এই গরমের ফ্লোরাল প্রিন্ট

সামার স্টাইল’ আর ‘ফ্লোরাল প্রিন্ট’ একেবারে হাতে হাত মিলিয়ে চলে। উজ্জ্বল হলুদ, সবুজ, গোলাপি, লালের মতো শেডের সঙ্গে গরমকালের সম্পর্ক এমনিতেই খুব ঘনিষ্ঠ। জানলা দিয়ে বাইরে তাকালেই দেখবেন গাঢ় গোলাপি বোগেনভিলিয়া মাথা দোলাচ্ছে হাওয়ায়, কৃষ্ণচূড়ার লাল আর রাধাচূড়ার হলুদ চোখে ধাঁধা লাগিয়ে দিচ্ছে! তাই পোশাকেও সে সব রঙের বাহার থাকলে আপনাকে আরও উজ্জ্বল দেখাবে।

গরমকালে ট্রাউজ়ার্স বা প্যান্ট পরতে অনেকেই পছন্দ করেন না। সে ক্ষেত্রে মাঝারী চওড়া বা একটু লম্বা ঝুলের ম্যাক্সি অথবা সান ড্রেস পরতে পারেন স্বচ্ছন্দে। হালকা কোনও ফেব্রিক, যেমন সুতি, মলমল বা লিনেনের তৈরি ঢিলেঢালা হাঁটুঝুল পোশাককেই সানড্রেস বলা হয়। অ্যাসিমেট্রিকাল পোশাকটি এই গরমে খুব আরামদায়ক, প্ল্যাটফর্ম হিলের সঙ্গে পোশাকটি পরা যেতে পারে, কিংবা চাইলে আপনি পছন্দের কোনও থং স্যান্ডাল বা জুতোর সঙ্গেও এই পোশাক স্বচ্ছন্দে পরতে পারেন। সংগ্রহে রাখুন ফ্যাশনেবল সানগ্লাস, গরমের দিনে এটি একান্ত আবশ্যক অ্যাকসেসরি।

পোশাকগুলোর শেড যেহেতু খুব উজ্জ্বল, তাই বাকি সাজগোজ একেবারে সাদামাটা রাখাই ভালো। খুব গাঢ় রঙের লিপস্টিক বা চওড়া করে পরা কাজল ঘাম আর অতি সক্রিয় সিবেসিয়াম গ্ল্যান্ড নিঃসৃত তেলের প্রভাবে গলতে আরম্ভ করবে খুব শিগগির। তাই সামান্য লিপ টিন্টের ছোঁয়া আর মাসকারার উপরেই আস্থা রাখুন। মুখে লাগান সানস্ক্রিন, হাতের কাছে রাখুন সানস্ক্রিনযুক্ত কমপ্যাক্ট। রোদ থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখতে পারলেই গরমের সঙ্গে অর্ধেক লড়াই তো জিতেই গেলেন আপনি!

 

 

 

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত