চার কাজে জেনে নিন কতটা সুস্থ আপনি

Reading Time: 2 minutesবলা হয় স্বাস্থ্যই সকল সুখের মূল। অসুস্থ হলেই সেটা হাড়ে হাড়ে টের পাওয়া যায়। আর তাই সবাই সুস্থ থাকতে চায়। বিজ্ঞানীদের মতে, একজন মানুষ যদি চারটি কাজ নিয়মিত করতে পারেন, তাহলে বোঝা যায় যে সেই মানুষটি সুস্থ। জেনে নিন সেই চারটি কাজ সম্পর্কে।
এক পায়ে ভারসাম্য শুনতে অদ্ভুত শোনাতে পারে যে যদি আপনি এক পায়ে ভর দিয়ে দাঁড়িয়ে ভারসাম্য রাখতে পারেন, তাহলে আপনার ব্রেইন ভালো আছে। এক পায়ের উপর ভর করে ৬০ সেকেন্ড দাঁড়িয়ে থাকার চেষ্টা করুন। যদি ২০ সেকেন্ড পরেই ভারসাম্য হারিয়ে ফেলেন, তাহলে ব্রেইনের সমস্যায় ভোগার ঝুঁকিতে আছেন আপনি। জাপানের একটি গবেষণায় যেই ৩০ শতাংশ বয়স্ক ব্যক্তি এই পরীক্ষায় ভারসাম্য রাখতে পারেননি তাদের প্রত্যেকেরই মস্তিষ্কে সামান্য হলেও রক্তক্ষরণের ইতিহাস হয়েছে। মাইক্রোব্লিডিং এর কারণে শরীরের ভারসাম্যে সমস্যা দেখা দেয়। এই মাইক্রোব্লিডিং পরবর্তীতে মস্তিষ্কের বড় ধরণের সমস্যা তৈরি করতে পারে। . চেয়ার টেস্ট চেয়ারে বসুন। এরপর দাঁড়ান। এভাবে টানা দশবার করুন। দেখুন পুরো কাজটি করতে কতক্ষণ সময় লাগলো। যুক্তরাজ্যের একটি গবেষণায় জানা গেছে, প্রাপ্তবয়স্ক যেই অংশগ্রহণকারীরা দশ বার চেয়ারে উঠা-বসার এই কাজটি ২১ সেকেন্ড অথবা তার কম সময়ে করতে পেরেছে তারা অন্যদের তুলনায় শারীরিক ভাবে বেশি সুস্থ এবং সবল। এই কাজটি করতে শরীরের নিচের অংশের মাংসপেশির জোর থাকতে হয় এবং হৃদপিণ্ড সুস্থ থাকতে হয়। . পায়ের আঙুল স্পর্শ মেঝেতে পা মেলে বসুন। এরপর পা সোজা রেখে পায়ের আঙুল স্পর্শ করার চেষ্টা করুন। যদি ব্যর্থ হন তাহলে আপনার হৃদপিণ্ডের সমস্যায় ভোগার ঝুঁকি রয়েছে। নর্থ টেক্সাস বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের মতে শরীরের নমনীয়তার সঙ্গে রক্তনালীর নমনীয়তার সম্পর্ক আছে। রক্তনালী যদি অনমনীয় হয়ে যায় তাহলে রক্ত পাম্প করতে হার্টের জন্য কঠিন হয়ে যায়। ফলে হৃদপিণ্ডের নানা সমস্যা দেখা দিতে পারে। . দ্রুত সিঁড়ি বেয়ে উঠা গ্যালিসিয়ার ইউনিভার্সিটি হসপিটাল করুনার একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, যদি কোনো বিরতি ছাড়া চার ফ্লাইট সিঁড়ি বেয়ে উঠতে পারে কেউ, তাহলে তার অকালে মৃত্যুর ঝুঁকি কম। গবেষকদের মতে একজন মানুষ যদি সুস্থ হয়, তাহলে এই পরীক্ষাটি তার এক মিনিটের মধ্যে সম্পন্ন করতে পারার কথা। যারা পারেন না, তাদের হার্টের সমস্যা এবং ক্যানসারে ভুগে মৃত্যুর ঝুঁকি বেশি থাকে। তবে হুড়মুড় করতে সিঁড়ি বেয়ে উঠতে গিয়ে যেন পড়ে না যান, সেই ব্যাপারে সতর্ক থাকতে হবে। কৃতজ্ঞতাঃ টাইমস অব ইন্ডিয়া       .  

Leave a Reply

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

You may use these HTML tags and attributes:

<a href="" title=""> <abbr title=""> <acronym title=""> <b> <blockquote cite=""> <cite> <code> <del datetime=""> <em> <i> <q cite=""> <s> <strike> <strong>