করেন বিহিত ব্যবস্থা নেবেন   কাল খবর বেরুবে মুখ্যমন্ত্রীর ভ্রমণকালে কিছু ব্যাধি যেমন সিফিলিস গনোরিয়া আদি আত্মহত্যা করেছে সাহিত্য বিপনির দরজা জানালা বন্ধ হয়েছে।          

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

You may use these HTML tags and attributes:

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>