সেলফির জন্য শিশু ডলফিনের মৃত্যু

আরও একবার ভয়ংকর অমানবিকতার সাক্ষী থাকল পৃথিবী। ছোট্ট পুঁচকে একটা ডলফিন। আর সেলফি তোলার নেশায় তাকেই মেরে ফেলল হিংস্র মানুষ!

আরও একবার ভয়ংকর অমানবিকতার সাক্ষী থাকল পৃথিবী। ছোট্ট পুঁচকে একটা ডলফিন। আর সেলফি তোলার নেশায় তাকেই মেরে ফেলল হিংস্র মানুষ! ঘটনাটি ঘটেছে আর্জেন্টিনার বুয়েনস এয়ারসের সান্তা টেরেসিটা নামক সৈকত শহরের এক বিচ রিসর্টে। রিসর্টের বিচে স্নান করতে নেমেছিলেন একদল পর্যটক। সেখানেই হঠাৎ একজনের চোখে পড়ে যায় তীরের কাছেই পুঁচকে ডলফিনটার উপর। ব্যস, আর যায় কোথায়! সঙ্গে-সঙ্গে তাকে তীরের আরও কাছে নিয়ে আসে জনতা, ভিড় জমে যায় তাকে ঘিরে। স্নান করতে আসা জনতা জীবন্ত এমন এক ‘আশ্চর্য’, থুড়ি ডলফিনটিকে পেয়ে লোভ সামলাতে না-পেরে উত্তেজিত হয়ে তার সঙ্গে সেলফি তুলতে নেমে পড়ে। কেউ-কেউ আবার তার নাকও চেপে ধরে নানাভাবে তাকে বিরক্ত করতে থাকেন। ভিড়ের চাপে যখন সে নেতিয়ে পড়ে, তাকে জলে ফিরিয়ে দেওয়ার কোনও চেষ্টা না করে, শেষমেষ তাকে তীরের কাছে কাদায় ফেলেই চলে যায় সকলে। সেখানেই জলের অভাবে মারা যায় বাচ্চা ডলফিনটি। ভয়ংকর এই ভিডিয়োটি এর মধ্যেই ভাইরাল হয়ে গিয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়। মাত্র কয়েক ফুট দৈর্ঘ্যের বাচ্চা ডলফিনটি বিরল ‘লা-প্লাতা’ বা ফ্রান্সিসকানা প্রজাতির অন্তর্গত। সারা পৃথিবীর মধ্যে একমাত্র আর্জেন্তিনা, উরুগুয়ে ও ব্রাজিলের সমুদ্র সৈকতেই দেখা মেলে এদের। অমানবিকতার এই চরম নিদর্শন দেখে ইতিমধ্যেই মুখ খুলেছেন সে দেশের বন্যপ্রাণ দফতরের কর্তারা। ঘটনার প্রতিবাদে উঠে-পড়ে লেগেছেন গোটা পৃথিবীর পশুপ্রেমিকরা।

সূত্রঃ জি নিউজ

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত