চশমা

ছোটবেলা থেকেই চশমার প্রতি আমার দুর্বলতা এবং যারা চশমা পড়েন তাদের প্রতিও একটা বিশেষ টান   … আমার মনে হয় চশমা এক প্রকার বিশেষ কুয়াশা যা শীত গ্রীষ্ম বর্ষা প্রতিটি ঋতুতে মানুষকে একটা অন্য রকমের বন্য সৌন্দর্য দ্যায় ।

 

ছুঁতে চাই অথচ ছুঁতে পাই নাএরকম এমন একটা শিরশিরে গুলমোহরের নাম চশমা .।। বাই দ ওয়ে , এই মুহূর্তে একটি প্রশ্ন আমার মাথায় এলো … আচ্ছা , আপ্নারা বলুন তো … ,চশমার ভেতরের চোখ এবং বাইরের চোখটি কি একই রঙের কথা বলে ? নাকি একটির রঙ সাদা আর অন্যটি লাল  … অথবা ধরুন , যারা চশমা পড়েন না তাদের চোখ কেমন করে কথা বলে ? চশমা ছাড়া চোখ কথা বলে কি আদউ ? না ,আমার প্রশ্নগুলির উত্তর দেবে এমন চোখই আমি খুঁজে পেলুম না … যাদের চশ্মা আছে আর চোখ নেই … তাদের মনে বুঝি মাইওপিয়া নেই ? ভাবুন তো তাদের বৃষ্টিহীনতা কতখানি … না । থাক এ সব আলোচনা । বড় জটিল , বড্ডো জটিলচোখ , চশমা এবং আমার চিন্তাভাবনার এই মাইটোপিকবৃত্ত

 

আমার কথাই ভাবুন … ভাবুন । চল্লিশের পরে প্রেম আর চশমা আজকাল এমন গুলিয়ে গেছে যে এখন আর দুটোকে আলাদা করতে পারি না শ্রেষ্ঠ প্রেমিকের দলে ভিড়ে গেছে নানা মিনারের ফ্রেম নানা রঙের কল্পনা প্রেম তো আর এক জায়গায় দাঁড়িয়ে থাকে না ছুটোছুটি করে চশমার পাওয়ারের মতোকর্মব্যস্ত যোগী কখনও ভিখিরি রাজপ্রাসাদকখনো বাইফোকালের ময়ূরবিহারীপাখা তুলে নাচ দেখাচ্ছেদূর থেকে যাকে দেখছি সে স্পষ্ট অথচ জেই সে কাছে আসছে , দেখি  একগোছা হরিণ চোবানো ট্র্যাজেডি … আরেক্তু কাছে ।। মাই গুডনেস … এ যে কমেডির পায়রা ।।ধরতে না ধরতেই উড়ে যাচ্ছে …

 

নিজের চোখ থেকে চোখ হারাইনি বললে মিথ্যে বলা হবেআর মন ? আহা ! সে কি নতুন করে হারাবার জিনিস গো ? সেতো হারিয়েই আছেদুয়ারটুকু শুধু খোলার অপেক্ষা খুলে দি তবে স্বপ্ন ভাঙার ভয়ভয় খোলার ভয়চশমা কি হারায়না ? হারায় তো ! নাকি শুধু স্মৃতি হারিয়ে যায় কাচ থেকে , বুক থেকে , ভালোবাসার পকেট থেকেরিমঝিমের পলক  …

 

না দেখার ঘুমে ভাবতে থাকি , আহা ! ঘুণপোকার বাড়ি অব্দি আমার যদি একটা চশমা থাকতো …..সাজানো গোছানোএকদিন তো জেগে জেগে স্বপ্নই ফেল্লুম ।অবশেষে আমার চোখ খারাপ হয়েছে অবশেষে , সবাইকে দেখছি অথচ কাউকে দেখছি না যাদের দেখতে পাচ্ছি তাদের পাচ্ছি না খুঁজে .. আর যাদের খুঁজে পাচ্ছি তাদের দেখতে চাইছি না মোটেওঅভিমানের কুলুপে বসে আছি ডাক্তারের সামনে

 

দেখুন , ক্লিয়ারলি দেখতে পাচ্ছেন এখন মিসেস ঘোষ ? কিছু করতে হবে নাআপনি শুধু পড়ে যান ….. দেওয়ালে টানানো চশমাকটি .পড়ুন ঠিক করে । ক্লিক করে দেখুন তো একবার । ভিবজিওরের মাউজটি , আর তার সেন্ট্রাল লোকেশনের রামধনুটি স্পর্শ করতে পারছেন তো চোখ দিয়ে ?

ডাক্তারবাবুর চোখ আর আমার চোখ মাঝখানে দুলছে নতুন একটি চশ্মা স্কাইব্লু ফ্রেম ঝকঝকে ক্লিয়ারসিল আকাশ দেখতে পাচ্ছি সব স্পষ্ট পড়ে ফেলছি নিপুণ বর্ণমালা তে খেলা নয় ? তাই তো পড়েছিলুমতাহলে পড়াশুনো কিছুই নয়এতকাল খেলাই ছিল সবখেলাঘরের চশমাটি আমার শিশুকাল কুড়নোঅজস্র শিউলিফুল , মাটিমাটি গন্ধ সেই কবে থেকে আমার পিছুই ছাড়ছে না ..

.

সব দেখতে পাচ্ছি সমুদ্রের আকারে এমনকি ঢেউয়ের শব্দও দেখতে পাচ্ছি অথচ ডাক্তারকে বলছিকিছু দেখতে পারছি না ডাক্তারবাবুএমনকি চোখ দিয়ে কাউকে স্পর্শও দিতে পারছি নাপ্লীজ হেল্প

 

ওকে ওকেআশ্বাস দিচ্ছেন ডাক্তারবাবুনতুন শিশিরের অশ্বশক্তি দিচ্ছি আপনাকেএবার দেখুন তো ইজ ইট  ক্লিয়ার নাউ ? …

 

না তো ঝাপসা এখনোস্পষ্ট হচ্ছে না কিছুতেইধোঁয়া ধোঁয়াহাল্কা রঙিন আর হতাশা রঙের কালো মিশে কেমন একটা ছন্নছাড়া রঙচশমা চাই আমার ডাক্তারবাবুচশমা পড়তেই হবেপড়তেই হবেপ্লীজ ডু সামথিং

 

ডাক্তারবাবু হাসছেনজানেন তো ? দেখানাদেখাটাই আসলে এক প্রকার খেলাআমার , আপনারআমাদের প্রত্যেকের এই খেলারোগ আছে। চশমা দিয়ে যাকে দেখি বা যতটুকুই দেখি তা দেখা নয় আসলে দেখার ভান মাত্র অনেকখানি ফাঁক থেকে যায় এই সব দেখা আর নাদেখায়আর বেশ কিছুটা ফাঁকির ফায়ারপ্লেস ..

 

আর একটা কথা মনে রাখবেন , চশমা যতখানি রোদ তার তিন ডাবল মেঘলাআপনার খুব চশমার শখ বুঝি ? …

 

আপনি শান্ত হয়ে একটু বসুন তোএই তো দেখুন কত কত চশমা ! আপনার দৃষ্টির সামনে , দৃষ্টির আড়ালে গ্লোবের মার্জিনে , গ্লোবিউলে  …অচেনা আখরোটের সোনালি পেস্তায় … কত রকমের গালিব কত ডজনের মীর্জা … দেখুন কোন চশমাটি আপনার সাথে গজলের অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিচ্ছে সাবধানে …

মিসেস ঘোষ , দেখুন চশমারা সবাই আপনার চোখের মহল্লায় ভ্রু ভাঙছে … এখন শুধু আপনার নিজস্ব চোখটি পছন্দ করা শুধু বাকি ..

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত