গুগলের নিষেধাজ্ঞায় হুয়াওয়ে স্মার্টফোন

হুয়াওয়ের সাথে মার্কিন প্রশাসনের সম্পর্কের অবনতি হয়েছিল বেশ কিছুদিন আগেই। এবার নতুন এক অবরোধ আরোপ করে পুরো প্রতিষ্ঠানকেই একঘরে করলো যুক্তরাষ্ট্র। চীনা প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের উপর মার্কিনী সব ধরণের সেবায় ‘নিষেধাজ্ঞা’ জারি করেছে ট্রাম্প প্রশাসন।

দ্যা ভার্জ জানিয়েছে, নতুন নিষেধাজ্ঞার ফলে মার্কিন জায়ান্ট গুগল হুয়াওয়ের সঙ্গে তাদের বাণিজ্য চুক্তি বাতিল করেছে। ফলে এখন থেকে আর হুয়াওয়ে তাদের ফোনে অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেম এবং গুগলের প্লে স্টোর, জিমেইলসহ অন্যান্য সার্ভিস ব্যবহার করতে পারবে না। এর ফলে সমূহ বিপদের মুখে পড়বে হুয়াওয়ের স্মার্টফোন ব্যবসা। কারণ তারা মার্কিন প্রতিষ্ঠান গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমের নির্ভরশীল।

এছাড়াও গুগলের সিকিউরিটি আপডেট থেকেও বঞ্চিত হবে পুরনো সব হুয়াওয়ের ফোন ব্যবহারকারীরা। যদিও ওপেন সোর্স হওয়ার কারণে তারা অ্যান্ড্রয়েডের পাব্লিক রিলিজ (এওএসপি) গুলো ব্যবহার করতে পারবে প্রতিষ্ঠানটি, তবে তা যথেষ্ট নয়।

এদিকে ব্লুমবার্গ  তাদের সর্বশেষ প্রতিবেদনে জানিয়েছে, সফটওয়্যারের পাশাপাশি হার্ডওয়্যারের জন্যেও কোয়ালকম, ইন্টেলের মত প্রতিষ্ঠানের কাছ থেকে যন্ত্রাংশ সরবরাহও পাবে না হুয়াওয়ে। পাশাপাশি জার্মান চিপ নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ইনফিনিওন টেকনোলজিসও হুয়াওয়ের সমস্ত অর্ডার বাতিল করেছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জারি করা এক নির্বাহী আদেশের ভিত্তিতে মার্কিন বাণিজ্য বিভাগ হুয়াওয়ের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে। এর আওতায় মার্কিন কোন প্রতিষ্ঠান হুয়াওয়ের কাছে কোন হার্ডওয়্যার বা সফটওয়্যার পণ্য বিক্রয় করতে পারবে না।

তবে, এমন পরিস্থিতির মুখেও আশা হারাচ্ছে না হুয়াওয়ে। প্রতিষ্ঠানটির পক্ষ থেকে পরিস্থিতি সামলে উঠার কথা জানানো হয়েছে।

গত বুধবার ট্রাম্প প্রশাসন আনুষ্ঠানিকভাবে হুয়াওয়েকে যুক্তরাষ্ট্রে ‘কালো তালিকা’ ভুক্ত করে। এর ফলে সরকারি অনুমোদন ছাড়া মার্কিন সংস্থা থেকে প্রযুক্তিসেবা নেওয়ার পথ বন্ধ করা হয় হুয়াওয়ের জন্য।

উল্লেখ্য, গেল বছর থেকে হুয়াওয়ের বিরুদ্ধে গুপ্তচরবৃত্তির অভিযোগ আনে যুক্তরাষ্ট্র। যুক্তরাষ্ট্রে ফাইভজি সেবার কাজে হুয়াওয়েকে ‘নিষিদ্ধ’ও ঘোষণা করা হয়।

.

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত