একমাত্র পাগলরাই অপরাজিত

ক্রমশ শিউলি হচ্ছে ভোর, হাঁটছি হাওয়ার ঘ্রাণে দু’হাত ভাসিয়ে।
কেউ যেন পাহাড় থেকে গড়িয়ে দিল, বিস্তৃত হল গোলক।
প্রসারিত হল ছাতিম কোথাও বা শিউলিময় অজস্র ।
ফিরে আসি অন্ধকার মতো আলোছায়াময় ঘরে। মনে পড়ে, প্রায়ান্ধকার মেঘময় বিকালের কথা, সময় বেগুনি করে দিয়েছে যে চশমা, আমি ব্যথার মত তার কাচ মুছি।
তোমার মুখ শাটিনের বালিশে লুকানো। সত্যিই কি কেউ পুরানো স্কুল মাঠে ধূলোর ভেতরে জড়াজড়ি করতে দেখেনি কোনো জোড়া বেড়াল !
কেউ না? তাহলে এই লাল চোখ,না আঁচড়ানো চুল, বিষন্ন ঝোলা,অচেনা চায়ের দোকান, সিগারেটের নাম, দাম , ব্রান্ড, কে মনে রাখে।
দেবতার গল্প শেষ,পায়ে ফুল দেয়ার গল্পও ,মৃতদেহ বয়ে নেয়ার জন্য কোনো ডাহুক পাওয়া যাবেনা আর
আমার কাঁধের যন্ত্রণা কী বলে জান? একমাত্র পাগলরাই অপরাজিত

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত