লজ্জায় ফেলতে গিয়ে লজ্জায় পড়তে হলো

লর্ডস টেস্টের প্রথম দিনে বিশ্ব চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডকে ৮৫ রানে অলআউট করে ইতিহাস গড়ার ইঙ্গিত দিয়েছিল আয়ারল্যান্ড। শেষ পর্যন্ত আয়ারল্যান্ড উল্টো লজ্জার ইতিহাস গড়ল। আইরিশরা দ্বিতীয় ইনিংসে অলআউট হয়েছে মাত্র ৩৮ রানে! লর্ডস টেস্ট হেরেছে তারা ১৪৩ রানে। রান ও বলের হিসাবে স্বল্পায়ু টেস্ট ইনিংসের রেকর্ড ধরে নাড়াচাড়া করতে হলো ক্রীড়া সাংবাদিকদের।

টেস্ট ইতিহাসে এক ইনিংসে সর্বনিম্ন স্কোর যদিও ২৬, নিউজিল্যান্ডের। ৬৪ বছর ধরে লজ্জার রেকর্ডটা কিউইদের অধিকারে!

ইংল্যান্ড ক্রিকেট ইতিহাসের অন্যতম সেরা কামব্যাক টেস্ট জয় এটি। ১৯০৭ সালে সাউথ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ৭৬ রানে অলআউট হয়েও শেষ পর্যন্ত ম্যাচ জিতেছিল ইংল্যান্ড। তেমন ঘটনা দ্বিতীয়বার ঘটালো তারা। সব মিলিয়ে টেস্ট ক্রিকেটে এটি পঞ্চম সর্বনিম্ন প্রথম ইনিংস স্কোরের পরও কোনো দল ম্যাচ জিতল।

১৫.৪ ওভারেই অলআউট হয় আয়ারল্যান্ড। লর্ডসে দ্বিতীয় সর্বনিম্ন স্কোরে অলআউটের রেকর্ড লেখা থাকল তাদের নামের পাশে। এর আগে ১৯৭৪ সালে এই ইংল্যান্ডের কাছেই লর্ডসে ৪২ রানে অলআউট হয়েছিল ভারত এবং সেটা আরও কম বলে (মাত্র ৯৪ বলে)।

সবমিলিয়ে সপ্তম সর্বনিম্ন ইনিংস এই ৩৮ রান। একনম্বরে আছে নিউজিল্যান্ডের ২৬ রানে অলআউট হওয়া। এই ইংল্যান্ডের বিপক্ষে অকল্যান্ডে ১৯৫৫ সালে লজ্জার রেকর্ড গড়ে কিউইরা। এরপর সাউথ আফ্রিকা দুইবার ৩০ রানে অলআউট হয় ইংলিশদের কাছে ১৮৯৬ ও ১৯২৪ সালে। ১৮৯৯ সালে একবার ইংল্যান্ডের কাছে ৩৫ রানে অলআউট হয় প্রোটিয়ারা। ১৯৩২ সালে অস্ট্রেলিয়ার কাছেও ৩৬ রানে অলআউট হয়েছিল সাউথ আফ্রিকা। তার আগে ১৯২২ সালে আবার ইংল্যান্ডের কাছে ৩৬ রানে গুটিয়ে যায় অজিরা।

আইরিশদের সবচেয়ে বেশি ক্ষতি করেছেন ক্রিস ওকস। দ্বিতীয় ইনিংসে ১৭ রানে ৬ উইকেট নেন তিনি। এই নিয়ে টেস্ট ক্যারিয়ারে তিনবার পাঁচ বা তার বেশি উইকেট নিলেন তিনি। অবাক করা বিষয় হল, তিনবারই তিনি এই কাজ করলেন লর্ডসে।

প্রথম ইনিংসে এক হাফসেঞ্চুরিসহ সাতজন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্ক ছুঁলেও দ্বিতীয় ইনিংসে আয়ারল্যান্ডের মাত্র একজন ব্যাটসম্যান দুই অঙ্ক স্পর্শ করেন (১১ রান)।

আগেরদিন প্রথম ইনিংসে ৮৫ রানে অলআউট হওয়ার কলঙ্ক মুছে দ্বিতীয় ইনিংসে ইংল্যান্ডের প্রাথমিক ধাক্কাটা সামলে দিয়েছিলেন জেসন রয়, জ্যাক লিচরা। কিন্তু লর্ডসে বৃহস্পতিবার টেস্টের দ্বিতীয় দিন চাপ পুরোপুরি কাটাতে পারেনি ইংল্যান্ড। দ্বিতীয় ইনিংসে স্কোর ৩০৩-৯ রানে বৃহস্পতিবার শেষ করে ইংল্যান্ড, এগিয়ে থাকে ১৮১ রানে। তবে শুক্রবার আর কোনো রান যোগ করার আগেই অলআউট হয়ে যায় তারা।

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত