একশো করতে পারবে কি পাকিস্তান

 

 

একশো রানও ওঠেনি স্কোর বোর্ডে, সাজঘরে ফিরে গেছেন নয় ব্যাটসম্যান। যার ফলে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ভীষণ চাপে পড়েছে পাকিস্তান। ২০ ওভার শেষে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৮৬ রান ৯ উইকেটে।
বিশ্বকাপের নিজেদের প্রথম ম্যাচে শুরুতেই দুই ওপেনার ইমাম উল হক ও ফখর জামানকে হারিয়ে চাপে পড়েছে পাকিস্তান। এরপর সেই চাপ সামলে ওঠার আগেই বিদায় নিয়েছেন মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান হারিস সোহেল। দলীয় সংগ্রহ তখন ৪৫ রান। আর ৬১ রানে হারিয়েছে চতুর্থ উইকেট।
নটিংহ্যামের ট্রেন্টব্রিজে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১৭ রানে প্রথম উইকেট হারায় পাকিস্তান। ইমাম উল হক বিদায় নেন ব্যক্তিগত ২ রানে। শেলডন কটরেলের বলে উইকেটের পেছনে ক্যাচ দেন তিনি। তবে এক প্রান্তে স্টোকের ফোয়ারা ছোটাতে থাকেন অপর ওপেনার ফখর জামান। ফখরকে আটকাতে বোলিংয়ে পরিবর্তন আনেন ক্যারিবীয় অধিনায়ক জেসন হোল্ডার। এতেই বাজিমাত করে দলটি। দারুণ খেলতে থাকা ফখর ফিরে যান সাজঘরে।

অবশ্য এতে বোলারের কৃতিত্বের চেয়ে ফখর জামানের দুর্ভাগ্যই বেশি দায়ী। নতুন বোলার আন্দ্রে রাসেলের একটি বাউন্সার পুল করতে গিয়ে মিস করেন ফখর। বলটি তার হেলমেটে আঘাত হেনে ছিটক পড়ে স্ট্যাম্পে। বোল্ড! ফখরের সংগ্রহ তখন ১৬ বলে ২২ রান।
এরপরের ওভারে রাসেল তুলে নেন নতুন ব্যাটসম্যান হারিস সোহেলকেও। বাউন্সারে আপার কাট করতে গিয়ে ব্যাটের কানা ছুইয়ে বল যায় উইকেট কিপারের গ্লাভসে।

এরপর অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদকে নিয়ে চাপ সামলে ওঠার চেষ্টা করেছিলেন বাবর আজম; কিন্তু ১৪তম ওভারের প্রথম বলেই তিনিও ক্যাচ দেন উইকেটের পেছনে। এবার বোলার ওশানে থমাস। পাকিস্তানের রান তখন ৬১।

.

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত