পঞ্চতপার তিনটি কবিতা

আজ ৯ আগষ্ট কবি,নৃত্যশিল্পী পঞ্চতপা দে সরকারের জন্মতিথি। ইরাবতী পরিবার তাঁকে জানায় শুভেচ্ছা ও নিরন্তর শুভকামনা।


আসবাবের আত্মকথন

তোমার লক্ষটাকার ট্যাক্স আর মধ্যমগ্রাম অট্টালিকার তলায়, আমি তলিয়ে যাই যে
আমি বড্ড ছাপোষা মেয়ে অমুকবাবু
তোমার অমন সুঠাম দেহ
দেখে ভয়ে পালায় কেহ
তোমার আরণ্যক উষ্ণীষ
চোখটি রাঙাও উনিশ বিশ
হলেই,আমার প্রেমকে ছাপিয়ে যায় যে
আমি বড়ই ছাপোষা মেয়ে
অমুকবাবু।
তোমার মেঘডমরু স্বর
তোমার পর কে আপনকর
রীতির, আমি কি ছাই কিছুই বুঝি?
শুধু নিজের টুকুই খুঁজি
তোমার উপেক্ষা না পেলে আমার ভাতটি হজম হয়না যে
আমি বড্ড ছাপোষা মেয়ে
অমুকবাবু।
আমি আনন্দে গাই ,ব্যথায় কাঁদি
অভিমানে দুকুল ছাপায় মন
মান ভুলে যাই যখন আসে তোমায় দেখার অনুক্ষণ।
অমুকবাবু তুমি ব্যথার বুঝবে কি
ছাপোষা মেয়ে ব্যথা পেয়েছে, তুমি তো পাওনি।
তাই বলি কি,এই হোক বেশ
তোমার সঙ্গে পথ হোক শেষ
তুমি হও তোমাতে অন্তরীণ
আমার ফুরোক ভালোবাসার দিন
অতঃপর দিনের শেষে ব্যথা বাজবে না যে
আমি বড়ই ছাপোষা মেয়ে
অমুকবাবু।

 

সমতীত প্রেম

যতটা পায়ের পাতা বিদীর্ণ করেছে এই বুক
ততটা নির্ভীক নয় অসময়ে চলে আসা আমার অসুখ
ছিড়ে ফেলা মান ঘিরে শব্দেরা এঁকেছে যে আলপনা
পদচিহ্ন মুছে দেবো, ভেবেছি ফিরেও দেখবোনা
চলে যাওয়া, ফের আসা ভেবেছিলাম কাটাকুটি খেলা
পাঁজরের ছবি ঘেঁটে কেটে যায় কত আয়নাবেলা
কার্বন ঠাসা স্পন্দনের দেওয়াল খসুক নতশিরে
রোদ্দুর ভেসে যাক উদ্ধত শরীরের মীড়ে
ফেলে আসা ব্যথা ছবি,অন্বয় শব্দের ভিড়
দিনান্তে মিথ্যে সব,আমি যেন আমাতেই একাকী নিবিড়
থাক পড়ে শুকনো পাতাদের মন্দ্রিত গান
সবুজে রোপিত হোক সমবেত মনের বিতান।
উষসী আদরে যে স্থবিরতা থাকে,
সমতীত প্রেম ভুলে শরীরে জড়াবো আমি তাকে।

 

ছোঁয়া নিরাময়

বসন্ত আসেনা একাকী অক্ষরেখায়, প্রান্ত পলাশে রোদের যত কাটাকুটি খেলা,
বসন্ত আসবে বলে কোকিলের সংযমী ডাক অথবা নীল চরাচর,
সবই ফিরিয়েছি উৎসব মুখরিত হেলায়।
আমাকে ছোঁয়নি ওরা,শিমুলসিক্ত প্রেমে উপেক্ষা হেনেছি বারবার।
শুধু এক বাদামি ঝলক,
হাত পেতে দাঁড়ায় যখন মাধুকরী চোখে,
তীব্র ঝুলিতে তাঁর নিজেকেই রাখি নতশিরে,
ছোঁয়া নিরাময় আসে বসন্তের নামে।

 

 

 

 

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত