বিদ্যাসাগর কলেজের সামনে আগুন, মূর্তি ভাঙল দুষ্কৃতীরা

বিদ্যাসাগর কলেজের সামনে আগুন লাগাল দুষ্কৃতীরা । ভাঙা হল বিদ্যাসাগরের মূর্তি । অন্যদিকে ইট ছোড়াছুড়িতে জখম হয় দু’জন ।
অমিত শাহর রোড শো বিদ্যাসাগর কলেজের কাছে পৌঁছাতেই হস্টেল গেটের সামনে থেকে গো ব্যাক অমিত শাহ স্লোগান দেয় টিএমসিপি-র কর্মীরা । এরপরই তাদের দিকে তেড়ে আসে বিজেপি কর্মীরা । উভয় পক্ষের মধ্যে খণ্ডযুদ্ধ শুরু হয় । শুরু হয় ইট ছোড়াছুড়ি। এর জেরে কয়েকজন জখম হয় । পরে কলেজের মধ্যে ঢুকে ভাঙচুর চালায় দুষ্কৃতীরা । কলেজের সামনে দাঁড়িয়ে থাকা বাইকে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। ঘটনায় জখম অভিষেক মিশ্র বলেন, “আমাদের কোনও কর্মসূচি ছিল না । আজ অমিত শাহর মিছিল হচ্ছিল । আমরা দাঁড়িয়েছিলাম । হঠাৎ ইট ছোড়াছুড়ি শুরু হয় । অশ্রাব্য গালিগালাজ করা হয় আমাদের, জুতো ছোড়াও হয়। কলেজে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভেঙে দেওয়া হয়। বেশ কয়েকজন জখম হয়েছে । কয়েকজন কলেজের ভিতরে ঢুকে ভাঙচুর চালিয়েছে ।”

বিজেপি-টিএমসিপির সংঘর্ষে বিদ্যাসাগর কলেজে ভাঙচুরের ঘটনার তীব্র নিন্দা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। অমিত শাহকে ধিক্কার জানিয়েছেন তিনি। বিজেপি সভাপতিও তীব্র আক্রমণ করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। বাংলায় সন্ত্রাসের রাজত্ব চলছে বলে অভিযোগ করে শেষ দফার ভোটগ্রহণে তৃণমূলকে ‘যোগ্য জবাব’ দেওয়ার ডাক দিয়েছেন তিনি। বিজেপির বিরুদ্ধে অবিলম্বে লিখিত অভিযোগ জমা দেওয়ার জন্য পার্থ চট্টোপাধ্যায়কে নির্দেশ দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী। অন্য দিকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানাতে রাতেই দিল্লিতে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের দফতরে যায় বিজেপি। অবিলম্বে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমস্ত প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করতে হবে, নির্বাচন কমিশনের কাছে এই আবেদন জানিয়েছে তারা। হিংসা ছড়ানোর অভিযোগেই এই দাবি তোলা হয়েছে বলে সাংবাদিক সম্মেলন করে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় প্রতিরক্ষামন্ত্রী এবং বিজেপি নেত্রী নির্মলা সীতারামন।

এই দিকে বিদ্যাসাগরের মুর্তি ভাঙার ঘটনায় সামাজিক মাধ্যমে নিন্দার ঝড় বইছে।

সূত্রঃ জিটিভি

মন্তব্য করুন



আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

সর্বসত্ব সংরক্ষিত